ইনজুরিতে ক্ষয়ে যাওয়া এক প্রতিভার গল্প

প্রকাশ: ২০১৫-১২-০৪ ১৪:৩৭:৩১ আপডেট: ২০১৫-১২-০৪ ১৪:৩৯:০৯

162275.3_93331সকালের আকাশ সবসময় সারা দিনের পূর্বাভাষ দেয় না। ক্রিকেটারদের ক্ষেত্রে এই কথাটা বেশ উচ্চারিত হয়। কেউ উঁকি দিয়ে মিলিয়ে যান নিয়তির কোলে। কেউ মিলিয়ে যেতে যেতে ভেসে ওঠেন স্বপ্নআকাশে। এর উদাহরণ যদি দিতেই হয়, তবে সবার আগে আসে মাশরাফির নাম। ইনজুরির করাল গ্রাসে ক্ষয়ে যেতে থাকা ক্যারিয়ার তিনি ফিরে পেয়েছেন জাদুর কাঠির পরশে। অস্ট্রেলিয়ার জেমস প্যাটিনসনের নিয়তিও ঠিক এমন।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অভিষেক টেস্টে ম্যান অব দ্যা ম্যাচ হয়েছিলেন। এরপর তৃতীয় টেস্টে ভারতের বিপক্ষেও সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন। সেটা ২০১১ সালের কথা। প্যাটিনসন অজি ক্রিকেটের সম্ভাবনাময় পেসার হিসেবে নিজেকে মেলে ধরেন। কিন্তু আজ চার বছর বাদে তার নামের পাশে খুব বেশি অর্জন নেই। ইনজুরি তার প্রতিভাকে বিকশিত হতে দেয়নি। ইনজুরি শুধু এক জায়গায় নয়- পায়ের পাতায়, পাঁজরে, হাঁটুতে। ২০১৩ সালের অ্যাশেজ চলাকালীন প্রথম ইনজুরিতে পড়েন। এক বছর বাদে আবার। গত চার বছরে টেস্ট খেলতে পেরেছেন মাত্র ১৩টি।

প্যাটিনসনের সামনে সুযোগ ছিল ঐতিহাসিক দিনরাতের টেস্টে মাঠে নামার। কিন্তু মূল একাদশে সেদিন সুযোগ পাননি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হতে যাওয়া টেস্টে খেলার কথা শোনা যাচ্ছে এই পেসারের। পেটের পীড়ায় মারাত্মক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন মিচেল স্টার্ক। তাতেই দীর্ঘদিন বাদে মাঠে নামার সুযোগ মিলতে পারে প্রতিভাবান এই পেসারের।

চার বছর আগের প্যাটিনসন আর এখনের প্যাটিনসনে বেশ তফাত। তরুণ বয়সে ক্রিকেটই ছিল ধ্যানজ্ঞান। কিন্তু এখন সেটা আর নেই। হয়তো ইনজুরি তাকে ভয় ধরিয়ে দিয়েছে। গত সপ্তাহে অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট দলে ফিরে প্যাটিনসন বলেন, ‘এখন আর ক্রিকেটকে সেরকম সিরিয়াসলি নিতে পারি না। তরুণ বয়সে যতটা পারতাম।’

‘এখন অনেক কাজের মতো ক্রিকেটও আমার কাছে সাধারণ। ক্রিকেট থেকে দূরে থেকে বুঝেছি উপভোগ করার মতো আরো অনেক কিছু আছে।’ বলেন প্যাটিনসন।

প্যাটিনসন আসলেই এখন অনেক বদলে গেছেন। ইনজুরির সময়ে পুরপুরি মন দেন লেখাপড়ায়। নির্মাণ ও স্থাপত্য বিষয়ে ডিপ্লোমা করছেন। ভাইকে তার কাজেও সাহায্য করেন নিয়মিত।

চার বছর আগে স্টার্কের সঙ্গে গাব্বায় অভিষেক হয় প্যাটিনসনের। সেই স্টার্ক এখন অস্ট্রেলিয়া তো বটেই বিশ্বক্রিকেটের এক সম্পদে পরিণত হয়েছেন। প্যাটিনসনের সামনে সুযোগ নিজেকে ফিরে পাওয়ার। প্যাটিনসন কি পারবেন?

সানবিডি/ঢাকা/রাআ