ঢাকা, , মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৮

আসাম বিমানবন্দরেই রাত কাটলো মমতার মন্ত্রী-এমপিদের

ডেস্ক || প্রকাশ: ২০১৮-০৮-০৩ ১০:৪৫:০৬ || আপডেট: ২০১৮-০৮-০৩ ১৬:১০:৪৮

ভারতের আসাম রাজ্যে প্রকাশিত নাগরিক পঞ্জিতে ৪০ লাখের বেশি বাসিন্দার নাম বাদ পড়ার প্রতিবাদ জানাতে যাওয়া তৃণমূল কংগ্রেসের একটি প্রতিনিধি দলকে শিলচর বিমানবন্দরে বৃহস্পতিবার আটকে দেয় পুলিশ। সেখানেই তাদের রাত কেটেছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম।
তবে এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুক্রবার সকালে আট এমপি-মন্ত্রীর মধ্যে ছয়জন কলকাতার উদ্দেশ্যে চলে গেছেন। আর দুইজন শুক্রবার বিকেল নাগাদ দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন।
এর আগে আসাম পুলিশের অতিরিক্ত ডিজি মুকেশ আগরওয়াল বিবিসিকে বলেন, ৮ মন্ত্রী ও সংসদ সদস্যকে তার ভাষায় ‘প্রিভেনটিভ ডিটেনশন’ দেয়া হয়েছে।
তিনি বলেন, যেহেতু কাছাড় জেলায় আগের রাত থেকেই ১৪৪ ধারা জারি রয়েছে, তাই শান্তি-শৃঙ্খলা বিঘ্নিত হবার আশংকায় তাদেরকে বিমানবন্দরের মধ্যেই আটক রাখা হয়েছে।
প্রসঙ্গত, ভারতের জাতীয় নাগরিক তালিকা থেকে আসাম রাজ্যের ৪০ লাখ বাসিন্দার নাম বাদ পড়ার ঘটনার প্রতিবাদে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধি দলটি সেখানে এক সমাবেশে বক্তব্য রাখার জন্য বৃহস্পতিবার শিলচর যান। কিন্তু তাদের বিমানবন্দরেই আটকে দেওয়া হয়।
খবরে বলা হয়েছে, দৃশ্যত তৃণমূলের এই দলটি যেন শিলচরে এসে সমাবেশ করতে না পারে বা এখানকার বাংলাভাষীদের সাথে কথা বলতে না পারে সে জন্যই ১৪৪ ধারা জারি করা হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে।
প্রতিনিধি দলে যারা ছিলেন তারা হলেন, পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের পূর্তমন্ত্রী সিরাদ হাকিম, লোকসভা সদস্য সুখেন্দুশেখর রায়, কাকলি ঘোষ দস্তিদার, মমতাবালা ঠাকুর, অর্পিতা ঘোষ, নাদিম-উল হক, রত্না দে-নাগ এবং রাজ্য বিধানসভা সদস্য মহুয়া মৈত্র।
এর আগে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি দলীয় সংসদ সদস্য ও মন্ত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তারা যেন বিমানবন্দরেই অবস্থান করেন এবং বিমানবন্দরের বাইরে কোথাও না যান।
তিনি বলেন, ‘আসামে সুপার এমার্জেন্সি চলছে। তারা আসলে লোকজনের সঙ্গে আমাদের কথা বলতে দেবে না।’

আর্কাইভ