চট্টগ্রামে এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণে ব্যয় বাড়ছে হাজার কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক || প্রকাশ: ২০২২-০৮-০৪ ১৬:০৫:০৯ || আপডেট: ২০২২-০৮-০৪ ১৬:০৫:০৯

বন্দরনগরী চট্টগ্রামে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণে ব্যয় বাড়ছে হাজার কোটি টাকা। এ জন্য চট্টগ্রাম শহরের লালখান বাজার হতে শাহ-আমানত বিমানবন্দর পর্যন্ত এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ শীর্ষক প্রকল্পটির প্রথম সংশোধনী প্রস্তাব করা হয়েছে পরিকল্পনা কমিশনে। এটির মূল ব্যয় ছিল ৩ হাজার ২৫০ কোটি ৮৩ লাখ ৯৪ হাজার টাকা। সেখান থেকে ১ হাজার ৪৮ কোটি ১১ লাখ ১৭ হাজার টাকা বেড়ে দাঁড়াচ্ছে ৪ হাজার ২৯৮ কোটি ৯৫ লাখ ১১ হাজার টাকা।

চলতি বছরের জুন পর্যন্ত প্রকল্পটির ক্রমপুঞ্জিত আর্থিক অগ্রগতি মোট ২ হাজার ৩১২ কোটি ২২ লাখ ৭৩ হাজার টাকা (৭১ দশমিক ১৩ শতাংশ) এবং বাস্তব অগ্রগতি ৭৫ শতাংশ।

পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সাবেক সদস্য ও বর্তমানে পরিকল্পনা সচিব মামুন-আল-রশীদ বলেন, ‘প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা বেশ কিছু যৌক্তিক কারণ তুলে ধরেছিলেন। ফলে তাদের সংশোধনী প্রস্তাব একনেকে উপস্থাপনের সুপারিশ করা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে চট্টগ্রাম শহরের সঙ্গে চট্টগ্রাম ইপিজেড ও কর্ণফুলী ইপিজেডের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন সহজ হবে। শহর কেন্দ্রে ভ্রমণ দূরত্ব হ্রাসের পাশাপাশি যানজট কমবে। এ ছাড়া বিমানবন্দরে ও নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধু মুজিবুর রহমান টানেলে যাতায়াত সহজ হবে। তাই প্রকল্পটি অনুমোদনযোগ্য।’

পরিকল্পনা কমিশনের একাধিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বলেন, ‘গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় থেকে প্রস্তাব পাওয়ার পর চলতি বছরের ১০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হয় প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা। ওই সভায় দেওয়া সুপারিশগুলো প্রতিপালন করায় প্রকল্পটি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) আগামী বৈঠকে উপস্থাপনের সুপারিশ করা হয়েছে। অনুমোদন পেলে ২০২৪ সালের জুনের মধ্যে এটি বাস্তবায়ন করবে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ।’

এনজে