টপ অর্ডারের ব্যর্থতাকে দায়ী করলেন মাশরাফি

|| প্রকাশ: ২০১৬-০১-২২ ২১:৩৫:০৯ || আপডেট: ২০১৬-০১-২২ ২১:৩৫:০৯

crecker-tigerজিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শেষ টোয়েন্টি২০ ম্যাচে ১৮ রানে হেরে গিয়ে বছরের প্রথম সিরিজ জয়ের স্বপ্ন ধূলিসাৎ হয়ে গেছে বাংলাদেশের। ১৮১ রানের বড় লক্ষ্য তাড়া করতে গিয়ে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়েছিল বাংলাদেশের টপ অর্ডার, ১৭ রানেই আউট হয়ে যান সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশের মান বাঁচানো সংগ্রহ এসেছে টেলএন্ডারদের ব্যাটে। ম্যাচ শেষে হারের জন্য বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি তাই ব্যর্থতার দায় চাপালেন টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের কাঁধেই।

মাশরাফির ভাষায়, টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার কারণেই শেষ ম্যাচটিতে জয় আসেনি। তবে এশিয়া কাপের আগে পাওয়া এক মাস সময়ে এই ভুলত্রুটি শুধরে নেওয়ার কথা জানালেন নড়াইল এক্সপ্রেস।

জিম্বাবুয়ের কাছে পর পর দুই ম্যাচে হেরে বিধ্বস্ত দল, অতিরিক্ত পরীক্ষা-নিরীক্ষার কারণেই এমন ফল কিনা; সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে অধিনায়কের মন্তব্য, আসলে আজ টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার কারণে এই ফলাফল। প্রথম তিন ওভারে ১৭ রান সংগ্রহ করে চারজন আউট। সেখানেই পরজয়টা হয়ে গেছে, পরে মাহমুদউল্লাহ, সোহানের ব্যাটিং মাঝে আশা জাগালেও আর কোনো ব্যাটসম্যান না থাকায় খেলায় ফিরে আসা সম্ভব হয়নি।

মাহমুদউল্লাহ, আবু হায়দার রনি, তাসকিনরা ভালো করেছে দাবি করলেও টপ অর্ডারদের ব্যর্থতায় ম্যাচ হাতছাড়া হয়ে যাওয়ার কথাই বলেছেন মাশরাফি। তিনি বলেন, এশিয়া কাপের এখনো এক মাস বাকি আছে। তার আগে দলের লিকেজগুলি ঝালাই করে নেওয়া হবে। এই সময়ের প্রশিক্ষণে দল কম্বিনেশন ফিরে পাবে।

তিনি বলেন, তৃতীয় ম্যাচে জয়ী হয়ে জিম্বাবুয়ে দল উজ্জীবিত হয়েছিল, যা শেষ ম্যাচেও তারা ধরে রেখে জয়ী হয়েছে।

ম্যাচে বল হাতে প্রথম ওভারেই উইকেট নিয়েছিলেন মাশরাফি। শেষে ব্যাট করতে নেমে ঝোড়ো ব্যাটিংও করেছেন তিনি। কিন্তু দল হেরে যাওয়ায় হতাশ অধিনায়ক বলেছেন, দুই পেসার মুস্তাফিজ ও আল আমিন দলে থাকলে এ ধরনের বিপর্যয় হতো না।