হেডফোনে গান শুনছিল কিশোরী, বাঘ এসে নিয়ে গেল জঙ্গলে

সান বিডি ডেস্ক || প্রকাশ: ২০২০-০৬-০৮ ১৭:৫৯:০২ || আপডেট: ২০২০-০৬-০৮ ১৭:৫৯:০২

কানে হেডফোন দিয়ে গান শুনছিল ভারতের উত্তরাখণ্ডের নৈনিতালের রামনগর এলাকার কিশোরী মমতা। এ কারণে চিতাবাঘ আসার শব্দ শুনতে পায়নি সে। তাই আচমকা আক্রমণ করে ওই কিশোরীকে জঙ্গলে টেনে নিয়ে যায় চিতাবাঘ।

গত শনিবার চিতাবাঘের থাবায় মমতার মৃত্যু হয়েছে বলে সংবাদ প্রকাশ করেছে হিন্দুস্থান টাইমস।

জানা গেছে, বেইলপাড়ায় ফরেস্ট রেঞ্জে নিজের বাড়ির কাছেই একটি জলাশয়ের তীরে বসে কানে হেডফোন দিয়ে গান শুনছিল অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী মমতা। হঠাৎ তার উপর হামলা চালায় একটি বিরাট চিতাবাঘ। ওই কিশোরীকে টানতে টানতে জঙ্গলের ভেতরে নিয়ে যায় বাঘটি।

গতকাল রোববার বন অধিদপ্তরে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, একটি ঝোপের ধার থেকে মেয়েটির দেহাংশ উদ্ধার করা হয়েছে।

বেইলপাড়ার ফরেস্ট রেঞ্জের রেঞ্জ অফিসার সন্তোষ পন্ত বলেন, ‘গ্রামবাসীদের থেকে খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে ছুটে যাই। সেখান থেকে একটি হেডফোন আর একটি চিরুনি উদ্ধার হয়েছে। মেয়েটির কানে হেডফোন ছিল, তাই হয়তো সে চিতাবাঘ এসেছে তা টের পায়নি।’

এ ঘটনা নিয়ে ওই এলাকায় গত এক মাসে চিতাবাঘের হানায় আটজনের মৃত্যু হয়েছে। চিতাবাঘ ধরতে দুটি খাঁচা ও সাতটি ক্যামেরা বসিয়েছে বন বিভাগ।

কর্মকর্তা পন্ত জানিয়েছেন, ট্র্যাপ ক্যামেরায় চিতাবাঘটি দেখা গিয়েছিল। মেয়েটিকে যেখানে মারা হয়, সেখানে সে এসেছিল। এরপর সে খাঁচার দিকেও এগোচ্ছিল। কিন্তু গ্রামবাসীরা চিত্কার শুরু করায় সে আবার অন্যদিকে পালিয়ে যায়।

মৃত কিশোরীর দেহ ময়নাতদন্তের পর তার পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। তার পরিবারকে তিন লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে বন দপ্তর। ইতোমধ্যে ৯০ হাজার টাকার চেক তাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।
সানবিডি/ঢাকা/এসএস

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ