ঢাকা,সোমবার, ২৭ মে ২০১৯

সাত পণ্যের লাইসেন্স বাতিল; প্রাণের ৩টিসহ ১৮টি স্থগিত

নিজস্ব প্রতিবেদক || প্রকাশ: ২০১৯-০৫-১৫ ২২:৫১:০৩ || আপডেট: ২০১৯-০৫-১৬ ১১:২৪:৩৯

খাদ্যে ভেজালের দায়ে ৭টি পণ্যের সনদ বাতিল করেছে জাতীয় মান নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউশন (বিএসটিআই)। এছাড়াও প্রাণের ৩টিসহ মোট ১৮টি পণ্যের সনদ স্থগিত করা হয়েছে। ৪৮ ঘন্টার মধ্যে এসব পণ্য বাজার থেকে তুলে নিতে হবে। বুধবার বিকালে বিএসইটির পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। আদালতের নির্দেশে নিষিদ্ধ ৫২টি পণ্যের তালিকা থেকে ২৫টির বিরুদ্ধে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হল। পর্যায়ে ক্রমে আরও ২৭টির ব্যাপারে এ ধরনের সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

জানতে চাইলে বিএসটিআইর পরিচালক প্রকৌশলী এসএম ইসহাক আলী বলেন, ভেজাল চিহ্নিত হওয়া ৫২টি পণ্যের সবগুলো ঢাকায় নয়। ঢাকার বাইরেও সারা রয়েছে। তবে যেগুলো ঢাকায়, সেগুলোকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছিল। এরমধ্যে ৭টি নোটিশের জবাব দেয়নি। এদের লাইসেন্স বাতিল করা হয়েছে। আর ১৮টি যে জবাব দিয়েছে, তাদের জবাবে আমরা সন্তুষ্ট নই। যে কারণে আপাতত তাদের লাইসেন্স স্থগিত করা হয়েছে। পর্যায়ে ক্রমে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়াও এসব পণ্য না কেনার ব্যাপারে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেয়া হবে।

প্রসঙ্গত, বিএসটিআইয়ের পরীক্ষায় নিম্ম মান প্রমাণিত হওয়ায় প্রাণের গুঁড়া হলুদ, কারি পাউডার, লাচ্ছা সেমাইসহ বিভিন্ন কোম্পানি ও ব্র্যান্ডের ৫২টি খাদ্যপণ্য বাজার থেকে প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এসব খাদ্যপণ্য বিক্রি ও সরবরাহে জড়িতদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ ও জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের প্রতি এ নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আগামী ১০দিনের মধ্যে সংস্থা দুটিকে এসব নির্দেশ বাস্তবায়ন করে আদালতে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এক রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে রোববার রুলসহ এ আদেশ দেন।

সাতটি লাইসেন্স বাতিল:
জানা গেছে- সাতটি পণ্যের লাইসেন্স বাতিল করা হয়েছে সেগুলো হল বনলতা সুইটসের ঘি, জাহাঙ্গীর ফুড প্রডাক্টসের সফট ড্রিংক পাউডার, শান্ত ফুড প্রোডাক্টের সফট ড্রিংক পাউডার, আরআরকিউ পিউরি ফাইড, মর্ণ ডিউ শাহারী অ্যান্ড ব্রাদার্স এবং আলসাফির বোতলজাত পানি।

১৮টি লাইসেন্স স্থগিত:

অন্যদিকে যে সব পণ্যের লাইসেন্স স্থগিত করা হয়েছে সেগুলো হল- প্রাণের গুড়া হলুদ, কারী পাউডার এবং লাচ্ছা সেমাই। এছাড়াও সিটি গ্র“পের তীর ব্রান্ডের সরিয়ার তেল, গ্রীণ ব্লিসিং ভেজিটেবল অয়েলের জিবি ব্রান্ডের সরিষার তেল, শবনম ভেজিটেবলের পুষ্টি ব্রান্ডের সরিষার তেল, বাংলাদেশ এডিবল ওয়েলের রূপচাদাঁ ব্রান্ডের সরিষার তেল, আররা ফুড অ্যান্ড বেভারেজের বোতলজাত পানি, ডানকানের মিনারেল ওয়াটার, দিঘী ড্রিংকং ওয়াটারের বোতলজাত পানি, ড্যানিশ ফুডের হলুদের গুড়া ও কারী পাউডার, তানভীর ফুডের হলুদের গুড়া, মোল্লা সল্ট ইন্ডাষ্ট্রিজের আয়োডিনযুক্ত লবন, এসিআই ফুডের ধনিয়া গুড়া ও আয়োডিন যুক্ত লবন, নিউজিল্যান্ড ডেইরী প্রোডাক্টের নুডুলস (স্টিক) এবং কাশেম ফুড প্রোডাক্টের সান ব্রান্ডে চিপস।

বিএসটিআইর পক্ষ থেকে বলা হয়, এসব পণ্যের মানোন্নয়ন করে পুণ:অনুমোদন নেয়ার আগে এসব পণ্য বিক্রি, বিতরণ, সংরক্ষণ ও বাণিজ্যিক বিজ্ঞাপন প্রচার করা যাবে না। একইসঙ্গে উৎপাদনকারীকে প্রতিষ্ঠানকে আগামী ৪৮ ঘন্টা অর্থাৎ শুক্রবারের মধ্যে এসব পণ্য বাজার থেকে তুলে নিতে হবে। এছাড়া ভোক্তারদের এসব পণ্য না কেনার ব্যাপারে বিএসটিআইর পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।