ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের সব পাওনা পরিশোধ করবে ডিএসই

সান বিডি ডেস্ক || প্রকাশ: ২০২০-০৬-২৮ ১৮:০২:৪৯ || আপডেট: ২০২০-০৬-২৮ ১৯:৫৫:০৮

গ্রাহকদের টাকা নিয়ে পালিয়ে যাওয়া ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের সব পাওয়া পরিশোধ করবে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে এখন পর্যন্ত যে হিসাব তাতে গ্রাহকদের টাকা পরিশোধ করা যাবে। কোন কারণে এই টাকা দিয়ে সম্ভব না হলে সিডিবিএলে থাকা শেয়ার বিক্রি করে তা পরিশোধ করবে ডিএসই।

আজ এক অনলাইনে জরুরী সংবাদ সম্মেলনে এ কখা বলেন ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী সানাউল হক।

তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠানটিতে প্রায় ২১ হাজার বিনিয়োগকারীর ৮২ কোটি টাকার শেয়ার ও ইউনিট ফ্রিজ করা হয়েছে। যা বিনিয়োগকারীরা লিঙ্ক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে অন্য যেকোন ব্রোকারেজ হাউজে লেনদেন করতে পারবে। তবে ফ্রিজ করা শেয়ারের বাহিরে যদি পাওনা থাকে, তাহলে ট্রেক বিক্রি করে তা মেটানো হবে।

ডিএসইর এই এমডি বলেন, ক্রেস্ট সিকিউরিটিজ একটি পুরাতন প্রতিষ্ঠান। এ হাউজটির আর্থিক হিসাব খারাপ ছিল না। এমনকি মে মাসেও সমন্বিত আর্থিক হিসাবে ঘাটতি ছিল না। তারপরেও অনাকাঙ্খিতভাবে একটি দূর্ঘটনা ঘটে গেছে। যা সমাধানে ডিএসই দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহন করেছে। ডিএসই থেকে হাউজটির মালিকরা যেনো বিদেশে যেতে না পারে, সেলক্ষে পল্টন থানায় অভিযোগ করা হয় এবং মালিকদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করার জন্য পদক্ষেপ নিতে বাংলাদেশ ব্যাংকে অনুরোধ করে। এখন তাদের ১০টির বেশি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করা হয়েছে।

হাউজটিতে বিনিয়োগকারীদের নিট পাওনার পরিমাণ জানতে ওই হাউজের বিনিয়োগকারীদের সবাইকে তাদের তথ্য ডিএসইকে জানানোর জন্য অনুরোধ করেছেন ডিএসইর এমডি। এক্ষেত্রে তারা যত দ্রুত জানাবে, তত দ্রুত হাউজটিতে বিনিয়োগকারীদের দায়-দেনা জানা যাবে। তারা ডিএসইকে মেইলে বা সরাসরি উপস্থিত হয়ে তাদের পাওনা সর্ম্পক্যে জানাতে পারবেন।

পাওনা টাকা নিয়ে ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের বিনিয়োগকারীদের হতাশ না হওয়ার অনুরোধ করেছেন কাজী সানাউল হক। তিনি বলেন, ট্রেক ও সম্পদ বিক্রি করে পাওনা সমন্বয় করা হবে। এলক্ষ্যে দ্রুত কাজ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ওই হাউজের বিনিয়োগকারীরা যখন চেক ডিজঅনার পাচ্ছিল, তখন জানালে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে পারতাম। তাই ভবিষ্যতে যেকোন হাউজের বিনিয়োগকারীদেরকে এ জাতীয় সমস্যার হলে, তা দ্রুত ডিএসইকে জানানোর অনুরোধ করেছেন।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ডিএসইর এমডি বলেন, আমার কাছে আজকে একটি মেইল এসেছে। তবে সেটা ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের কিনা, তা নিশ্চিত না। মেইলে ডিএসইর কাছে আর্থিক এবং আইনগত সহযোগিতা চেয়েছে ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের মালিকপক্ষ। একইসঙ্গে পাওনাদাররা বিভিন্ন হূমকি দিচ্ছে বলে জানিয়েছে। তবে এই মুহূর্তে ডিএসইর কিছু করার নেই। তাদেরকে পুলিশের কাছে আত্মসমর্পন করতে হবে।

পুঁজিবাজারের সব খবর পেতে জয়েন করুন

ক্যাপিটাল নিউজক্যাপিটাল ভিউজস্টক নিউজ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ