ঢাকা,শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯

এস,এসসি’তে এ প্লাস প্রাপ্তদের মেধাবৃত্তি দিলো ডামুড্যা উপজেলা যুব কল্যাণ ট্রাস্ট, ঢাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক || প্রকাশ: ২০১৮-১০-০৭ ১৯:৫৯:৫৩ || আপডেট: ২০১৮-১০-০৭ ১৯:৫৯:৫৩

শিক্ষার্থীদের লেখা-পড়া এবং ভালো ফলের জন্য উৎসাহ দিতে মেধাবৃত্তি প্রদান খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এবং তাদের উৎসাহ দিতে এর বিকল্প নেই বলে মনে করেন শরিয়তপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক।
তিনি বলেন, বর্তমান সময়ে আমাদের দেশে অনেক মেধাবী শিক্ষার্থী রয়েছে। তাদের মেধাকে সঠিকভাবে পরিচর্যা করলে দেশ অনেক সম্পদ পাবে। আর এ জন্য বর্তমান প্রধানমন্ত্রী অনেক কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি চান রাষ্ট্র পরিচালনায় মেধাবী তরুনরা এগিয়ে আসুন।

 

রবিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এসএসসি, দাখিল ও সমমান পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও মেধাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানে চলতি বছরের উপজেলা হতে এস.এসসি ও সমমান পরীক্ষায় এ প্লাস এবং গোল্ডেন এ প্লাস প্রাপ্ত ৬৪ জন কৃতি শিক্ষার্থীর মাঝে এককালীন বৃত্তি, সনদ এবং ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। ডামুড্যা উপজেলা যুব কল্যাণ ট্রাস্ট, ঢাকা অনুষ্ঠানটি আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন- সংগঠনের সভাপতি আসাদুজ্জামান আজম

নাহিম রাজ্জাক বলেন, বর্তমান সরকারের সময়ে শিক্ষার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। তার ছোঁয়া লেগেছে শরিয়তপুর জেলায়। এ জেলা এক সময় ছিলো অবহেলিত। আমরা অবহেলিত সেই জেলাকে আধুনিক করতে আপ্রাণ চেষ্টা করছি। শিক্ষা-স্বাস্থ্য, সংস্কৃতি সব দিক দিয়েই এগিয়ে যাচ্ছে শরিয়তপুর।
আজকের শিক্ষার্থীরাই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ উল্লেখ করে ইয়াং বাংলার এই আহ্বায়ক বলেন, আদর্শিক শিক্ষা অর্জনের জন্য সুনির্দিষ্ট একটি লক্ষ্য থাকতে হয়। সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য এবং স্বপ্ন না থাকলে সুশিক্ষা অর্জন সম্ভব নয়। বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর সুনির্দিষ্ট লক্ষ ছিলো বলেই দেশ আজ উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ডামুড্যা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন মাঝি বলেন, ‘মেধাবী হওয়ার পূর্ব শর্ত পর্যাপ্ত লেখা-পড়া করা। পর্যাপ্ত লেখা-পড়া না করলে কাক্সিক্ষত লক্ষ্য অর্জন সম্ভব নয়। তাছাড়া ঠিকমতো বিদ্যা অর্জনের মাধ্যমেই জনগণের জন্য কাজ করা সম্ভব।’
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- ডামুড্যা উপজেলা যুব কল্যাণ ট্রাস্টের উপদেষ্টা চৌধুরী মুহিব্বুর রহমান বাবু, শরিয়তপুর জেলা যুবলীগের ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সম্পাদক আবদুর রশিদ গোলন্দাজ।

সাংবাদিক বোরহান উদ্দিনের সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য রাখেন- ডামুড্যা উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা আনোয়ার হোসেন মাল, বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক মহিউদ্দিন হাওলাদার, ডামুড্যা উপজেলা সমিতি, ঢাকার সাধারণ সম্পাদক ওয়াহিদুল হক খান, সহ-সভাপতি আবুল হাসেম, সাংগঠনিক সম্পাদক মুজিবুর রহমান, শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক আব্দুল হাই, অনুষ্ঠান উদযাপন কমিটির আহবায়ক ও ডামুড্যা উপজেলা যুবকল্যান ট্রাস্ট, ঢাকার সহ-সভাপতি সৈয়দ ইকবাল হোসেন (ওসমান), ডামুড্যা উপজেলা যুবকল্যান ট্রাস্টের সাধারণ সম্পাদক মো. খলিলুর রহমান মাদবর, সি. সহ-সভাপতি রেজাউল করিম গনি মাদবর, সি. সহ-সভাপতি ফারুক আলম মাদবর প্রমূখ।
ঢাকায় বসবাসরত ডামুড্যা উপজেলার যুব শ্রেনীর অধিবাসীর পারস্পরিক সর্ম্পক স্থাপন ও একে শক্তিশালী করে ঐক্যবদ্ধ ভাবে এলাকার উন্নয়নে কাজ করার উদ্দেশ্যে ‘ডামুড্যা উপজেলা যুব কল্যাণ ট্রাস্ট, ঢাকার আতœপ্রকাশ ঘটে। সংগঠনটির প্রতিষ্ঠার পর হতে ডামুড্যা উপজেলার স্থানীয় ও ঢাকা বসবাসরতদের কল্যাণে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, মাদক, সন্ত্রাসসহ সামাজিক ব্যাধি সচেতনা বৃদ্ধিতে কাজ করে আসছে।