এক্সপোজার লিমিট ক্রয় মূল্যে নির্ধারণের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক || প্রকাশ: ২০২২-০৮-০৪ ১৫:৪৭:০০ || আপডেট: ২০২২-০৮-০৪ ১৭:৪৩:০১

পুঁজিবাজারে ব্যাংকের বিনিয়োগসীমা (এক্সপোজার লিমিট) বাজার মূল্যের পরিবর্তে ক্রয় মূল্যে গণনা করার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ডিপার্টমেন্ট অব সাইট সুপারভিশন থেকে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। নির্দেশনাটি দেশের সব তফসিলি ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনায় বলা হয়, “ব্যাংক কোম্পানী আইন, ১৯৯১ এর ধারা ২৬ক এর উপ-ধারা (১) এর উদ্দেশ্য পূরণকল্পে ব্যাংক-কোম্পানি কর্তৃক অন্য কোন কোম্পানির শেয়ার ধারণের হিসাবায়নে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের উর্ধ্বসীমা (এক্সপোজার লিমিট) নির্ধারণের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ব্যাংক কর্তৃক ক্রয়কৃত মূল্যকেই বাজারমূল্য’ হিসেবে বিবেচনা করতে হবে।”

শেয়ার, কর্পোরেট বন্ড, ডিবেঞ্চার, মিউচুয়াল ফান্ড ও অন্যান্য পুঁজিবাজার নিদর্শনপত্রের বাজারমূল্য হিসাবায়নের ক্ষেত্রে এ নির্দেশ অনুসরন করার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

ব্যাংক-কোম্পানী আইন, ১৯৯১ এর ধারা ৪৫ এ প্রদত্ত ক্ষমতা বলে এ নির্দেশনা জারি করা হল। এ নির্দেশনা অবিলম্বে কার্যকর করা হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের এই নির্দেশনার ফলে মার্চেন্ট ব্যাংক এবং পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ও পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্টদের দীর্ঘদিনের দাবি পূরণ হলো। ২০১০ সালের পর থেকে এই দাবি বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে জানিয়ে এসেছিল বিএসইসি।

বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, বাজারমূল্যে বিনিয়োগসীমা গণনা হয় বলে ব্যাংকগুলো দীর্ঘমেয়াদে বিনিয়োগ করতে পারে না। কারণ বাজারমূল্যের ভিত্তিতে বিনিয়োগসীমা গণনা হলে শেয়ারের দাম বেড়ে গেলেই তা বিক্রি করে দিতে বাধ্য হয় ব্যাংকগুলো। তবে কেনার পর শেয়ারের দাম কমে গেলে হিসাব করা হয় ক্রয়মূল্যে।

পুঁজিবাজারের সব খবর পেতে জয়েন করুন 

Sunbd Newsক্যাপিটাল নিউজক্যাপিটাল ভিউজস্টক নিউজশেয়ারবাজারের খবরা-খবর

সানবিডি/এসকেএস