শেষ মুহূর্তে রিয়ালের শ্বাসরূদ্ধকর জয়

প্রকাশ: ২০১৫-১১-২৬ ১১:২০:১৪

৪-০ ব্যবধানে যে ম্যাচটি নিশ্চিত জিততে যাচ্ছে রিয়াল মাদ্রিদ, সেটিই কি না শেষ মুহূর্তে হয়ে উঠল চরম নাটকীয়। ১১ মিনিটের ব্যবধানে তিন গোল হজম করে সেই ম্যাচটিতেই হারের মুখে পড়ে গেলো লজ ব্লাঙ্কোজরা। শেষ পর্যন্ত ৪-৩ ব্যবধান নিয়েই শাখতার দোনেৎস্ককে হারালা রিয়াল মাদ্রিদ।

ইউক্রেনের এরেনা এলভিভে রোনালদোর জোড়া গোলে ম্যাচের শুরু থেকে ৭০ মিনিট পর্যন্ত একাধিপত্য ছিল রিয়াল মাদ্রিদেরই। এর মধ্যে স্বাগতিক শাখতারের জালে ৪বার বল জড়িয়েছে রিয়াল। তখনও মনে হয়নি কী নাটক অপেক্ষা করছে শেষ পর্যন্ত।

৭৭ মিনিটে গিয়েই ম্যাচের রং বদলে যায়। হঠাৎ করেই রিয়ালের ওপর চাপ সৃষ্টি করে শাখতার। যেন যেতন চাপ নয়। ৭৭ মিনিট থেকে ৮৮ মিনিট। এই ১১ মিনিটের ব্যবধানে রিয়ালের জালে তিনবার বল জড়িয়ে দিল শাখতার। এ সময় তো পয়েন্ট হারানো কিংবা পরাজয়ের শঙ্কাতেই পড়ে গিয়েছিল রিয়াল। শেষ পর্যন্ত ৪-৩ ব্যবধানে জয়ের স্বস্তি নিয়েই বাড়ি ফিরলো রাফায়েল বেনিতেজের দল।

বুধবার প্রতিপক্ষের মাঠ অ্যারেনা এলভিভে প্রথম গোলের জন্য ১৮ মিনিট পর্যন্ত অপেক্ষায় থাকতে হয় রিয়াল মাদ্রিদকে। ১৮তম মিনিটে গ্যারেথ বেলের উঁচু করে বাড়ানো বল গোলমুখ থেকে হেডে জালে জড়ান ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ফলে ১-০ গোলে এগিয়ে যায় রাফায়েল বেনিতেজের দল।

এল ক্লাসিকোতে বার্সেলোনার কাছে ৪-০ গোলে ‘বিধ্বস্ত’ হওয়ার পর শাখতার দোনেৎস্কের বিপক্ষে শুরু থেকেই গোলের জন্য মরিয়া হয়ে উঠে রিয়াল শিবির। প্রথমার্ধের বাকি সময়টাতে গোলের বেশ কয়েকটি সুযোগ পেলেও কাজলে লাহাকে পারেননি রোনালদো-বেলরা। ফলে ১-০ গোলের লিড নিয়ে বিরতিতে যায় লস ব্লাঙ্কোজরা।

বিরতির পর অবশ্য গোলের জন্য বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি রিয়াল মাদ্রিদকে। খেলার ৫০তম মিনিটে সতীর্থের লম্বা করে বাড়ানো পাস থেকে বল পেয়ে প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডারদের কাটিয়ে অরক্ষিত লুকা মডরিচের উদ্দেশ্যে বল বাড়ান রোনালদো। দারুণ ফিনিশিংয়ে গোল করে রিয়ালকে ২-০ গোলে এগিয়ে নেন এই ক্রোট মিডফিল্ডার।

দুই মিনিটের ব্যবধানে দানি কারভাহালের গোলে শাখতার দোনেৎস্কের ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন শেষ হয়ে যায়। পেনাল্টি বক্সের ভেতরে কারভাহালকে পাস বাড়ান রোনালদো। বুলেটগতির শটে স্বাগতিক গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন এই স্প্যানিশ তারকা।

৭০তম মিনিটে রোনালদোর গোলে রিয়াল মাদ্রিদের বড় জয় মোটামুটি নিশ্চিত হয়ে যায়। মাঝমাঠের সামান্য ওপরে বল পেয়ে ক্ষিপ্ত গতিতে বাম প্রান্ত দিয়ে প্রতিপক্ষের পেনাল্টি বক্সের ভেতরে ঢুকে রোনালদোকে পাস বাড়ান এই ওয়েলস উই্ঙ্গার। সুযোগসন্ধানী রোনালদো গোল করতে ভুল করেননি।

৭৬ মিনিট পর্যন্ত ৪-০ গোলে এগিয়ে ছিল রিয়াল মাদ্রিদ। রোনালদোদের বড় জয় প্রায় নিশ্চিত। ঠিক তখনই শুরু হয় শাখতারের চমক। ৭৭ থেকে ৮৮- এই ১১ মিনিটের ব্যবধানে তিন গোল করে ম্যাচকে জমিয়ে তোলে স্বাগতিকরা।

৭৭তম মিনিটে বদলি হিসেবে মাঠে নামা ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার তাইসোনকে বাজে ট্যাকল করেন রিয়াল তারকা ক্যাসিমারো। ফলে রেফারি পেনাল্টির নির্দেশ দেন। স্পট কিক থেকে গোল করে ব্যবধান কমান অ্যালেক্স তেসেইরা।

ছয় মিনিট পর ফের গোল করে বসে শাখতার। কর্নার থেকে ভেসে আসা বলে মিডফিল্ডার স্তেপানেনকো হেড করলে বল পেয়ে যান পেনাল্টি বক্সের ভেতরে অরক্ষিত থাকা দেনতিনিয়ো।  দারুণ হেডে গোল করতে ভুল করেননি এই ব্রাজিলিয়ান তারকা।

৮৮তম মিনিটে ফের গোল করেন দেনতিনিয়ো। ডি বক্সের জটলার মধ্যে বল পেয়ে বুদ্ধিদীপ্ত ফিনিশিংয়ে গোল করে ম্যাচে রোমাঞ্চ ফিরিয়ে আনেন এই ব্রাজিলিয়ান তারকা। তবে আর কোনো গোল না হওয়ায় ৪-৩ গোলের হার নিয়ে মাঠ ছাড়ে ইউক্রেনের ক্লাব শাখতার দোনেৎস্ক।

এই জয়ের ফলে ৫ ম্যাচ থেকে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে ‘এ’ গ্রুপে নিজেদের শীর্ষস্থান নিশ্চিত করলো আগের ম্যাচেই শেষ ষোল নিশ্চিত করা রিয়াল মাদ্রিদ। আর দিনের অপর ম্যাচে সুইডিশ ক্লাব মালমোকে ৫-০ গোলের বড় ব্যবধানে পরাজিত করা পিএসজি ১০ পয়েন্ট নিয়ে নটআউট পর্ব নিশ্চিত করেছে।

Print Print