সিল্ক ও তাঁতের শাড়িতে সফলতার স্বপ্ন সাবিহা বীথির

সান বিডি ডেস্ক || প্রকাশ: ২০২০-১০-১৪ ২০:২১:৫৭ || আপডেট: ২০২০-১০-১৪ ২০:২৮:০৮

রাজশাহীর বিখ্যাত সিল্ক ও ‍তাঁতের শাড়ি নিয়ে কাজ করেন তরুণ অনলাইন উদ্যোক্তা সাবিহা বীথি।তার বাড়ি রাজশাহী শহরের শালবাগানে।তিনি পাবনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ফাইনাল ইয়ারের স্টুডেন্ট। পড়াশোনার পাশাপাশি নিজেকে গড়ে তুলেছেন একজন উদ্যোক্তা হিসেবে।তার এই উদ্যোগকে এগিয়ে নিতে”রঙিন বাগিচা” নামে  অনলাইন ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন তিনি।

সাবিহা বীথি সানবিডি প্রতিনিধিকে জানান, মাত্র চার মাস আগে তিনি উদ্যোক্তা জীবনের শুরু করেন।এই সময়ের ভিতরে অনলাইনে তিনি প্রায় লাখ টাকার উপরে শাড়ি বিক্রি করেছেন।তার কয়েকজন প্রবাসী কাস্টমার রয়েছে।তিনি মূলত অনলাইন উদ্যোক্তাদের বৃহত্তম প্ল্যাটফর্ম উই ( ওমেন এন্ড   ই-কমার্স  ফোরাম)এর মাধ্যমে পণ্য প্রদর্শন করেন এবং ডেলিভারি দিয়ে থাকেন।

তার এই উদ্যোক্তা জীবনে আসার গল্পটা জানতে চাইলে তিনি বলেন ,শৈশব থেকেই  থেকেই স্বপ্ন ছিল নিজের জন্য, নিজের পরিচয়ের জন্য কিছু একটা করব।একজন মেয়ের জন্য পরিচয় টা খুব প্রয়োজন।যেহেতু আমি এখন ও পড়াশোনা করছি।তার পাশাপাশি নিজের জন্য কিছু করার আশায় উদ্যোগটি শুরু করেছি। শা‍ড়ি আমার খুব প্রিয় একটা জিনিস। শাড়ি পড়া আমার নেশা বলতে পারেন।সেটাকেই উদ্যোগে রূপ দিয়েছি।উদ্যোগ হওয়াটা সহজ ছিল না। তবে উদ্যোক্তাদের অনলাইন প্ল্যাটফর্ম উই ( ওমেন এন্ড   ই-কমার্স  ফোরাম)তে আমি সাহস পাই।সেখান থেকে শিক্ষা নিয়ে আমি এগিয়ে যাচ্ছি। আমি মূলত কাজ করছি রাজশাহী সিল্ক আর তাঁতের শাড়ি নিয়ে।

সিল্ক ও তাঁতের শাড়ি নিয়ে কাজ করার বিষয়ে তিনি সানবিডি প্রতিনিধিকে জানান, সাধারণ তাঁতি দের বোনা শাড়ি সবসময় আমাকে আকর্ষন করে।নিজেও পড়ি সবসময় তাঁতের শাড়ি। আর রাজশাহীর মেয়ে হওয়ায় সিল্ক এর প্রতি রয়েছে আলাদা টান।তাই এই দুটি বিষয় নিয়ে আমার উদ্যোগ।উদ্যোগের পিছনে কারণ হল অরজিনাল পণ্য  সবার কাছে পৌঁছে দেওয়া। যাতে তারা অরজিনাল পণ্য পেয়ে অনলাইন বিজনেস এ আগ্রহী হয়।

তিনি বলেন, বিভিন্ন জায়গার মানুষ রাজশাহী সিল্ক এর প্রতি আগ্রহী কিন্তু তারা অরজিনাল টা খুঁজে পায় না।।সেটার জন্য ই আমি সিল্ক নিয়ে কাজ করছি যাতে তারা সহজেই অরজিনাল সিল্ক পেতে পারে।তাঁতের শাড়ি অনেকে পছন্দ করলেও ঠিক কোয়ালিটির শাড়ি পায় না।অনেকে কম কোয়ালিটির শাড়ি বেশি দাম দিয়ে কাজ করে যার জন্য অনেকে ভাল তাঁতের শাড়ি পায় না।আমি তাই কোয়ালিটি সম্পন্ন তাঁতের শাড়ি নিয়ে কাজ করি।

একজন নারী হিসেবে তার এই উদ্যোক্তা জীবনে কোন বাঁধা এসেছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন,একজন নারী উদ্যোক্তাকে অনেক বাঁধার সম্মুখীন হতে হয়।আমি বেশি বাঁধা পেয়েছি পরিবার থেকে।এটা তাদের পছন্দ ছিল না।তারপরও সাহস নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি।আমার বেশি সমস্যা ছিল টাকা ইনভেস্ট করা।যেহেতু আমি একজন স্টুডেন্ট। এটা আমার জন্য অনেক বড় বাঁধা ছিল।   এখন অবশ্য সবার সাহায্য সহযোগিতা পাচ্ছি। আসলে আমাদের সামনে অনেক বাঁধা আসবেই।কিন্তু আমাদের থামা যাবে না।আমাদের কে সব বাঁধা পিছনে ফেলে ধৈর্য্য সহকারে নিজের কাজে লেগে থাকতে হবে।

তার এই উদ্যোক্তা জীবনের ভবিষ্যত পরিকল্পনার বিষয়ে তিনি বলেন,আমার লক্ষ্য হল নিজের উদ্যোগকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। তাঁতের শাড়ি আর সিল্ক কে সবার কাছে পৌঁছে দেওয়া।সবার বিশ্বাস অর্জন করে নিজের উদ্যোগ ‘রঙিন বাগিচা ‘ কে সবার কাছে পরিচিত করানোই আমার মূল লক্ষ্য।এছাড়াও নিজের উদ্যোগের টাকায় গরীব মানুষকে সাহায্য করা,একটা এতিম খানা তৈরি করার ইচ্ছা আছে।সবাই দোয়া করবেন আমার জন্য। আমি যেন আমার কাজে সফল হতে পারি।

তার একজন অনলাইন কাস্টমারের রিভিউ-

Sabiha Bithi আপুর সাথে পরিচয় উই এর মাধ্যমে।আমি শুধু দেখতাম কি মিষ্টি আর পরিশ্রমী আপুটা।।।আর আপুর পর্তুলিকা শাড়ি।।।

শুধু দেখতাম আর ভাবতাম আমিও একদিন পরবো হুম্ম।।যেই ভাবা সেই কাজ অর্ডার করে ফেললাম।আর আপু একদিনের নোটিশে পাঠিয়েও দিলেন। কিন্তু আমি লেট লতিফ শাড়ি পরে উঠতে পারলাম না নানা ব্যস্ততায়।।।

সুযোগ খুজতাম পরার জন্য।আজ চলে আসলো সেই সুযোগ।আহ।।।কি সুন্দর।মাড় ভাঙ্গা শাড়ি যে এত ভালো লাগে আমার আমি বুঝাতে পারবোনা কেনো।।

নতুন বউ নতুন বউ একটা আমেজ থাকে।

আর শাড়ির কালার টা জাস্ট ওয়াও।

খুব মন খারাপ ছিলো,সন্ধ্যা হয়ে যাওয়ার কারণে।

ছবি হয়তো ভালো আসবে না এই চিন্তায়।কিন্তু ছবি তুলে তো আমি পুরাই থ।।।এটা কি দেখলাম।।।!!!

কি যে সুন্দর শাড়ির কালার,শাড়ির কাজ।।

অনেক বড় শাড়িটা।।ইশ আরো আগে যদি চিনতাম আপুকে!! কলেজের সব ফাংশনে এই শাড়ি পরতাম আমি।।।

আপু ধন্যবাদ দিয়ে ছোট করবোনা।কিন্তু সব সময় দোআয় থাকবেন।

মনটাই খুশি হয়ে গিয়েছে শাড়িটা পরে।কত শত যে ছবি তুলে ফেললাম 🙈🙈 ।

সুমাইয়া,আছি তেজগাঁও থেকে ।।

স্বত্বাধিকারী -তত্ত্ব, Suhana’s kitchen & all

সানবিডি/ফাহমিদ জামান/৮:২১/১০.১৪.২০২০

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ