বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি ১৩ জুলাই

সান বিডি ডেস্ক || প্রকাশ: ২০১৯-০৭-১১ ১৮:৪৭:০৮ || আপডেট: ২০১৯-০৭-১১ ১৮:৪৭:০৮

ষষ্ঠবারের মতো মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সঙ্গে বার্ষিক কর্ম সম্পাদন চুক্তি (এপিএ) করতে যাচ্ছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

আগামী শনিবার (১৩ জুলাই) সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শাপলা হলে ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য ৫১টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সঙ্গে এপিএ চুক্তি হবে। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপস্থিত থাকবেন।

আজ বৃহঃস্পতিবার (১১ জুলাই) সচিবালয়ে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ভারপাপ্ত সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) শেখ মুজিবুর রহমান এ তথ্য জানান। সরকারি কাজে স্বচ্ছতা ও দায়বদ্ধতা বৃদ্ধি, সম্পদের সদ্ব্যবহার এবং প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা উন্নয়নে ২০১৪-১৫ অর্থবছর থেকে বার্ষিক কর্ম সম্পাদন চুক্তি করা হচ্ছে।

আগামী এক বছর মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো কী কাজ করবে সেই কাজের একটি অঙ্গীকারনামা হচ্ছে এপিএ বা বার্ষিক কর্ম সম্পাদক চুক্তি। সেই অঙ্গীকারনামাটি শনিবার স্বাক্ষরিত হবে।

বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তিতে প্রধানমন্ত্রীর প্রতিনিধি হিসেবে মন্ত্রিপরিষদ সচিব এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রীর প্রতিনিধি হিসেবে সিনিয়র সচিব ও সচিবরা সই করবেন। সিনিয়র সচিব ও সচিবরা চুক্তি সইয়ের পর তা প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করবেন বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

শেখ মুজিবুর রহমান বলেন, ‘সরকারের ঘোষিত নীতি ও পরিকল্পিত কর্মসূচির যথাযথ বাস্তবায়নের মাধ্যমে ঈপ্সিত লক্ষ্য অর্জন নিশ্চিতের জন্য প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সঙ্গে ২০১৪-১৫ অর্থবছর থেকে সব মন্ত্রণালয় বা বিভাগের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়ে আসছে।মন্ত্রিপরিষদ  বিভাগের সমন্বয় ও সংস্কার ইউনিট বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি প্রণয়ন ও বাস্তবায়নে সব মন্ত্রণালয় বা বিভাগকে সহযোগিতা প্রদান করে যাচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির বিশেষত্ব হলো নির্বাচনী ইশতেহার ২০১৮, ৭ম পঞ্চবার্ষিক কর্মপরিকল্পনাসহ রূপকল্প ২০২১, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) ২০৩০, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত প্রকল্প, পিপিপি-এর আওতায় গৃহীত প্রকল্প এবং সরকারের সার্বিক উন্নয়ন-অগ্রাধিকারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে সব মন্ত্রণালয় বা বিভাগ ও তাদের আওতাধীন অধিদফতর বা সংস্থা এবং মাঠপর্যায়ের কার্যালয় সমঝোতা দলিল সম্পাদন করবে।’

আগামী ২০২০-২১ অর্থবছরে মাঠপর্যায়ের কার্যালয় পর্যন্ত বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি অনলাইনে দাখিল ও যথাযথ পরিবীক্ষণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে বলেও জানান ভারপ্রাপ্ত সচিব।

২০১৭-১৮ অর্থবছরে মন্ত্রণালয়গুলোর এপিএ বাস্তবায়নের গড় হার ৮৭ শতাংশ বলেও জানান শেখ মুজিবুর রহমান।

তিনি আরও জানান, এবার এপিএ বাস্তবায়ন হারে এগিয়ে থাকার জন্য ১০টি মন্ত্রণালয় বা বিভাগকে পুরস্কৃত করা হবে।