ঢাকা,বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯

প্রথমবারের মত ফার্মটেক অ্যাপের মাধ্যমে গবাদিপশু সনাক্তকরন

সান বিডি ডেস্ক || প্রকাশ: ২০১৯-০২-১৪ ১৮:৩৮:০১ || আপডেট: ২০১৯-০২-১৪ ১৯:০২:০৮

বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো ফার্মটেক অ্যাপের মাধ্যমে গবাদিপশু সনাক্তকরন ও তালিকাভুক্ত করার সেবা শুরু হচ্ছে।যার মাধ্যমে সামাজিক ও এবং অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নের দিকে এগিয়ে যাবে দেশের আড়াই কোটি গবাদিপশুর মালিকেরা।

সিঙ্গাপুরভিত্তিক ফিনটেক কোম্পানি ইনফোকর্প টেকনোলজিস এবং গ্রীন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্সের যৌথ অংশীদারিত্বে একটি যৌথ পাইলট প্রকল্প প্রনয়ন করা হয়েছে যেখানে ইনফোকর্পের ফার্মটেক অ্যাপের মাধ্যমে গবাদিপশু ও তাদের মালিকদের পরিচয়, গবাদীপশু বীমা ইস্যুকরন এবং এনএফসি ট্যাগের মাধ্যমে গবাদিপশুর ট্র্যাকিং ও সনাক্তকরন করা যাবে।

ইনফোকর্প টেকনোলজিসের প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও মি: রয় লাই এবং গ্রীন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও ফারজানা চৌধুরী তাদের নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের হয়ে গত ১৪ই ফেব্রুয়ারি গুলশানের স্পেক্ট্রা কনভেনশন সেন্টারে এ চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

বাংলাদেশে সবচেয়ে বড় সাধারণ বীমা কোম্পানি এবং পৃথিবীর সর্বপ্রথম ব্লকচেইন কোম্পানির মধ্যে অনুষ্ঠিত এ চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানটির মাধ্যমে আশাবাদ ব্যক্ত করা যায় যে এই প্রকল্পটি বাংলাদেশে সামাজিক ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে ব্যাপক প্রভাব বিস্তার করবে যার ফলে গবাদি পশু লালন ও পালনের জন্য পুঁজি অবমুক্তি করা হবে এবং লাভবান হবে পশু মালিকেরা।

ফারজানা চৌধুরী বলেন, গ্রীন ডেল্টা ইন্সুরেন্স অত্যাধুনিক প্রযুক্তির পথে হেঁটে বাংলাদেশের গবাদিপশুদের জন্য বীমা ইন্স্যুকরনের ব্যবস্থা গ্রহন করেছে যার মাধ্যমে আর্থ-সামাজিক উন্নতি ঘটবে এদশের কৃষকদের। তিনি আরও যোগ করেন যে, যখন আমরা আমাদের সমস্যার হোলিষ্টক সমাধান বের করতে পারবো যা সমাজের অর্থনৈতিক সুবিধা বয়ে আনে,তখন তা আমাদের ব্যবসার জন্যও ভালো হবে।

ইনফোকর্পের সিইও মি. রয় লাই বলেন, গ্রীন ডল্টো ইন্স্যুরন্সে লিমিটেডের অংশীদার হয়ে আমরা আমাদের ব্লকচেইন প্ল্যাটফর্মকে বাংলাদেশে নিয়ে আসতে পেরে খুবই আনন্দিত। মায়ানমারের পর বাংলাদেশে আমাদের দ্বিতীয় বাজার। তিনি আরও যোগ করেন, ”আমরা বিশ্বাস করি যে এ অংশীদারিত্ব একটি অর্থনৈতিক বাস্তুতন্ত্র তৈরি করবে যেখানে গবাদীপশুর বীমা ইস্যুর ক্ষেত্রে পরিচয় এবং মালিকানা সনাক্তকরনের ব্যবস্থা থাকবে।