ঢাকা,সোমবার, ২৭ মে ২০১৯

ফের ফেইসবুকের এক্সপ্রেস ওয়াইফাইকে না করল বিটিআরসি

সান বিডি ডেস্ক || প্রকাশ: ২০১৯-০৫-১৫ ১৩:৫৪:৪০ || আপডেট: ২০১৯-০৫-১৫ ১৩:৫৪:৪০

জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক সারাদেশে কম খরচে ওয়াইফাই চালু করতে চেযেছিল।ফেইসবুকের এই এক্সপ্রেস ওয়াইফাইকে একবার বাতিল করে দিয়ে পরের কমিশন বৈঠকেই আবার ফেরত আনা হয়েছিল পর্যালোচনার জন্য। পর্যালোচনার পর আবারো তা খারিজ করে দিল বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন বা বিটিআরসি।

কমিশনের পরপর তিনটি বৈঠকে এক্সপ্রেস ওয়াইফাই নিয়ে আলোচনা হয়।

এ দফায় ফেইসবুকের প্রস্তাব বাতিল করে দেওয়ার ক্ষেত্রে কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, নিরাপত্তার কারণে সারা দেশের ইন্টারনেট বন্ধ করে দেওয়ার দরকার হলে তখন মোবাইল ডেটা বন্ধ করা গেলেও ওয়াইফাইয়ের মাধ্যমে মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট চালু থাকবে। তখন এটি নিরাপত্তার জন্য ঝুঁকি হয়ে যাবে।

তা ছাড়া সেবাটি থেকে সরকারের আয় কিভাবে নিশ্চিত হবে সেটিও প্রস্তাবে পরিস্কার নয়।

এর আগে গত বছরের শেষ দিকে বিটিআরসিতে টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের উপস্থিতিতে এক বৈঠকে ‘এক্সপ্রেস ওয়াইফাই’ নামের ওই কার্যক্রমের প্রস্তাব দেয় ফেসবুক। জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটি বাংলাদেশে কম খরচে ইন্টারনেট সেবার প্রসারে এক্সপ্রেস ওয়াইফাই নামে একটি সেবা চালুর প্রস্তাব দেয়। কয়েকটি ইন্টারনেট সার্ভিস প্র্রোভাইডারকে সঙ্গে নিয়ে এ কাজ করতে চেয়েছিল। বিটিআরসি ২২৩তম কমিশন বৈঠকে প্রস্তাবটি নাকচ করে দেয়।

পরে কমিশন তাদের আইন শাখা এবং ইঞ্জিনিয়ারিং ও অপারেশন বিভাগের কাছে প্রস্তাবগুলো পাঠায় পর্যালোচনার জন্য। দুটি বিভাগের নানা মতামতের মধ্যে স্থানীয় অপারেটরদের মধ্যে রাজস্ব ভাগাভাগি হওয়ার উপায়, ডেটা সেন্টার দেশের মধ্যে না থাকাসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়।

এক্সপ্রেস ওয়াইফাই ইতোমধ্যে কয়েকটি দেশে চালু করা হয়েছে এবং এ সম্পর্কিত উন্নত নেটওয়ার্ক প্রযুক্তির পরীক্ষাও চালাচ্ছে ফেইসবুক।

ইন্টারনেট সুবিধাবঞ্চিত বা কম সম্প্রসারিত অঞ্চলগুলোতে বিশেষ নেটওয়ার্ক ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে কম খরচে দ্রুতগতির ইন্টারনেট সেবা দেয় এক্সপ্রেস ওয়াইফাই।

এ সেবা চালু করতে তথ্যপ্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা এবং মোবাইল অপারেটরদের সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করতে চাইছে জাকারবার্গের প্রতিষ্ঠানটি।

যেখানে এ সেবা চালু করা হবে সেখানকার আইএসপি, ওয়াইফাই ও হটস্পট সেবাদাতা কোম্পানিগুলোর নেটওয়ার্ক ব্যবহার করবে তারা। এখানে ক্যাবল ছাড়া ডিভাইসের সঙ্গে সংযোগে অত্যাধুনিক নেটওয়ার্ক প্রযুক্তি বা মেশ (ডব্লিউএমএন) ব্যবহার করা হবে।