বছরে বিকাশে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করেন প্রায় ১ কোটি ১৭ লাখ মানুষ

সান বিডি ডেস্ক || প্রকাশ: ২০১৯-০৮-০৭ ১৩:৩৫:১০ || আপডেট: ২০১৯-০৮-০৭ ১৩:৩৫:১০

সময় নষ্ট করে লাইনে দাঁড়িয়ে না থেকে সাশ্রয়ে নিজের সুবিধাজনক জায়গা থেকে সারাদেশের লাখ লাখ গ্রাহক এখন বিকাশে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করছেন।

বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের জন্য ২০১৮ সালের জুলাই মাসে বিকাশের এই কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়। তখন থেকে চলতি বছরের জুন পর্যন্ত এক বছরে বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থাগুলোর গ্রাহকগণ ১ কোটি ১৬ লাখ ৮২ হাজার বিদ্যুৎ বিল বিকাশের মাধ্যমে পরিশোধ করেছেন। টাকার অঙ্কে যার পরিমাণ ছিল সাড়ে ছয়শ কোটি টাকারও বেশি।

নোয়াখালী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সুধারাম-১ এর এক কর্মকর্তা জানান, তাদের এই কেন্দ্রের ৩০ শতাংশ গ্রাহক এখন বিকাশের মাধ্যমে বিল পরিশোধ করছেন।

তিনি আরও বলেন, আমাদের এই সমিতির আওতাভুক্ত অনেক চর এলাকার গ্রাহক আছেন, তাদের জন্য বিকাশে বিল পরিশোধ যেন আশীর্বাদ। সময় এবং কষ্ট করে দূর-দূরান্ত থেকে এসে বিল দেওয়ার ভোগান্তি যেমন দূর হয়েছে তেমনি যাতায়াত খরচও সাশ্রয় হয়েছে।

বর্তমানে পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড, উত্তরাঞ্চলের নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড (নেসকো) এবং ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেডের (ডেসকো) গ্রাহকরা বিকাশের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করার সেবা পাচ্ছেন।

নিজের বিকাশ অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করেই গ্রাহক তার বিলের পরিমাণ চেক করতে পারেন এবং বিল পরিশোধ করতে পারেন। বিকাশ অ্যাপ অথবা *২৪৭# ডায়াল করে এই বিল পরিশোধ করা যায়। একজন গ্রাহক মাসে সর্বোচ্চ দুইটি বিল বিকাশের মাধ্যমে পরিশোধ করতে পারেন।

রংপুরের মিঠাপুকুর এলাকার নেসকোর এক গ্রাহক জানান, নিজের বাড়ির সব ধরনের ইউটিলিটি সেবার বিল পরিশোধ তিনি নিজেই করেন। এতদিন ব্যাংকে গিয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে তার তিনতলা বাড়ির সবগুলো বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করতে হতো। কখনো কখনো আবার ২ থেকে ৩ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়াতে হতো। এখন এসব ঝামেলা এড়াতে তিনি বিকাশে বিল পরিশোধ করছেন। এতে তার সময় যেমন বাঁচে তেমনি খরচও কমে।

দিনাজপুরের পার্বতীপুর এলাকার এক গ্রাহক জানান, একটা সময় বছরের পর বছর অপেক্ষা করে বিদ্যুতের সংযোগ পাওয়া যেত না। এখন ঘরে বসেই বিদ্যুৎ সংযোগ মিলছে। আর সেই বিদ্যুতের মতো জরুরি সেবার বিল মোবাইলের মাধ্যমে দিতে পারায় সত্যিকার অর্থেই জীবন অনেক সহজ হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে বিকাশের চিফ কর্মাশিয়াল অফিসার মিজানুর রশীদ বলেন, বিদুৎ বিল দেওয়ার সঙ্গে বিড়ম্বনা শব্দটির কোনো যোগাযোগ থাকবে না, সে লক্ষ্যে কাজ করে চলেছে বিকাশ। দেশের সবগুলো বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানির আওতাভুক্ত গ্রাহক যেন তাদের ঘরে বসেই বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের সুযোগ পান সেদিকেই এগিয়ে চলেছি আমরা। ডিজিটাল বাংলাদেশের আর্শীবাদ ব্যবহার করে একটি অ্যাপেই গ্রাহকের সব ধরনের বিল পেমেন্টের সুযোগ তৈরি করে তাদের জীবনকে আরও সহজতর করাই আমাদের উদ্দেশ্য।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ