চেম্বার জজে এএমসি এলআর গ্লোবালকে পরিবর্তনের আদেশ

পুঁজিবাজার ডেস্ক || প্রকাশ: ২০১৯-১২-০১ ১৬:০৭:৪৬ || আপডেট: ২০১৯-১২-০১ ১৬:২৬:০৩

পুঁজিবাজারের তালিকাভুক্ত ডিবিএইচ ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড ও গ্রীণ ডেল্টা মিউচ্যুয়াল ফান্ডের অ্যাসেট ম্যানেজার প্রতিষ্ঠান এলআর গ্লোবাল বাংলাদেশকে পরিবর্তনে আদেশ দিয়েছে চেম্বার জজ।

ফান্ড দুটির ইউনিটহোল্ডারদের আবেদনের প্রেক্ষিকে রোববার এ আদেশ দেওয়া হয়। আগামী বৃহস্পতিবার পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে বিষয়টির শুনানীর দিন ধার্য করা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ইউনিটহোল্ডারদের পক্ষের আইনজীবী ব্যারিষ্টার মোস্তাফিজুর রহমান।

তিনি জানান, ফান্ড দুটির ইউনিটহোল্ডারদের আবেদন করেন তারা অ্যাসেট ম্যানেজার প্রতিষ্ঠান এলআর গ্লোবাল বাংলাদেশকে পরিবর্তন করতে চায়। রুল ৩১ (২) অনুযায়ী তাদের এ সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার আছে। এ বিষয়টির কোন ফলাফল না হওয়ার আগেই এলআর গ্লোবাল একটি মামলা করে যে তাদের পরিবর্তন করা অবৈধ। তারা এর একটি ইনজাংশন প্রার্থনা করে। মামলা নিস্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত তাদের যেন সরানো না হয়। এর প্রেক্ষিতে আদালত আগামী মাসের ৮ তারিখ পর্যন্ত আদালত ইনজাংশনের সময় দেয়। কিন্তু এই আদেশ প্রত্যাহারের আবেদন করে সিকিউরিটিজ এক্সচেঞ্জ কমিশন । যা আজ প্রত্যাহার করা হয়েছে।

২৯ অক্টোবর ইউনিটহোল্ডাররা ট্রাস্টি প্রতিষ্ঠান বিজিআইসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও ট্রাস্টি সদস্য আহমেদ সাইফুদ্দিন চৌধুরীর বরাবর এই চিঠি দিয়েছেন। বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (মিউচুয়াল ফান্ড) রুলস ২০০১-এর ৩১ বিধি অনুসারে ফান্ড দুটির ইউনিটহোল্ডাররা সম্পদ ব্যবস্থাপক পরিবর্তন করতে চায় তারা।

বিধি ৩১(২) অনুসারে, ট্রাস্টি কমিশনের পূর্বানুমতি নিয়ে এবং মিউচুয়াল ফান্ডের স্বার্থে অথবা স্কিমের দুই-তৃতীয়াংশ ইউনিট মালিক দাবি করলে কোনো সম্পদ ব্যবস্থাপকের নিয়োগ বাতিল করতে পারবে এবং বাতিলের বিষয় কমিশনকে বাতিলের তিন কার্যদিবসের মধ্যে লিখিতভাবে অবহিত করবে। বিধি ৩১(৩) এ বলা হয়েছে, কমিশন সম্পদ ব্যবস্থাপককে ব্যক্তিগত শুনানির সুযোগ দেয়া সাপেক্ষে জনস্বার্থে কোনো সম্পদ ব্যবস্থাপকের কিংবা এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার নিয়োগ বাতিল করতে পারবে। আর বিধি ৩১(৪) এ বলা হয়েছে, সম্পদ ব্যবস্থাপক নিয়োগের ক্ষেত্রে যেকোনো পরিবর্তন কমিশনের পূর্বানুমোদনক্রমে হতে হবে।

এই বিধি অনুযায়ী, যেকোন ফান্ডের দুই-তৃতীয়াংশ বা কমপক্ষে ৬৬.৬৭ শতাংশ ইউনিটহোল্ডার অ্যাসেট ম্যানেজার প্রতিষ্ঠান পরিবর্তনের জন্য আবেদন করতে পারেন। এজন্য ট্রাস্টির কাছে আবেদন করতে হয়। যা পরবর্তীতে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) অনুমোদনক্রম ট্রাস্টি বাস্তবায়ন করে। আর এই আইনের ধারা অনুযায়িই ডিবিএইচ ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড ও গ্রীণ ডেল্টা মিউচ্যুয়াল ফান্ডের অ্যাসেট ম্যানেজার প্রতিষ্ঠান পরিবর্তনে ট্রাস্টিকে চিঠি দিয়েছে ইউনিটহোল্ডাররা। তারা এলআর গ্লোবালের পরিবর্তে আইডিএলসি অ্যাসেট ম্যানেজার প্রতিষ্ঠানকে চায়।

ডিবিএইচ ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডটির অ্যাসেট ম্যানেজার প্রতিষ্ঠান পরিবর্তনে ৭২.৫০ শতাংশ ইউনিটধারী আবেদন করেছেন। এই ইউনিটধারী প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে- ব্র্যাক, ব্র্যাক ব্যাংক, ডেল্টা ব্র্যাক হাউজিং, আইডিএলসি ইনভেষ্টমেন্টস, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক, ভিআইপিবি অ্যাসেট ম্যানেজম্যান্ট, আইডিএলসি অ্যাসেট ম্যানেজম্যান্ট, ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, এজ অ্যাসেট ম্যানেজম্যান্ট ও এশিয়ান টাইগার ক্যাপিটাল পার্টনারস অ্যাসেট ম্যানেজম্যান্ট।

এদিকে গ্রীণ ডেল্টা মিউচ্যুয়াল ফান্ডের অ্যাসেট ম্যানেজার প্রতিষ্ঠান পরিবর্তনে ৭০.১২ শতাংশ ইউনিটধারী আবেদন করেছেন। এই ইউনিটধারী প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে- ব্র্যাক ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক, ইস্টার্ন ব্যাংক, ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, ডেল্টা ব্র্যাক হাউজিং, গ্রীণ ডেল্টা ইন্স্যুরেন্স, আইডিএলসি ইনভেষ্টমেন্টস, আইডিএলসি অ্যাসেট ম্যানেজম্যান্ট, ভিআইপিবি অ্যাসেট ম্যানেজম্যান্ট, এজ অ্যাসেট ম্যানেজম্যান্ট, ভ্যানগার্ড অ্যাসেট ম্যানেজম্যান্ট, একজন বিদেশী বিনিয়োগকারী ও অগ্রনী ইক্যুইটি।

সানবিডি/এসকেএস

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ