পুঁজিবাজার উন্নয়নে করা হবে বিশেষ কমিটি: অর্থমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক || প্রকাশ: ২০১৯-০৯-১৬ ১৬:৪৪:৪৩ || আপডেট: ২০১৯-০৯-১৬ ১৭:০৭:২২

পুজিবাজার হলো যেকোন দেশের মূল এলাকা। পুঁজিবাজার বাদ দিয়ে অর্থনীতি উন্নয়ন সাধন করা কঠিন। তাই পুঁজিবাজারের উন্নয়নের জন্য বিশেষ কমিটি গঠন করা হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯) রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে ‘পুঁজিবাজার উন্নয়নের লক্ষ্যে অংশীজনদের সাথে সমতবিনিময়’ সভায় এসব কথা বলেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

তিনি আরো বলেন, যারা ভাল কোম্পানির বিষয়ে পরামর্শ দিবে এবং অডিট পরিচালনা করবে ও কোম্পানির ন্যায্য মূল্য দেয়া হয় কিনা তার তদারকি করা হবে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা আজ আমাদের পুঁজিবাজার নিয়ে আলোচনা করব। আলোচনা করার জন্য আমাদের সব বিশেষজ্ঞ, যারা পুঁজিবাজারের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট, পুঁজিবাজার নিয়ে চিন্তা করেন, তাদের আমরা আমন্ত্রণ জানিয়েছি। এই আলোচনা থেকে আমরা কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করব। পরবর্তীতে আমরা আরেকটি সভা করব, সেখানে এর অগ্রগতি নিয়ে আলোচনা করব। আমাদের মার্কেট ফান্ডামেন্টাল অনেক বেশি শক্তিশালী, পুঁজিবাজারকেও আমরা সেখানে দেখতে চাই।’

আজ সবাইকে আশ্বস্ত করব যে, আমরা পুঁজিবাজারকে সুশাসন দেব এবং গভর্ন্যান্সে ভালো করব। যেসব ত্রুটি-বিচ্যুতি আছে, মিসম্যাচ আছে, সেগুলো আমরা টেককেয়ার করব। এভাবে পুঁজিবাজারকে আমাদের অর্থনৈতিক এলাকায় শক্তিশালীভাবে রূপান্তরিত হবে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, আমরা বাজারে আইপিও আনবো। আইপিওগুলো যাতে যথাযথ ভেলুতে আসতে পারে, সেদিকেও আমরা নজর দিবো। বাজারের সাথে দেশে সকল মানুষ যারা বাজারকে নিয়ে চিন্তা করে তাদেরকে আমরা বাজারে আনবো।

তিনি বলেন, আমরা সবার সহযোগিতা এবং সহায়তায় আমাদের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে চাই। অর্থনীতির মৌলিক এলাকা হচ্ছে শেয়ারবাজার। সুতরাং এই মৌলিকএলাকাকে আমরা কখনো অবহেলা করতে পারি না। আমাদের সরকার অনেক চেষ্টা করেছে। প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে অনেকবার বক্তব্য রেখেছেন। তিনি জানেন এই বাজারের সাথে আমাদের মধ্যম ও নিম্ন আয়ের মানুষেরা জড়িত আছেন। সুতারাং সবার জন্য এই শেয়ারবাজার। এই কারনে শেয়ারবাজার সবসময় আমাদের বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষন করে। শেয়ারবাজারকে নিয়ে আমরা সব সময় সতর্ক অবস্থানে থাকি। যাতে করে শেয়ারবাজারে যারা ব্যবসা করতে আসে তারা যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয়।

মুস্তফা কামাল বলেন, সভায় আমরা নিজেদের মধ্যে বাজারের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেছি। এখন আরও কিছু কাজ বাকি আছে। এগুলো পর্যালোচনা করতে হবে। এরপরে শেয়ারবাজারের জন্য করণীয় কাজগুলো দ্রুত করা হবে। আলোচনা সভায় সবাই একমত হয়েছে যে, শেয়ারবাজারের উন্নয়ন ছাড়া আমাদের সামনে আরো কোনো চিন্তা নাই। শেয়ারবাজারের উন্নয়নের জন্য সরকার যেটুকু সহায়তা দিতে পারে, তা দেবে। সরকারের বিভিন্ন ডিভিশনের সবাই ঐক্যমতে পৌছেছি যে, আমরা আমাদের সহায়তা অব্যাহত রাখবো।

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ও ডেপুটি গভর্নর, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান, বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের (আইডিআরএ) চেয়ারম্যান, ফিন্যান্সিয়াল রিপোর্টিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের চেয়ারম্যান, ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশের (আইসিবি) চেয়ারম্যান এবং সাধারণ বীমা কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান, সোনালী, অগ্রণী, জনতা, রূপালী ও আইসিবি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) চেয়ারম্যান ও পরিচালনা পর্ষদের সদস্যরা বৈঠকে উপস্থিত রয়েছেন।
সানবিডি/ঢাকা/জিইউ/এসএস

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ