রায় লেখার সময় বেধে দেয়ার পক্ষে শফিক আহমেদ

|| প্রকাশ: ২০১৬-০১-২১ ১৬:৪০:১১ || আপডেট: ২০১৬-০১-২১ ১৭:৪৪:০৯

SC‘বিচারপতি অবসরে যাওয়ার পর রায় লেখা অবৈধ তা সংবিধানে নেই, রুলসও নেই’ বলে জানিয়েছেন সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ।

‘তবে অবসরে যাওয়ার পর রায় লেখার জন্য বিচারপতিদের ‘সময় নির্ধারণ’ করে দেওয়া যেতে পারে। তবে সে সময় যেন দীর্ঘ না হয়।’— এমন মতামত দেন তিনি।

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার এক বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার সুপ্রীম কোর্টের নিজ কার্যালয়ে তিনি সংবাদিকদের এ কথা জানান।

সম্প্রতি প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা প্রধান বিচারপতি হিসেবে বর্ষপূর্তি উপলক্ষে এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘অবসরের পর রায় লেখা সংবিধান পরিপন্থি।’

ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ বলেন, ‘বিচারক যখন রায় ঘোষণা করেন, তখন রায় বিচারপতি থাকতে ঘোষণা করেন। তখন যা রায় দেওয়া হয়, সেটাই রায়। অ্যাডমিনেস্ট্রেটিভ (প্রশাসনিক) কারণে সে দিনই রায় লেখা সম্ভব হয় না।’

‘প্রধান বিচারপতি বোধ হয় অ্যাডমিনেস্ট্রেটিভ দৃষ্টিকোণ থেকে ওই কথা বলেছেন। কিন্তু একে যদি এভাবে বলা হয় যে, অবসরে যাওয়ার পর রায় লেখা হলে তা হবে ‘সংবিধান পরিপন্থি’ বিষয়টি এমন নয়। রায় ঘোষণার পর তা লেখার জন্য একটু সময় দিতেই হবে। কারণ আইনজীবীদের দেওয়া বিভিন্ন ডকুমেন্ট পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে বিচারকদের রায় লিখতে হয়’ বলে জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, ‘প্রধান বিচারপতির বক্তব্য অনুসারে সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনী অবৈধ বা অসাংবিধানিক তা বলা যাবে না। শুধুমাত্র রায়ের ভিত্তিতে সংশোধন হয়নি। সংসদে বিল আকারে তা গেছে ও অধিকাংশ সংসদ সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতে তা পাস হয়েছে। ঢালাওভাবে প্রধান বিচারপতির এমন বক্তব্যের সঙ্গে একমত প্রকাশের সুযোগ নেই। এমনকি প্রধান বিচারপতির বক্তব্য কোনো ব্যক্তি পর্যায়ে নেওয়ারও সুযোগ নেই।’