ঢাকা,সোমবার, ২৭ মে ২০১৯

ইউজিসির মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ চায় দুদক

সান বিডি ডেস্ক || প্রকাশ: ২০১৯-০৫-১৪ ১৭:৩৭:১৮ || আপডেট: ২০১৯-০৫-১৪ ১৭:৩৭:১৮

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) মাধ্যমে সকল সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগের সুপারিশ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। ২০১৮ সালের বার্ষিক প্রতিবেদনে এমন সুপারিশ করে দুদক।

দুদকের আইন অনুশাসন অনুসারে প্রতি বছর এ প্রতিবেদন রাষ্ট্রপতির কাছে দাখিল করা হয়।

দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদের নেতৃত্বে কমিশনের চার সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের কাছে দুদকের ২০১৮ সালের বার্ষিক প্রতিবেদন হস্তান্তর করে।

দুদকের এই প্রতিবেদনে বলা হয়, দুভাগ্যজনক হলেও সত্য বাংলাদেশের সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে শিক্ষার মানদণ্ডে কাঙ্খিত মাত্রায় সাফল্য অর্জন করতে পারছে না। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো তাদের অতীত ঐতিহ্যও হারাতে বসেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগে দুর্নীতির সংবাদ মানুষের মুখে মুখে শোনা যায়। দুদকও বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে মামলা মোকাদ্দমা পরিচালনা করছে। শিক্ষক নিয়োগের দুর্নীতি-স্বজনপ্রীতি দেশের উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহের ভাবমূর্তি ম্লান করে দিচ্ছে।

উল্লেখ্য,সম্প্রতি এশিয়ার সেরা ৪০০ বিশ্ববিদ্যালয়ের র‌্যাংকিং প্রকাশ করা হয়। যেখানে নেপালের একটি বিশ্ববিদ্যালয় স্থান পেলেও বাংলাদেশের কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের জায়গা হয়নি।

এ থেকে উত্তরণে দুদকের সুপারিশ হচ্ছে-সুর্নির্দিষ্ট নীতিমালার আলোকে বিশ্ববিদ্যালয়সমূহ ইউজিসির মাধ্যমে সকল সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগের ব্যবস্থা গ্রহণ করা যেতে পারে। সর্বোচ্চ মেধাবী এবং যোগ্য প্রার্থীরাই কেবল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগে সুপারিশ পাওয়া উচিত। এক্ষেত্রেও ইউজিসির মাধ্যমে একটি সমন্বিত ভর্তি নিয়োগ-নীতিমালা প্রনয়ণপূর্বক নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা যেতে পারে।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো কর্তৃপক্ষ নিজেরাই শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে থাকে।