প্রজেক্ট আগামীর প্রতিযোগিতায় সেরাদের তালিকায় নোবিপ্রবির ৬ শিক্ষার্থী

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি :খাদিজা খানম || প্রকাশ: ২০২০-০৭-২২ ২২:২০:৪৩ || আপডেট: ২০২০-০৭-২২ ২২:২০:৪৩

প্রজেক্ট আগামীর প্রতিযোগিতায় সেরাদের তালিকায় স্থান করে নিয়েছে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) শিক্ষার্থী। “এক টাকায় শিক্ষা”র ট্যালেন্ট ফেস্ট আয়োজন করে  প্রজেক্ট আগামী। প্রথম পর্বের প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপসহ সেরা ৫ এর মধ্যে থাকার গৌরব অর্জন করেছেন প্রতিষ্ঠানটির ৬ শিক্ষার্থী।

জানা গেছে, গত ২২ জুন এই প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছিলো। চলে ৯ জুলাই পর্যন্ত। প্রতিযোগিতায় সারাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা গ্রুপ অনুযায়ী প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। যেখানে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষার্থীরা জুনিয়র এবং স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা সিনিয়র গ্রুপে অংশ নেয়। শিক্ষার্থীরা কবিতা আবৃত্তি (অডিও /ভিডিও), আর্ট এন্ড ক্রাফট, বুক রিভিউ, আমার ক্যাম্পাস ও কোয়ারেন্টাইনের দিনগুলি মোট পাঁচটি ক্যাটাগরিতে প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করে।

পরে গত ২০ জুলাই প্রতিযোগিতার ফলাফল প্রকাশ করা হয়। এতে সিনিয়র গ্রুপে নোবিপ্রবির ৬ শিক্ষার্থী সেরাদের মধ্যে স্থান করে নেয়। তারা হলেন, কোয়ারেন্টাইনের দিনগুলো ক্যাটাগরিতে চ্যাম্পিয়ন দিগন্ত কুমার, কবিতা আবৃত্তি ক্যাটাগরিতে ১ম রানার্স আপ ধ্রুবক সরকার, বুক রিভিউ ক্যাটাগরিতে ২য় রানার্স আপ ফাহিম রহমান খান।

এছাড়া বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে যারা সেরা ৫ এ অবস্থান করেছেন তারা হলেন, ফারজানা আক্তার ফাহিমা কবিতা আবৃত্তিতে ৫ম এবং আকাশ বণিক ও জোবায়ের আহমেদ ইমাজ আর্ট এন্ড ক্রাফট ক্যাটাগরিতে যথাক্রমে ৪র্থ এবং ৫ম স্থান অর্জন করেন। প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের বিশেষ সার্টিফিকেট ও আকর্ষণীয় পুরস্কার দেওয়া হবে। এছাড়াও দুটি সারপ্রাইজ গিফট এবং অংশগ্রহণ কারী সবাইকে সার্টিফিকেট দেয়ার কথা জানিয়েছে প্রজেক্ট আগামী।

প্রেজেক্ট আগামীর সবচেয়ে গুরত্বপূর্ণ কাজ হলো এক টাকায় শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দেয়া। বর্তমান মহামারী পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের আনন্দদায়ক পরিবেশ সৃষ্টি করার একটি উদ্যৌগ হিসেবে তারা প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। প্রেজেক্ট আগামী জানায়, এটি মূলত “এক টাকায় শিক্ষা” র একটি উদ্যোগ। এই প্রজেক্টের মাধ্যমে আমরা শিক্ষার পাশাপাশি সংস্কৃতিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে আগ্রহী মানুষদের তাদের প্রতিভা বিকাশের সুযোগ করে দিতে চাই।

প্রতিযোগিতার বিচারক নোবিপ্রবি শিক্ষক শুভেন্দু সাহা বলেন, এক টাকায় শিক্ষার প্রজেক্ট আগামী কর্তৃক আয়োজিত প্রতিযোগিতায় শিক্ষার্থীদের স্বতস্ফূর্ত অংশগ্রহণ সত্যি প্রশংসনীয়। এটা দেখে ভালো লেগেছে যে শিক্ষার্থীরা অলস সময় না কাটিয়ে সময়টাকে বিভিন্নভাবে কাজে লাগাচ্ছে । আমি ২৮ জন শিক্ষার্থীর কাজ মূল্যায়নের দায়িত্বে ছিলাম। তাদের অনেকের রাইটিং স্কিল, আর্টের স্কিল অনেক ভালো ছিলো যা আমাকে মুগ্ধ করেছে।

তিনি আরও বলেন, শুধু যারা প্রথম,দ্বিতীয় ও তৃতীয় হয়েছে তাদেরই নয়। এছাড়া আরও অনেকের কাজ অসম্ভব রকমের সুন্দর ছিলো। এই কোয়ারেন্টাইনে আমারও ঝাড়া পাত-পা, সময়টাকে উপভোগ করেছি, কিছু জিনিস শিখেছিও বটে। ‘এক টাকায় শিক্ষা’ মানুষের জন্য ভালো কাজ করে যাচ্ছে। অনেক অনেক শুভ কামনা রইল এক টাকায় শিক্ষা ও প্রজেক্ট আগামীর জন্য।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ