ঘুরে আসুন বিশ্বের শীর্ষ পাঁচ সুন্দর দেশে!

সান বিডি ডেস্ক || প্রকাশ: ২০১৯-০১-০৮ ১৭:৩৭:২৩ || আপডেট: ২০১৯-০১-০৮ ১৭:৪৪:০৩

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি আর পৃথিবীর সব প্রান্তের ভ্রমন পিপাসু পর্যটকদের আনাগোনায় মুখরিত পর্যটন কেন্দ্র গুলো ।সবুজ আর বৈচিত্র্যৃময় এই ‘পৃথিবী’ নামক গ্রহে এক জীবনে প্রত্যেকের খুব অল্প জায়গাই ঘুরে দেখা হয়। এর অপরূপ প্রাকৃতিক দৃশ্যাবলীর বিভিন্ন দেশে ভ্রমণ করতে অনেকেই পছন্দ করেন।তবে ভ্রমণের আগে জানা জরুরি কোথায়, কিভাবে ও কত দিনের জন্য ভ্রমনে যাবে তা ঠিক করা ।
আর তা সহজ করে,সম্প্রতি বিখ্যাত ভ্রমণ বিষয়ক পত্রিকা ‘লোনলি প্ল্যানেট’ নতুন শীর্ষ দশ দেশের তালিকা প্রকাশ করেছে। আসুন জেনে নেই ভ্রমণে জন্য সেখানের মধ্যে সেরা ৫ দেশ সম্পর্কে।

শ্রীলঙ্কা
শ্রীলঙ্কা দক্ষিণ এশিয়ার একটি দ্বীপ রাষ্ট্র।১৯৭২ সালের আগে এই দ্বীপ সিলন নামেও পরিচিত ছিল।নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক সৌন্দর্য সংবলিত সমুদ্রসৈকত, ভূদৃশ্য তদুপরী সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য শ্রীলঙ্কাকে সারা পৃথিবীর পর্যটকদের কাছে অত্যন্ত আকর্ষণীয় করে তুলেছে। প্রাচীনকাল থেকেই শ্রীলঙ্কা একটি গুরুত্বপুর্ণ সামুদ্রিক সৈকত ও বাণিজ্যিক কেন্দ্র হিসেবে বণিকদের কাছে পরিচিত।২ কোটি জনসংখ্যার চা, কফি, নারিকেল আর রাবারের ভুবন ভুলানো প্রাকৃতিক দৃশ্যাবলীর এই দেশকে ‘লোনলি প্ল্যানেট’পত্রিকা তাদের তালিকার শীর্ষ স্থানে রেখে দিয়েছে।মজার বিষয় হল,পৃথিবীতে শ্রীলংকা একমাত্র অমুসলিম দেশ দেখানে রেডিও ও টেলিভিশনে পাঁচ ওয়াক্ত আযান দেয়া হয়।

জার্মানি
জার্মানি ইউরোপের ৭ম বৃহত্তম ও অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এ দেশটি পর্যটনের জন্য আগে থেকেই বিশ্ববিখ্যাত। উত্তরে উত্তর সাগর ও বাল্টিক সাগরের উপকূলীয় নিম্নভূমি থেকে মধ্যভাগের ঢেউ খেলানো পাহাড় ও নদী উপত্যকা এবং তারও দক্ষিণে ঘন অরণ্যাবৃত পর্বত ও বরফাবৃত আল্পস পর্বতমালা দেশটির ভূ-প্রকৃতিকে বৈচিত্র্যময় করেছে। দেশটির মধ্য দিয়ে ইউরোপের প্রধান প্রধান নদী ( রাইন, দানিউব, এলবে) প্রবাহিত হয়েছে যা দেশটিকে একটি বাণিজ্যিক কেন্দ্রে পরিণত করতে সাহায্য করেছে। অত্যন্ত উঁচু নগরায়ন হারের এ দেশটি অসংখ্য ঐতিহাসিক স্থান ও নানা ধরনের জাদুঘর এবং প্রাকৃতিক সৌন্দর্য- এর কারণে লোনলি প্ল্যানেটের তালিকায় দ্বিতীয় স্থান দখল করে নিয়েছে।

জিম্বাবুয়ে

জাম্বিয়া এবং জিম্বাবুয়ের যৌথ নদী জাম্বেজি-তে সৃষ্ট জলপ্রপাত!

জিম্বাবুয়ে আফ্রিকার দক্ষিণ অংশে অবস্থিত একটি রাষ্ট্র। দেশটি তার দক্ষিণ-পূর্ব অংশে অবস্থিত ১৪শ শতকে পাথরে নির্মিত মহান জিম্বাবুয়ে শহরের নামে নামকরণ করা হয়েছে। জাম্বেজি নদীর উপর অবস্থিত ভিক্টোরিয়া জলপ্রপাত এবং বন্য জীবজন্তুর জন্য দেশটি বিখ্যাত।তালিকায় তৃতীয় স্থানাধিকারী আফ্রিকার একমাত্র দেশ জিম্বাবুয়ে।জিম্বাবুয়েতে ২০০০ বছর ধরে মানুষের বাসতিপূর্ন এ দেশ ১৯৮০ সালে সংখ্যাগুরু কৃষ্ণাঙ্গ জনগণ জিম্বাবুয়ে নামে দেশটিকে স্বাধীন করে।ভ্রমণ করতে হলে ঘুরে আসতে পারেন এমন সুন্দর দেশ থেকে।

পানামা
পানামা উত্তর আমেরিকা মহাদেশের দক্ষিণাংশের একটি রাষ্ট্র ছোট। উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকার সংযোগস্থলে অবস্থিত এই দেশটি পূর্বে একসময় কলম্বিয়ার অধীন ছিল। এই দেশেই আটলান্টিক মহাসাগর ও প্রশান্ত মহাসাগর এর সংযোগকারী বহুল আলোচিত পানামা খাল অবস্থিত।সাদা বালির অপূর্ব সৈকত ও আদিবাসী সংস্কৃতি এবং অসাধারণ গ্রীষ্মমন্ডলীয় বনভূমির এই দেশটিকে ‘লোনলি প্ল্যানেট’পত্রিকা তাদের তালিকার চতুর্থ শীর্ষ স্থানে রেখে দিয়েছে।মন চাইলে ঘুরে আসতে পারেন এমন অপরুপ দেশ থেকে।

কিরগিজস্তান
মধ্য এশিয়ার পূর্বভাগের একটি স্থলবেষ্টিত রাষ্ট্র কিরগিজিস্তান।এটি থিয়েনশান পাহাড়ের পশ্চিম দিকে সুন্দর দৃশ্যময় এক পাহাড়ী দেশ। এ দেশের পাঁচ ভাগের চার ভাগই পাহাড়ী অঞ্চল ।কিরগিজ পাহাড়ের নীচে ছুহো নদীর উপত্যকায় অবস্থিত কিরগিজিস্তানের রাজধানী বিশকেক ; প্রাচীনকালেও যেমন এক গুরুত্বপূর্ণ শহর ছিল, তেমনি ছিল মধ্য এশিয়ার এক বিখ্যাত শহরও ।কিরগিস্তানে ইতোমধ্যেই পর্যটকদের পছন্দের গন্তব্য হয়ে উঠে এসেছে। চাইলে আপনিও ঘুরে আসতে পারেন পাহাড়ে ঘেরা এমন সুন্দর দেশ থেকে।

সানবিডি/হেলাল নিরব