বসন্ত আসছে

জেলা প্রতিনিধি || প্রকাশ: ২০২১-০২-০৯ ১৬:৫৮:৫৬ || আপডেট: ২০২১-০২-০৯ ১৬:৫৮:৫৬

ফুল ফটুক আর নাই ফুটুক ইতোমধ্যে বসন্ত আগমনের বার্তা পাওয়া যাচ্ছে। সাতক্ষীরায় গত সপ্তাহে তীব্র শীত থাকলেও এ সপ্তাহে পরিবেশে বড় পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে। গাছে গাছে আমের মুকুল, বসন্তের পাখিদের ডাকও মাঝে মাঝে শোনা যাচ্ছে মাঘের এই শেষ বেলায়।

শীতের শেষ সময়টাতে বেশ আলোড়ন তুলেই বিদায় নিচ্ছে শীত। গুটি গুটি করে এগিয়ে আসছে যেন বসন্ত। পুরো পৌঁষে শীতের তেমন কোনো প্রভাব না থাকলেও মাঘের শুরু থেকে সারাদেশে জাঁকিয়ে পড়তে শুরু করে শীত সঙ্গে শৈত্যপ্রবাহও। উপকূলীয় জেলা সাতক্ষীরাতে ব্যতিক্রম ছিলো না।

শীতের প্রকোপ কমে গেছে। দিনে বেড়েছে রোদের তাপ। কুয়াশা কেটে গিয়ে ঝরঝরে রোদের দেখা মিলছে।

প্রকৃতি ঝরঝরে হচ্ছে, পাতাঝরা প্রকৃতি যেন নতুন প্রাণ ফিরে পাচ্ছে। ফুল ফুটুক বা নাই ফুটুক বসন্তের আগমন আর মাত্র কয়েক দিন পরই। ঋতুচক্রের হিসাবে শীতকাল শেষে আসছে বসন্তকাল। অর্থাৎ ফাল্গুন আর চৈত্র মাস। চারদিক মাতছে হরেক ফুলের সৌরভে।

ঋতুরাজ বসন্তের আগমনে নতুন করে সাজতে শুরু করেছে প্রকৃতি। ফাল্গুনী দখিনা বাতাস আর নানা রকম ফুলের সৌরভ জানান দিচ্ছে এসে গেছে বসন্ত। কবি-লেখকরা তাদের বিভিন্ন লেখনীতে এই ঋতুকে বলছেন সৃজনশীল ঋতু।

দখিনা বাতাস আর প্রাকৃতিক সৌন্দর্য মানুষের মনকে করে তোলে উদাস। বসন্ত মানেই যেন পূর্ণতা। বসন্ত মানেই যেন নতুন প্রাণের কলরব। প্রকৃতির সবচেয়ে সুন্দর ঋতু হচ্ছে এই বসন্ত। বসন্তের প্রকৃতি আমাদেরকে মুগ্ধ করে। এই ঋতুতে মানুষকে যেন প্রকৃতি তার আরও অনেক কাছে টানে।

এবার শীত যাচ্ছে অনেকটা নিরবে। মহামারী করোনার কারণেই শীত আমাদের কাছে আতঙ্কের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। গতবছর এই শীতেই করোনাভাইরাস সারাবিশ্বে তান্ডবলীলা চালিয়েছিল। সেই আতঙ্ক আমাদের পিছু ছাড়েনি।

তবে আশার বাণী এই, দেশে করোনা অনেকটা নিয়ন্ত্রণে। শীতে খুব বেশি প্রভাব ছড়াতে পারেনি করোনা। আসছে বসন্তে তাই করোনা বিশ্ব থেকে বিদায় নিক। আগামী শীত নিয়ে আসুক সুস্থ পৃথিবী। এটাই কাম্য সৃষ্টিকর্তার কাছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •