মেজাজ ভালো রাখবে কলা!

সান বিডি ডেস্ক প্রকাশ: ২০২২-০৯-১১ ১৪:০৯:৪৩

কলার অনেক গুণাগুণ। এর উপকারিতা প্রচুর। একটি কলা শরীরের নিস্তেজভাব মুহূর্তের মধ্যেই দূর করতে সক্ষম। শারীরিক দুর্বলতা, কোষ্ঠকাঠিন্য, পেটে গ্যাস, হজমে সমস্যার দারুণ সমাধান হতে পারে। তাহলে দেখে নেওয়া যাক এক নজরে-

ওজন কমাতে: কলায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার। তার ফলেই একটি কলা খেলেই পেট ভরে গিয়েছে মনে হয়। খিদে কম পায়। আর এমনটা হলেই আমাদের খাদ্য গ্রহণের পরিমাণ কমতে পারে।

মেজাজ ভালো রাখতে: কলায় রয়েছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। আর এর কারণে ফ্রি রেডিক্যাল হওয়া ক্ষতি থেকে শরীরকে রক্ষা করে। এছাড়াও উপস্থিত ডোপামিন মেজাজ ভালো রাখতে সাহায্য করে।

রক্তাল্পতা রোধ: রক্তাল্পতা প্রতিরোধ করা বিশেষত ভারতীয় নারীদের ক্ষেত্রে খুবই জরুরি একটি বিষয়। বেশির ভাগ মহিলাই রক্তশূন্যতার শিকার। এমন পরিস্থিতিতে কলা খাওয়া খুবই উপকারী। এতে প্রচুর পরিমাণে আয়রন পাওয়া যায়। প্রতিদিন একটি করে কলা খেলে মহিলাদের শরীরে রক্তের অভাব পূরণ হতে পারে।

হাড়ের মজবুতি: মহিলাদের ক্ষেত্রে একটি অন্যতম সমস্যা ক্যালসিয়াম-এর অভাবে একটা বয়সের পর হাড় দুর্বল হয়ে যায়। দেখা দিতে পারে অস্টিওপোরোসিস এবং গাঁটের ব্যথার মতো সমস্যা। কলাতে প্রচুর ক্যালসিয়াম রয়েছে, যা ঘাটতি পূরণ করতে পারে।

মানসিক উদ্বেগ কাটাতে: কলাকে স্ট্রেস বাস্টার হিসেবে গণ্য করাই যায়। পটাশিয়াম সমৃদ্ধ কলা স্ট্রেস হরমোন কর্টিসল নিয়ন্ত্রণ করতে পারে।

কোষ্ঠকাঠিন্য রোধ করে: কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে খুবই উপকারী কলা। প্রতি রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে দুধের সঙ্গে কলা খেলে উপকার হবে। এতে করে কোষ্ঠকাঠিন্য ও পেটে গ্যাসের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।

গর্ভাবস্থায় উপকারী: গর্ভাবস্থায় মহিলাদের কলা খাওয়া খুবই উপকারী। এ সময় প্রতিদিন একটি করে কলা খেতে হবে। কলায় উপস্থিত ফলিক অ্যাসিড কোষ তৈরি করতে এবং আসন্ন শিশুর জন্মগত ত্রুটি দূর করার জন্য অপরিহার্য বলে মনে করা হয়। ভ্রূণের ভালো বৃদ্ধির জন্যও কলা খুব উপকারী।-নিউজ ১৮ বাংলা

সানবিডি/এমআর

Print Print