নৌকা ডুবে গ্রিক দ্বীপে ১৫ শরণার্থীর মৃত্যু

|| প্রকাশ: ২০১৬-০১-২২ ১৫:১০:৩৮ || আপডেট: ২০১৬-০১-২২ ১৫:১০:৩৮

গ্রিক দ্বীপশুক্রবার গ্রিক দ্বীপে নৌকা ডুবে ১৫ শরণার্থীর মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ৬ জন শিশু ছিল। উপকূল রক্ষীরা জানিয়েছেন, ওই দুর্ঘটনায় বেশ কয়েকজন এখনও নিখোঁজ রয়েছেন।

বন্দর পুলিশ জানিয়েছে, ৪৮ শরণার্থী জীবিত আছেন। তারা ফারমাকোনিসির তীরে পৌঁছাতে সক্ষম হয়েছেন। নৌকাটি তুরস্ক থেকে রওয়ানা করেছিল। কিন্তু যাত্রাপথে এটি শক্ত কিছুর সঙ্গে ধাক্কা খায়। পরে এটি ক্রমাগত দুলতে থোকে। পরে নৌকাটি ভারসাম্য রাখতে না পেরে উল্টে যায়। উপকূলরক্ষীরা ডুবে যাওয়া নৌকা থেকে ছয় শিশু এবং এক নারীর মৃতদেহ উদ্ধার করেছেন।

এর মাত্র কয়েক ঘণ্টা পরেই আরো একটি ছোট নৌকা আজিয়ান দ্বীপে ডুবে যায়। ওই নৌকা থেকে আরো আটটি মৃতদেহ উদ্ধার করেছে বন্দর পুলিশ। তবে ওই নৌকার আরো ২৬ জনকে জীবিত উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। বন্দর পুলিশ জানিয়েছে, তারা নিখোঁজদের খুঁজে বের করার চেষ্টা করছেন।

যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ার বহু মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সাগর পথে ইউরোপে পাড়ি জমাচ্ছে। বিপজ্জনক এবং খারাপ আবহাওয়া থাকা স্বত্তেও এসব শরণার্থীরা ইউরোপে যাওয়ার জন্য তুরস্ক থেকে ঝুঁকিপূর্ণ নৌকায় উঠছে। বেশির ভাগ সময়ই এসব নৌকায় কয়েকগুন বেশি যাত্রীকে তোলা হয়। ফলে যাত্রাপথে প্রতিকূল আবহাওয়ায় ভারসাম্য রক্ষা করতে না পেরে নৌকা ডুবির ঘটনা ঘটে।

গত বছর সাগর পথে প্রায় ৩১ হাজার শরণার্থী গ্রিসে পৌঁছেছে। তারা জার্মানি, সুইডেনসহ ইউরোপের যে কোনো দেশে নতুন করে জীবন শুরু করার স্বপ্ন দেখছে। শুধুমাত্র জানুয়ারির মাঝামাঝি পর্যন্তই ৭৭ শরণার্থী ভূমধ্যসাগরে নৌকা ডুবে মারা গেছে।

সানবিডি/ঢাকা/আহো