জার্মানীতে আন্তর্জাতিক বানিজ্য মেলায় অংশ নিবে বিজিএমইএ

নিজস্ব প্রতিবেদক || প্রকাশ: ২০২২-০৬-২০ ২১:৩৮:৫৪ || আপডেট: ২০২২-০৬-২০ ২১:৩৮:৫৪

প্রথমবারের মত বাংলাদেশ গার্মেন্ট ম্যানুফ্যাকচারস এন্ড এক্সপোর্টারস এসোসিয়েশন (বিজিএমইএ)’র কারিগরি টেক্সটাইল ভিত্তিক পোষাক তৈরিতে বিশেষায়িত কারখানা সদস্য সমন্বয়ে গঠিত একটি প্রতিনিধি দল জার্মানীতে একটি আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা-টেকটেক্সটাইল- প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণ করবে।

প্রযুক্তিগত ও ননওভেন টেক্সটাইলের জন্য এই শীর্ষস্থানীয় আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা জার্মানীর ফ্রাঙ্কফুর্টে আগামীকাল শুরু হবে।

আন্তর্জাতিক প্রদর্শকরা ২১ জুন থেকে ২৪ জুন, ২০২২ পর্যন্ত মেসি ফ্রাঙ্কফুর্ট আয়োজিত এই টেকটেক্সটাইল মেলায় টেকনিক্যাল টেক্সটাইল, ফাংশনাল পোষাক টেক্সটাইল এবং টেক্সটাইল প্রযুক্তির বিশাল কারুকার্য প্রদর্শন করবেন।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব কথা জানিয়ে বলা হয়, সারা বিশ্বের উৎপাদনকারীরা হাই-টেক ফাইবার থেকে উৎপাদিত পণ্য, ফাংশনাল অ্যাপারেল ফেব্রিক্স এবং স্মার্ট টেক্সটাইল থেকে কম্পোজিট এবং ননওভেন্সসহ প্রদর্শনীতে তাদের উচ্চমান সম্পন্ন পণ্য এবং পোষাক শিল্পের বিভিন্ন প্রযুক্তি উপস্থাপন করবেন।

বিজিএমইএ’র সহ-সভাপতি শহিদুল্লাহ আজিমের নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলটি বাংলাদেশের আরএমজি শিল্পের নৈপুণ্য প্রদর্শন করবে। তারা বিশেষকরে, হাতে তৈরী ফাইবার (এমএমএফ) এবং নন-কটন ও প্রযুক্তিগত টেক্সটাইল থেকে তৈরী মূল্যসংযোজন পোষাক তৈরির ক্ষেত্রে বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান সক্ষমতার ওপর রপ্তানী গুরুত্ব দিবেন।

রফতানী উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি)এই প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণ করতে বাংলাদেশি প্রতিনিধি দলকে সহযোগিতা করছে। এই ট্রেড শোটি বাংলাদেশ পোষাক শিল্পের জন্য একটা বিশাল প্লাটফর্ম হবে, যাতে বাংলাদেশকে উচ্চমানের নন-কটন পোষাকের প্রতিশ্রুতিশীল প্রস্তুতকারক হিসেবে ব্রান্ড করা যায়।

বাংলাদেশের আরএমজি শিল্প বিশ্ববাজারের ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটাতে এমএমএফ থেকে তৈরি পোষাকের গুরুত্বকে তুলে ধরছে, কারন বৈশ্বিক ভোক্তারা এখন মিশ্র ফেব্রিক্স থেকে কটনের দিকে ঝুকছে। বৈশ্বিক পোষাকের প্রায় ৭৫ শতাংশ নন-কটন, যেখানে বাংলাদেশের রপ্তানিযোগ্য পোষাক আইটেমগুলি মূলত কটন ভিত্তিক, যা ৭৪ শতাংশের বেশি। তাই এক্ষেত্রে বাংলাদেশের রপ্তানি বানিজ্যে কারিগরি টেক্সটাইলসহ নন-কটন পোষাক পণ্য বৃদ্ধির প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে।

এএ