ঢাকা, , বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮

ওয়াানডে বিশ্বকাপে খেলার আশায় মুমিনুল

স্পোর্টস ডেস্ক || প্রকাশ: ২০১৮-১২-০৫ ১২:০৫:০২ || আপডেট: ২০১৮-১২-০৫ ১২:০৫:০২

 

দেশের মাটিতে এই বছর আর কোনো টেস্ট সিরিজ নেই। এখন শুধু বাকি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ। এরই মধ্যে ওয়ানডে দলও ঘোষণা হয়ে গেছে। কিন্তু যথারীতি দলে নেই মুমিনুল হক সৌরভ।

অথচ এই বছর দেশের হয়ে তিনি হাঁকিয়েছেন টেস্টে সর্বাধিক চারটি সেঞ্চুরি। এমন কীর্তি আছে এ বছর শুধু ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলির। টেস্ট স্পেশালিস্ট তকমা নিয়ে এখন মুমিনুলের ওয়ানডে দলে জায়গা পাওয়াই দায়।

তাই আগামী বছর ফেব্রুয়ারিতে নিউজিল্যান্ড টেস্ট সিরিজের আগে তার আর আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা হচ্ছে না তা নিশ্চিত।

এরপর তার জন্য অপেক্ষা করছে আরো লম্বা সময় দলের বাইরে থাকার কঠিন দিন। কারণ মে মাসে বাংলাদেশ দল যাবে ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলতে। এর আগে ও পরে টেস্ট সিরিজ আয়োজনের কোনো সুযোগ নেই দলের।

তাই মুমিনুলকে শুধু অনুশীলন করেই দিন কাটাতে হতে পারে। তবে এ নিয়ে কষ্ট থাকলেও চিন্তিত নয় টেস্টের এই সেরা ব্যাটসম্যান। তার লক্ষ্য নিজেকে ওয়ানডে বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তুত করা। যদি সুযোগ আসে দেশের হয়ে বিশ্বকাপ খেলার আশা করেন তিনি।

মুমিনুল বলেন, ‘টেস্টের পর আমার আন্তর্জাতিক ম্যাচ না খেলতে পারাটা এখন অভ্যাস হয়ে গেছে। মন খারাপ হলেও চিন্তা করি নিজেকে ফিট রাখতে হবে। যে কারণে ঘরোয়া ক্রিকেটে মন দেই। জানি ফেব্রুয়ারির আগে আর টেস্ট ম্যাচ নেই।

এরপর বিশ্বকাপ। তাই আমার জন্য লম্বা সময় দলের বাইরে থাকতে হবে। কিন্তু আমি নিজেকে বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তত করার চেষ্টা করি। যদি কপালে থাকে তাহলে দেশের হয়ে বিশ্বকাপে খেলতেও পারি।’

২০১৫ বিশ্বকাপেও দলে ছিলেন মুমিনুল হক। কিনু্ত মাত্র ২টি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েছেন। যদিও পারফরমেন্স একেবারেই হতাশ করা। তার উপর তার সামনে ওয়ানডে খেলার সুযোগও কম। যে কারণে বিশ্বকাপ দলে কিভাবে নিজেকে নিয়ে যাবেন তিনি!

মুমিনুল বলেন, ‘আমি একজন ক্রিকেটার। আমাদের জীবনে অনেক কিছুই হতে পারে। সামনে  ফেব্রুয়ারিতে নিউজিল্যান্ডে যাব টেস্ট খেলতে। সেখানে চেষ্টা করবো নিজেকে আরো প্রমাণ করতে। যদি ব্যাটিংয়ে আমি আরো বড় কিছু করতে পারি তাহলে সুযোগ আসতেও পারে।’

অন্যদিকে দীর্ঘদিন পর পর আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে নেমে মুমিনুলকে পড়তে হয় বড় চ্যালেঞ্জে। নিউজিল্যান্ড সিরিজের আগে  দেশের বিসিএল ও বিপিএল-ই মূল ভরসা।

তিনি বলেন, ‘আসলে এখনও প্রসু্ততি নেয়ার জন্য হাতে বিসিএল’র দু’টি ম্যাচ আছে। এরপর বিপিএলও আছে। এই দু’টি আসরে আমার লক্ষ্য থাকবে ভালো করার। যদি ভালো করতে পারি তাহলে হয়তো আমাকে নিয়ে ভাবতেও পারেন নির্বাচকরা।

যেহেতু নিউজিল্যান্ডে আমাদের ওয়ানডে সিরিজ দিয়ে শুরু হবে। আর যদি খেলার সুযোগ পাই তাহলে কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারবো। আর তা না হলে সেখানে যতদিন সময় পাব চেষ্টা থাকবে মানিয়ে নেয়ার।’

ঘরের মাঠে প্রস্তুতি নিয়ে নিউজিল্যান্ডে টেস্ট খেলা সহজ হবে না তা মুমিনুলের বেশ ভালো করে জানা। তাই এখানে শুধু নিজের ভুলগুলোই শুধরে নিতে চান তিনি। মুমিনুল বলেন, ‘ দেখেন দেশে আমরা যতই প্রস্তুতি নিই না কেন সেখানে গিয়ে কন্ডিশনটাই হবে আমাদের মূল চ্যালেঞ্জ।

তাই এখানে আমার মূল চেষ্টা থাকবে যে ভুলগুলো শেষ সিরিজে করেছি সেগুলো শুধরে নেয়ার। আমি নিজের ভুলগুলো নিয়ে কাজ করছি। যেমন আমার পাঁচটা সেঞ্চুরি হতে পারতো। কিন্তু আমি মানসিকভাবে বেশ তাড়াহুড়া করেছি। এইসব নিয়ে কাজ করবো। আর টেকনিক নিয়ে বিশেষ করে সালাউদ্দিন স্যারতো আছেনই।’

সাবেক কোচ হাথুরুসিংহের সময়টা মুমিনুলের বেশ বাজেই  কেটেছে। চারবছর পর দেশের হয়ে কোনো সেঞ্চুরির দেখা পাননি তিনি। এমনকি তার জন্য মুমিনুলের খেলা হয়নি দেশের শততম টেস্টও। তবে এই বছরটা তার দারুণ কেটেছে।

দলে পেয়েছেন নয়া কোচ স্টিভ রোডসকে। যাকে তিনি দলের সবার বন্ধুই মনে করেন। কোচ নিয়ে মুমিনুল বলেন, স্টিভ অসাধারণ মানুষ। আমাদের উপর অনেক আস্থা। সবার সঙ্গে তিনি বন্ধুর মতো আচরণ করেন।

আমি সব সময় বলতাম কোচ হবে দলে ছোট-বড়, নতুন-পুরান সবার জন্য সমান। এতদিনে মনে হয় এমন একজন কোচ পাওয়া গেছে যে, সকলের জন্যই সমানভাবে নিজেকে মেলে ধরেন।