পত্নীতে আত্মবিশ্বাস, পত্নীতে স্বস্তি

|| প্রকাশ: ২০১৫-১০-১৫ ২০:৫৯:৫৮ || আপডেট: ২০১৫-১০-১৫ ২০:৫৯:৫৮

sania-ns_87032এমন রাজকীয় প্রত্যাবর্তন কজনের ভাগ্যে জোটে। রাজ্য হারিয়ে এমন বীরত্ব কজন দেখাতে পারে। কজন কাজে লাগাতে পারে ‘পড়ে পাওয়া সুযোগ’। এমন পারাটা কঠিন তবে অসম্ভব নয়। সেটা প্রমাণ করেছেন শোয়েব মালিক। তারকা টেনিস খেলোয়াড় সানিয়া মির্জাকে বিয়ের পর ধীরে ধীরে পাকিস্তান জাতীয় দল থেকে উধাও হয়ে যান। মাঝে মাঝে ফিরলেও নিজেকে প্রমাণ করতে পারছিলেন না। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আচমকা সুযোগ পেয়েই ইতিহাস গড়েছেন।
খেলেছেন ক্যারিয়ার সেরা ২৪৫ রানের ঝকঝকে এক ইনিংস। আজহার আলী পায়ের ইনজুরির কারণে বাদ পড়ায় কপাল খোলে শোয়েবের। স্মরণীয় ইনিংসের পর শোয়েব বলছেন, পত্নী সানিয়ার সাফল্য দেখেই ফিরে আসার আত্মবিশ্বাস অর্জন করেন তিনি।

সানিয়া সম্প্রতি টেনিসে ইতিহাস গড়েছেন। মার্টিনা হিঙ্গিসের সঙ্গে ডাবলসে জিতেছেন গ্র্যান্ড স্লাম, ইউএস ওপেন। এছাড়া জিতেছেন ইন্ডিয়ান ওয়েলস প্রতিযোগিতা, মিয়ামি, চার্লেসটন, গুয়ানজোহু, উহান এবং বেইজিং ট্রফি।

স্ত্রীর এমন কৃতিত্ব দেখে নিজেকে ফিরে পাওয়ার আগুনে ঘি ঢালেন শোয়েব, ‘একটা দ্বিশতক সব সময় আসে না। সানিয়া যখন টেনিসে জয় পায়, তখন সেটা আমাকে প্রভাবিত করে। প্রচুর আত্মবিশ্বাস যোগায়।’

সানিয়ার এমন সাফল্যে সবসময় তিনি স্বস্তিতে থাকেন বলেও জানান, ‘আমরা স্বামী-স্ত্রী দুজনই খেলোয়াড়। এটা বেশ উপভোগ করি। সানিয়া ভাল খেললে আমি স্বস্তিতে থাকি। আমি ডাবল করায় সে ততটাই আনন্দ পেয়েছে, তার সাফল্যে আমি যতটা পাই।’

সানবিডি/ঢাকা/রাআ