ঢাকা, , মঙ্গলবার, ২১ আগস্ট ২০১৮

প্লাস্টিক বোতল থেকে তোয়ালে,ব্যাগ আর সাঁতারের পোশাক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || প্রকাশ: ২০১৮-০৮-০২ ০৮:১৯:১৭ || আপডেট: ২০১৮-০৮-০২ ০৮:৫০:৩২

একদিকে বাতিল প্লাস্টিক বিশ্বের বোঝা হয়ে উঠছে। অন্যদিকে প্রযুক্তির ক্রমাগত উন্নয়ন রিসাইকেলের একের পর এক উদ্ভাবনী পন্থা আবিষ্কার করে চলেছে। ফলস্বরূপ হাইস্ট্রিটের বিলাসী দোকানগুলোয় বর্জ্য থেকে প্রস্তুত পণ্যের সম্ভারও বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রযুক্তির বদৌলতে পরিবেশবাদীদের জন্য চরম বিরক্তির বস্তু বাতিল প্লাস্টিকের বোতল রূপ বদলে ব্যাগ ও ডোরম্যাটে পরিণত হতে দেখা গেছে। অতি সম্প্রতি এগুলোকে আচ্ছাদন, সাঁতারের পোশাক ও প্যাকওয়ে ম্যাক (নারী, পুরুষ ও শিশুর জন্য) জ্যাকেটে রূপান্তরিত হতেও দেখা গেছে। এবার এর সঙ্গে যুক্ত হলো বাতিল প্লাস্টিকে তৈরি তোয়ালে।

যুক্তরাজ্যে প্রথমবারের মতো বিক্রির জন্য দোকানে বাতিল প্লাস্টিকে তৈরি তোয়ালে ছাড়া হবে। প্লাস্টিকের বিরুদ্ধে যুদ্ধে সর্বশেষ সংযোজন এটি। প্রযুক্তির যুগান্তকারী উদ্ভাবনের মাধ্যমে প্লাস্টিক বোতল থেকে যথেষ্ট নরম ও তুলতুলে তন্তু তৈরি করা গেছে, যা মানুষের ত্বকে ব্যবহারের উপযোগী।

আগস্টের শেষ সপ্তাহে যুক্তরাজ্যের চেইন ডিপার্টমেন্টাল স্টোর জন লুইসের ১৮টি শাখা ও অনলাইনে নতুন পরিবেশবান্ধব তোয়ালে বিক্রি শুরু হবে। সরবরাহকারকদের সঙ্গে নিয়ে প্রায় দুই বছরের নিবিড় পরীক্ষা ও পরিশ্রমের পর এ তন্তু উদ্ভাবন করা সম্ভব হয়েছে। এসব তোয়ালে তৈরিতে ৩৫ শতাংশ রিসাইকেলড প্লাস্টিক বোতলের পলিয়েস্টার ব্যবহার করা হয়েছে, বাকিটা প্রক্রিয়াজাত করা তুলা।

একটি গোসলের তোয়ালে তৈরির জন্য প্রায় ১০টি এক লিটারের প্লাস্টিকের বোতল ব্যবহার করা হয়েছে। এ বিষয়ে জন লুইস জানায়, তুলার বদলে রিসাইকেল তন্তু ব্যবহার করায় প্রতি বছর পাঁচ টন প্লাস্টিক যত্রতত্র পড়ে থাকার হাত থেকে রক্ষা করা যাবে। জন লুইসের তোয়ালের ক্রেতা জো ব্রাডি জানান, সরবরাহকারকদের সঙ্গে নিয়ে এ ধরনের তোয়ালে উদ্ভাবনে ১৮ মাস লেগেছে। প্রাথমিক পর্যায়ে রিসাইকেল উপকরণ থেকে আমরা যে নরম, অভিজাত অনুভূতি পেতে চাচ্ছিলাম, তা তৈরি করা ভীষণ কষ্টসাধ্য ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আমরা তা পেয়ে যাই। রিসাইকেল পলিয়েস্টার তোয়ালেগুলোকে দ্রুত পানি শুষে নিতে সাহায্য করে। আর তুলা ব্যবহার করায় এগুলোর শোষণক্ষমতাও অনেক বেশি। জন লুইসের একটি গা ঢাকা তোয়ালের দাম রাখা হয়েছে ৫ পাউন্ড, হাত মোছার তোয়ালে ৯ পাউন্ড এবং গোসলের তোয়ালে ১৬ পাউন্ড এবং বাথ শিট ২৪ পাউন্ড।

প্লাস্টিক বর্জ্য বিশ্বজুড়েই একটা গুরুত্বপূর্ণ চ্যালেঞ্জে পরিণত হয়েছে। বিশেষ করে ব্লু প্ল্যানেট টু-এর মতো টিভি অনুষ্ঠানগুলো সাগরে প্লাস্টিকের প্রভাব তুলে ধরছে। একই সঙ্গে প্লাস্টিক বর্জ্যের বৈশ্বিক প্রভাব সম্পর্কে ক্রমে সতর্ক করে আসছে। তবে ব্রিটিশ ব্রডকাস্টার ডেভিড অ্যাটেনবরো সামুদ্রিক দূষণের ভয়ঙ্কর সত্য সামনে তুলে ধরার আগে থেকেই খুচরা বিক্রেতা ও ম্যানুফ্যাকচারাররা প্লাস্টিকসহ রিসাইকেল উপকরণ ব্যবহারের আরো উদ্ভাবনী পন্থা অনুসন্ধানের চেষ্টা করে যাচ্ছিল।

পরিবেশবাদী দাতব্য প্রতিষ্ঠান হাববাবের প্রধান নির্বাহী ট্রিউইন রেস্টোরিক বলেন, যদি যথেষ্ট পরিমাণ সংগ্রহ ও রিসাইকেল সুবিধা থাকে, তবে বাতিল প্লাস্টিক মূল্যবান সম্পদে পরিণত হতে পারে। রিসাইকেল প্লাস্টিক থেকে এ মুহূর্তে তারা তাদের দ্বিতীয় নৌকাটি তৈরি করছে বলে জানান তিনি। যুক্তরাজ্যের জলপথ আরো প্লাস্টিক বর্জ্য মুক্ত রাখতে নৌকাটি ব্যবহার করা হবে। রেস্টোরিক বলেন, এটা খুব ভালো খবর, অন্যরাও প্লাস্টিক ব্যবহার করে জুতা ও সাঁতারের পোশাক থেকে শুরু করে থ্রিডি প্রিন্টেড রোদচশমা তৈরি করছে।

বিয়ার ব্র্যান্ড করোনা ও সামুদ্রিক সংস্থা পার্লে ফর দ্য ওশানস ফ্যাশন ও ডিজাইনে পরিবেশবান্ধব রিসাইকেল উপকরণের ব্যবহার বৃদ্ধির জন্য একত্রে কাজ করছে। রিসাইকেল উপকরণে তৈরি বিভিন্ন পণ্যের মধ্যে অ্যাডলফো কোরেয়ার নকশায় সীমিতসংখ্যক হাওয়াইয়ান শার্ট রয়েছে। এর আগে পার্লে এডিডাসের সঙ্গে মিলে সমুদ্রের প্লাস্টিক বর্জ্য থেকে জুতা ও সাঁতারের পোশাক তৈরি করেছে।

এদিকে হাইস্ট্রিটের দোকানগুলোয় রিসাইকেল উপকরণে তৈরি পণ্যের চাহিদা ক্রমে বাড়ছে। ঘরোয়া সামগ্রীর খুচরা বিক্রেতা লেকল্যান্ড রিসাইকেল উপকরণ দিয়ে তৈরি পণ্যের বিক্রি বাড়ার কথা জানিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির শতভাগ রিসাইকেল উপকরণে (প্লাস্টিক বোতলসহ) তৈরি অ্যান্টি-স্লিপ ইনডোর ম্যাট ‘হাগ রাগে’র বিক্রি মাসওয়ারি ২০ শতাংশের বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে।

উল্লেখ্য, যুক্তরাজ্যে প্রতিদিন প্রায় ৩ কোটি ৮৫ লাখ প্লাস্টিক বোতল ব্যবহার করা হয়। এর মাত্র অর্ধেকের কিছু বেশি রিসাইক্লিং হয়। অন্যদিকে প্রতিদিন ১ কোটি ৬০ লাখের বেশি প্লাস্টিক বোতল জমি ভরাটে ব্যবহার ও পোড়ানো হচ্ছে বা কোনো না কোনোভাবে পরিবেশ ও সমুদ্রে মিশছে। অথচ কোমলপানীয় ও পানির বোতলের সিংহভাগ পলিইথিলিন টেরেফথালেট থেকে তৈরি, যা পুনরায় ব্যবহার উপযোগী।

সূত্র: গার্ডিয়ান

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১