রমজানে খোলা থাকবে পবিত্র দুই মসজিদ, থাকছে না এতেকাফের সুযোগ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || প্রকাশ: ২০২১-০৩-২৯ ১৭:১৩:৩০ || আপডেট: ২০২১-০৩-২৯ ১৭:১৩:৩০

স্বাস্থ্যবিধি মেনে পবিত্র রমজান মাসজুড়ে খোলা থাকবে মক্কার মসজিদুল হারাম ও মদিনা নগরীর মসজিদে নববি। তবে দু মসজিদে থাকছে না এবারও এতেকাফের সুযোগ।রমজান বিষয়ক বিশেষ পরিকল্পনায় এ তথ্য জানিয়েছেন দুই মসজিদ বিষয়ক জেনারেল প্রেসিডেন্সির প্রধান ও মসজিদুল হারামের ইমাম শায়খ ড. আবদুর রহমান আল সুদাইস।

রোববার (২৮ মার্চ) করোনাকালে পবিত্র রমজান মাসের বিশেষ পরিকল্পনা শীর্ষক এক ভার্চুয়ালি সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে অংশগ্রহণ করেন মক্কা ও মদিনার পবিত্র দুই মসজিদের পরিচালনা পরিষদের প্রধান শায়খ ড. আবদুর রহমান আল সুদাইস ও তথ্য বিষয়ক ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী মাজিব বিন আবদুল্লাহ আল কাসাবিসহ সংশ্লিষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ।

মসজিদুল হারামের ইমাম বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় এই বছরও রমজানে দুই পবিত্র মসজিদে এতেকাফের সুযোগ থাকছে না।

আল সুদাইস বলেন, ‌‌‌‌‌করোনাকালে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ওমরাহ পালন অব্যহত থাকবে। পবিত্র মসজিদুল হারামে সবার স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সর্বাত্মক প্রচেষ্টা থাকবে। চলমান মহামারিতে আল্লাহর অতিথিদের জীবন নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কার্যকরি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়।

ওমরাহ পালনে আগ্রহীদের করোনা টিকা নিতে উৎসাহ করে আল সুদাইস বলেন, ‘নিজের ও অন্যদের জীবন সুরক্ষায় মসজিদুল হারাম ও মসজিদে নববিতে আসা সবাইকে আমি করোনা টিকা নেওয়ার অনুরোধ করছি।

মক্কার মসজিদুল হারামের পূর্ব প্রান্তরসহ পাঁচটি স্থান নামাজের জন্য উম্মুক্ত থাকবে। তাছাড়া বিশেষ প্রয়োজনে পরিকল্পনাধীন স্থানও অন্তর্ভূক্ত থাকবে। পুরো রমজান মাসে প্রথম তলায় ওমরাহযাত্রী তাওয়াফ আদায়ের সুযোগ থাকবে।

অবশ্য রমজান মাসে জমজমের ওয়াটার কুলারের কোনো ব্যবস্থা থাকবে না। তবে প্রতিদিন জমজম পানির দুই লাখ বোতল দেওয়া হবে। আর মসজিদুল হারাম ও মসজিদে নববিতে ইফতারি হিসেবে শুধুমাত্র পানি ও খেজুর সঙ্গে নেওয়া যাবে। তবে তা বিতরণ করা যাবে না।

মসজিদের ভেতর বা বাইরের প্রান্তরে ব্যক্তিগতভাবে খাবার গ্রহণ করা যাবে না। তবে রোজাদারদের জন্য ইফতারি হিসেবে পৃথক পৃথক খাবার বিতরণ করা হবে। পবিত্র দুই মসজিদের মুসল্লিদের সেবায় ১০ হাজার কর্মচারি কাজ করবে।

সূত্র : আরব নিউজ

/এ এ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •