কক্সবাজারে ঘাতক বাস কেড়ে নিলো ৩ যুকের প্রাণ

|| প্রকাশ: ২০১৫-১১-০৮ ২১:২০:১২ || আপডেট: ২০১৫-১১-০৮ ২১:২০:১২

images (6)কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ইসলামপুর নাপিতখালী বটতলি মোড়ে বাস চাপায় তিন যুবক নিহত হয়েছে। রোববার সকাল সাড়ে ৭ টার দিকে এঘটনা ঘটেছে। ঘাতক বাসটি রামু থানা পুলিশ আটক করলেও চালক ও হেলপার পালিয়ে যায়। একই ইউনিয়নের দু’গ্রামে ৩ যুবকের মর্মান্তিক মৃত্যু নিয়ে চলছে শোকের মাতম। বিকালে ৩ যুবকের দাফন সম্পন্ন হয়েছে স্ব-স্ব পারিবারিক গোরস্থানে।

পুলিশ ও এলাকাবাসি সুত্রে জানা গেছে, রোববার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ৩ যুবক ছিরাইয়ের জন্য গাছ ভর্তি একটি ট্রলি (নসিমন) ভটভটি নিয়ে ইসলামপুর বাজারস্থ একটি স’মিলে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ইসলামপুর নাপিতখালী বটতলি মোড়ে পৌছঁলে কক্সবাজার শহর অভিমূখি একটি যাত্রীবাহি হানিফ চেয়ার কোচ ( নং- ঢাকা মেট্টো-ব-১৪-৬৫৮৩) পিছন দিক থেকে গাছ ভর্তি ট্রলিকে ধাক্কা দেয়। এতে রাস্তা থেকে সটকে পড়ে যায় ট্রলি চালকসহ ৩ যুবক। ঘটনাস্থলে সাইফুল ইসলাম (২৫) নিহত হন। সে কক্সবাজার সদরের ইসলামপুর উত্তর নাপিতখালী ৩নং ওয়ার্ডের আবদুল আলি প্রকাশ বাচু বলির ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা একই ইউনিয়নের উত্তর নাপিতখালী বাশঁকাটা ১নং ওয়ার্ডের মৃত মোজাহের আহমদের ছেলে ট্রলি চালক নুরুল ইসলাম ও মধ্যম নাপিতখালী ৪নং ওয়ার্ডের আবদুল মজিদের ছেলে মোঃ জসিম উদ্দিনকে গুরুতর আহত অবস্থা চকরিয়া ডুলাহাজার মালুমঘাট মেমোরিয়াল খ্রিষ্টান হাসপাতালে ভর্তি করান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুরে মৃত্যুর কুলে ঢলে পড়েন তারা।

দুর্ঘটনাকবলিত ট্রলিটি ঘটনাস্থলে থাকলেও ঘাতক হানিফ বাসটি কক্সবাজার শহরে পালিয়ে আসার পথে জনতা ধাওয়া করে রামুর তেচ্ছিপুল এলাকা থেকে আটক করতে সক্ষম হয়। তবে চালক ও হেলপার পলাতক রয়েছে। বাসটি রামু থানা পুলিশের নিকট সোর্পদ করে জনতা।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আসলাম হোসেন জানান, নিহতদের লাশ পুলিশ উদ্ধার করলেও তাদের পরিবারের সদস্যরা অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেটের অনুমতি নিয়ে ময়নাতদন্ত ছাড়া লাশগুলো রোববার বিকালে নিজ নিজ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

সানবিডি/ঢাকা/রাআ