ঢাকার গৃহবধু নির্যাতন মামলায় খুলনার ২ আসামী গ্রেফতার

|| প্রকাশ: ২০১৬-০১-২৮ ১৯:৪৬:৫৭ || আপডেট: ২০১৬-০১-২৮ ১৯:৪৬:৫৭

b758d0c6-5cbf-4c6d-abf9-b006231172feযৌতুকের দাবিতে গৃহবধুকে মারপিট ও নির্যাতন ঘটনায় থানা পুলিশ আদালতের ওয়ারেন্টভূক্ত আসামী ননদ-দম্পতিকে আটক করে বৃহস্পতিবার বিকালে জেল হাজতে প্রেরণ করে। আটককৃতরা হলো নির্যাতিত গৃহবধু মিতু রহমানের ননদ আসমা বেগম এবং তার স্বামী ও দামোদর গ্রামের আবু তালেব সরদারের পুত্র মোঃ বাবু সরদার (৫০)।

আদালত সূত্র জানায়, ঢাকার শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজের বিবিএস ফাইনাল ইয়ারের ছাত্রী মিতু রহমান (২৩) এর সাথে গত ৩বছর পূর্বে ছাতিয়ানী গ্রামের আমজাদ হোসেন সরদারের পুত্র আঃ কাদের জিলানীর সাথে মুসলিম আইনে তার বিবাহ হয়। বিয়ের পর থেকে প্রায় নিয়মিতভাবে জিলানী নেশাদ্রব্য সেবন করে বাসায় ফিরত এবং বিভিন্ন সময় গালিগালাজ ও মারপিট শুরু করে। বিভিন্ন সময়ে যৌতুকের জন্য সে স্ত্রী মিতু ও তার আত্মীয়দেরকে চাপ দিতে থাকে। মেয়ের সংসার ও সুখের কথা চিন্তা করে মিতুর মা জিলানীকে নগদ ১লক্ষ টাকাও প্রদান করে। কিছুদিন পর যৌতুকের দাবিতে ফের মিতুকে বেধড়ক পিটিয়ে জখম করে।

এ ব্যাপারে গত ১৯ মে ২০১৪ ইং তারিখে মিতু বাদি হয়ে জিলানীর বিরুদ্ধে ঢাকা শ্যামপুর থানায় জিডি (নং-৭২৬) এন্ট্রি করেন। একই দাবিতে গত ৩ নভেম্বর ২০১৫ইং তারিখে রাজধানীর শ্যামপুর থানাধীন ৩৭২/৬, পশ্চিম জুরাইন মুন্সী বাড়ী শাহাদাৎ হোসেন রোড়স্থ ভাড়ার বাড়িতে স্বামী পরিবার ফের মিতুকে মারপিট ও নির্যাতন করে। এ ব্যাপারে নির্যাতিত ঐ গৃহবধু বাদি হয়ে ঢাকার বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এ ৫ জনকে আসামী করে মামলা করেন।

বিজ্ঞ আদালত অভিযোগটি আমলে নিয়ে আসামীদের বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট (গ্রেফতারী পরোয়ানা) জারী করেন। ওয়ারেন্টভূক্তরা হলো স্বামী ও খুলনার ফুলতলার ছাতীয়ানী গ্রামের আমজাদ হোসেনের পুত্র মোঃ আব্দুল কাদের জিলানী (৩২), স্বামীর ভাই হোসাইন সরদার ওরফে সোহেল (৩৭), শ্বশুর আমজাদ হোসেন সরদার (৬০), ননদ আসমা বেগম (৩৫) এবং ননদের স্বামী মোঃ বাবু সরদার (৫০)।

বিজ্ঞ আদালতের ওয়ারেন্ট ফুলতলা থানায় পৌঁছালে এসআই খায়রুল বাসার এবং এসআই শফিউল আলমের নেতৃত্বে পুলিশ আসমা বেগম এবং তার স্বামী মোঃ বাবু সরদারকে আটক করে বৃহস্পতিবার বিকালে জেল হাজতে প্রেরণ করে। তবে প্রধান আসামী আঃ কাদের জিলানীসহ অন্যদের আটকের চেষ্টা চলছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

সানবিডি/ঢাকা/আহো