ঢাকা, , শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮

চড়া দামে কিনতে হবে নতুন আইফোন এক্সএস

সান বিডি ডেস্ক || প্রকাশ: ২০১৮-০৯-০৮ ১০:৫২:১২ || আপডেট: ২০১৮-০৯-০৮ ১০:৫২:১২

নতুন আইফোন কিনবেন বলে ভেবে রেখেছেন? এই নতুন আইফোন কিনতে কিন্তু বাড়তি অর্থ খরচ করতে হবে। এবার আইফোনের দাম এক হাজার ডলার অতিক্রম করবে বলেই বাজার বিশ্লেষকেরা পূর্বাভাস দিচ্ছেন। নতুন আইফোন ঘিরে অবশ্য আগে থেকেই অনেক গুঞ্জন রয়েছে। এবারে দাম নিয়েও শুরু হয়েছে আলোচনা। ব্যাংক অব আমেরিকার বিশ্লেষকেরা বলছেন, আইফোনপ্রেমীদের প্রত্যাশার চেয়ে দাম কিছুটা বেশি হবে।

বিশ্লেষক ওয়াসমি মোহনের ভাষ্য, মানুষের মনে আইফোনের দাম নিয়ে যে ধারণা রয়েছে, এবারের আইফোনের দাম তার চেয়ে বেশি হবে। সিএনবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

আইফোনের চড়া দামের এ গুঞ্জন শুনে বিনিয়োগকারীরা অবশ্য কিছুটা ভড়কে গেছেন। তাঁরা আশা করছেন, আইফোনের দাম সহনশীল হলে ক্রেতাদের আকর্ষণ করবে বেশি।

এ বছর তিনটি মডেলের নতুন আইফোন আসতে পারে বলে বাজারে গুঞ্জন রয়েছে। ব্যাংক অব আমেরিকার বিশ্লেষক ওয়াসমি মোহনের পূর্বাভাস অনুযায়ী, আইফোন এক্সএসের সাড়ে ছয় ইঞ্চি ওএলইডি মডেলটির দাম হবে ১ হাজার ৪৯ মার্কিন ডলার। এটিই হবে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় মাপের আইফোন। ফোনটির মাধ্যমে অ্যাপল তাদের এক হাজার ডলার দামের সীমা ছাড়িয়ে যাবে। ৫ দশমিক ৮ ইঞ্চি মাপের ওএলইডি ডিসপ্লের আরেকটি মডেলের দাম হবে ৯৯৯ মার্কিন ডলার। তবে সবচেয়ে আলোচিত ৬ দশমিক ১ ইঞ্চি মাপের এলসিডি স্ক্রিনের আইফোন এক্সএসের দাম শুরু হতে পারে ৭৯৯ মার্কিন ডলার থেকে। সব কটি ডিভাইস মিলিয়ে ২০১৯ সালের আইফোনের গড় দাম ৮১৫ মার্কিন ডলারে দাঁড়াবে বলে আশা করছে অ্যাপল।

এদিকে বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান ট্রেন্ডফোর্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, আইফোনের এলসিডি সংস্করণটির দাম বড়জোর ৬৯৯ মার্কিন ডলার হতে পারে। তবে বাড়তি ফিচারযুক্ত ফোনটির মডেলের দাম ৭৪৯ মার্কিন ডলার পর্যন্ত যেতে পারে। এ মডেলটি সাশ্রয়ী হবে বলে জানিয়েছিল ট্রেন্ডফোর্স। বাজার বিশ্লেষক প্রতিষ্ঠানটির পূর্বাভাস অনুযায়ী, ওএলইডি সংস্করণগুলোর দাম ৮৯৯ থেকে ৯৪৯ মার্কিন ডলারে মধ্যে থাকবে। এর আগে বিশ্লেষক মিং শি কুয়ো পূর্বাভাস দিয়েছিলেন, এলসিডি মডেলটির দাম ৬০০ থেকে ৭০০ ডলার হবে। অনেক ক্ষেত্রে কুয়োর পূর্বাভাস ফলে যেতে দেখা গেছে।

আইফোনের তিনটি সংস্করণের মধ্যে সবচেয়ে আলোচনায় এসেছে ৬ দশমিক ১ ইঞ্চি মাপের এলসিডি মডেলটি। সম্প্রতি ফোনটি ঘিরে নানা তথ্য ফাঁস হতে দেখা যায়। ধারণা করা হচ্ছে, ফোনটি আইফোন ৫ সির মতো হতে পারে।

অ্যাপলের পক্ষ থেকে অবশ্য গুঞ্জন নিয়ে কখনো আনুষ্ঠানিক মন্তব্য করা হয় না।

সংবাদমাধ্যম সিএনবিসির খবরে বলা হয়েছে, ১২ সেপ্টেম্বর নতুন আইফোনের ঘোষণা দিতে পারে অ্যাপল। প্রতিবছরই নিজেদের নিত্যনতুন পণ্য নিয়ে একটি পরিচিতিমূলক অনুষ্ঠান করে থাকে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান অ্যাপল। ১২ সেপ্টেম্বর হবে সেই অনুষ্ঠান। এ বিষয়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের কাছে আমন্ত্রণও পৌঁছে গেছে গত বৃহস্পতিবার। ধারণা করা হচ্ছে, নতুন মডেলের আইফোন এই অনুষ্ঠানেই উন্মোচন করা হবে। আসবে নতুন আইপ্যাড ও অ্যাপল ওয়াচও।

অ্যাপল জানিয়েছে, আগামী ১২ সেপ্টেম্বর স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় অনুষ্ঠানটি শুরু হবে।

অ্যাপলের এ বার্ষিক অনুষ্ঠান অত্যন্ত আকর্ষণীয় হয়ে থাকে। কারণ, পুরো অনুষ্ঠান ঠাসা থাকে নতুন নতুন পণ্য ও হালনাগাদ প্রযুক্তির চমকে। বলা হচ্ছে, ১২ সেপ্টেম্বরের অনুষ্ঠানে নতুন তিনটি আইফোন, একটি নতুন মডেলের ম্যাকবুক এয়ার এবং ম্যাক মিনির হালনাগাদ সংস্করণ উন্মোচিত হবে। দেখা যাবে নতুন অ্যাপল ওয়াচও।

গত বছরে ১৫ সেপ্টেম্বর নতুন আইফোনের ঘোষণা দিয়েছিল অ্যাপল আর ২২ সেপ্টেম্বর থেকে বাজারে সরবরাহ শুরু করেছিল। নতুন আইফোন হিসেবে বাজারে এসেছিল আইফোন এক্স।

এবারে অবশ্য নতুন আইফোনের নাম নিয়েও রয়েছে নানা গুঞ্জন। একে আইফোন এক্সএস বলা হলেও এর ভিন্ন নামের গুঞ্জনও শোনা গেছে।

এনগ্যাজেট বলছে, নতুন তিনটি আইফোন হতে পারে আইফোন ৯, আইফোন ১১ ও আইফোন ১১ প্লাস।

গুঞ্জন আছে, নতুন আইপ্যাডের ডিসপ্লে তুলনামূলক বড় হবে। আর অ্যাপল ওয়াচের নতুন মডেলের স্ক্রিন বড় হওয়ার পাশাপাশি, বেজেল হবে ছোট। দ্য ভার্জের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নতুন ম্যাকবুক এয়ার আগের চেয়ে সাশ্রয়ী হবে, থাকতে পারে রেটিনা ডিসপ্লে।

আর্কাইভ