পুলিশ হেফাজতে মাস্তুল লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক

আপডেট: ২০১৫-১১-০১ ১২:০৩:৫২


Borhan Mahmudকবি, সাংবাদিক ও মাস্তুল লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বোরহান (বোরহান মাহমুদ) সহ মোট চারজনকে গতকাল রাত ৮ টায় মিরপুরের বাউনিবাধ এলাকা হতে পল্লবী থানা পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

তাদের বিরুদ্ধে কোনো ধরণের অভিযোগ না থাকা সত্ত্বেও তাদেরকে গতকাল (শনিবার) সারারাত পুলিশি হেফাজতে রাখা হয়। প্রত্যক্ষদর্শীর বক্তব্য অনুযায়ী আজ (রোববার) ভোর আনুমানিক ৫ টায় বোরহান মাহমুদকে থানার বাইরে নিয়ে যাওয়া হয়। যে গাড়িতে তাকে বহন করা হয় সেটির নম্বর ঢাকা মেট্রো গ ১৪৬১১৩, এবং আরেকটি গাড়িতে সাদা পোষাকধারী পুলিশ বহনকারী গাড়ি ছিলো যেটির নম্বর- ঢাকা মেট্রো চ ১৩৫১২১।

এর আগে, গতকাল রাতে বোরহান মাহমুদের বাসায় তল্লাশী চালিয়ে আব্দুর রহমান (৩৫) নামে একজন সৌদি প্রবাসীকেও পুলিশী হেফাজতে নেওয়া হয়।

জানা যায়, গতকাল রাত ৮ টার দিকে দু’জন বিনিয়োগকারী সহ বোরহান মাহমুদ মিরপুরের বাউনিয়াবাধ এলাকায় জমি দেখতে যান। সেখান থেকে পুলিশ সন্দেহভাজন হিসেবে তাদেরকে (গাড়িচালক সহ মোট চারজন) পল্লবী থানায় নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে পল্লবী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মইনুলের সঙ্গে কথা বলা হলে তিনি জানান, বোরহান মাহমুদের নামে এখনো কোনো মামলা দেওয়া হয়নি, তাকে শুধুমাত্র সন্দেহভাজন হিসেবে থানায় আনা হয়েছে।

কোনো ধরণের অভিযোগ না মিললে তাকে ছেড়ে দেওয়া হবে। মাস্তুল লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক বোরহান মাহমুদ ব্যক্তিগত জীবনে একজন প্রতিষ্ঠিত কবি ও সাংবাদিক। সাপ্তাহিক ২০০০, সাপ্তাহিক সাপ্তাহিক সহ আরো কয়েকটি পত্রিকায় কর্মরত ছিলেন বেশ কয়েক বছর।

লেখক হিসেবে ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিতব্য অমর একুশে গ্রন্থমেলায় তার লেখা একটি গ্রন্থ প্রকাশিত হবার কথা রয়েছে। ২০১০ সালে প্রতিষ্ঠা করেন মাস্তুল মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটি। প্রতিষ্ঠার পর থেকে সুনামের সঙ্গে ব্যবসা পরিচালনা করা সত্ত্বেও কোন কারণে বোরহান মাহমুদকে পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে তা জানা যায়নি।

সানবিডি/ঢাকা/বিজ্ঞপ্তি/এসএস

Print Print