জিম্বাবুয়েকে ২৭৪ রানের টার্গেট দিয়েছে বাংলাদেশ

|| প্রকাশ: ২০১৫-১১-০৭ ১৮:২১:৩৭ || আপডেট: ২০১৫-১১-১৪ ১৩:২৭:২৭

mushfiqur rahimজিম্বাবুয়েকে ২৭৪ রানের টার্গেট দিয়েছে বাংলাদেশ। মুশফিকুর রহিম এবং সাব্বিরের ব্যাটের ওপর ভর করে বাংলাদেশ নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট ২৭৩ রান সংগ্রহ করে।  মুশফিক ১০৭ ও সাব্বির ৫৭ রান করেন।শনিবার দুপুরে মিরপুর শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জয় করে বাংলাাদেশকে ব্যাটিংয়ে আমন্ত্রণ জানান তিনি। এদিন সৌম্য সরকারের পরিবর্তে দলে ডাক পাওয়া ইমরুলকে মূল একাদশে রাখা হয়নি।

 উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতে নামা লিটন দাস কোনো রান না করেই সাজঘরে ফেরেন। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ৯ রান করে আউট হলে চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ। তবে চাপ সামলান তামিম-মুশফিক। তাদের জুটিতে আসে ৭০ রান। এরপর তামিম ইকবাল ৪০ রানে আউট হন। তবে মুশফিকুর রহিম তার ক্যারিয়ারের ২৩তম অর্ধশতক তুলে নেন। এরপরই বাংলাদেশের  ব্যাটিং শিবিরে আবার আঘাত হানে জিম্বাবুয়ে। আউট হন সাকিব আল হাসান। মাত্র ১৬ রান করে স্ট্যাম্পিং হন এ অলরাউন্ডার। দায়িত্বহীনভাবে সিকান্দারকে ডাউন দ্য উইকেটে মারতে গিয়ে স্টাম্পিংয়ের ফাঁদে পড়েন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। পরে সাব্বিরকে সাথে নিয়ে শতরানের জুটি গড়েন মুশফিক।

শেষ দিকে এসে দ্রুত তিন উইকেট পড়ে যাওয়ার পর অধিনায়ক মাশরাফি এসে সামাল দেন।তিনি মাত্র ৮ বলে ১৪ রানের ঝড়ো ইনিংস উপহার দেন। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের জয়টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কেননা বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ জিতলে পাবে এক পয়েন্ট। কিন্তু বাংলাদেশ যদি এক  ম্যাচ হারে তাহলে দুই পয়েন্ট হারাবে মাশরাফিরা।

তবে বাংলাদেশ নিজেদের মাটিতে টানা তিনটি সিরিজ (পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা ও ভারত) জয়লাভ করেছে। এছাড়া বিশ্বকাপেও দারুণ চমক দেখিয়েছে। এর আগে বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ে সর্বশেষ মুখোমুখি হয় গত বছরের নভেম্বর-ডিসেম্বরে। তখন ৫ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ জয়লাভ করে টাইগাররা।