বিশ্ববাজারে দুই মাসের সর্বনিম্নে জ্বালানি তেলের দাম

সান বিডি ডেস্ক আপডেট: ২০২২-১১-২২ ০৯:১৮:০৪


বিশ্ববাজারে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দাম কমে দুই মাসের সর্বনিম্নে নেমেছে। গতকাল কার্যদিবসের শুরুতে পণ্যটির বাজারদর ব্যারেলপ্রতি প্রায় ১ ডলার কমে যায়। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বাজারজুুড়ে জ্বালানি তেলের সরবরাহ সংকট শিথিল হওয়ার আভাস মিলেছে। তার ওপর চীনে পণ্যটির চাহিদা আরো কমার আশঙ্কা এবং ডলারের মূল্যবৃদ্ধি জ্বালানি তেলের বাজারে নিম্নমুখী চাপ তৈরি করেছে। খবর রয়টার্স।

সোমবার আইসিই ফিউচারসে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের আন্তর্জাতিক বাজার আদর্শ ব্রেন্টের দাম ৭৪ সেন্ট বা দশমিক ৮ শতাংশ কমেছে। প্রতি ব্যারেলের মূল্য স্থির হয়েছে ৮৬ ডলার ৮৮ সেন্টে।

অন্যদিকে নিউইয়র্ক মার্কেন্টাইল এক্সচেঞ্জে ডিসেম্বরে সরবরাহ চুক্তিতে মার্কিন বাজার আদর্শ ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েটের (ডব্লিউটিআই) দাম ৬৮ সেন্ট বা দশমিক ৯ শতাংশ কমেছে। প্রতি ব্যারেলের মূল্য স্থির হয়েছে ৭৯ ডলার ৫২ সেন্টে।

গত শুক্রবার উভয় বাজার আদর্শের দাম লক্ষণীয় মাত্রায় কমে যায়, যা ছিল ২৭ সেপ্টেম্বরের পর সর্বনিম্ন। এ নিয়ে টানা দ্বিতীয় সপ্তাহের মতো পণ্যটির বাজার নিম্নমুখী রয়েছে। এর মধ্যে ব্রেন্টের সাপ্তাহিক দাম ৯ শতাংশ এবং ডব্লিউটিআইয়ের ১০ শতাংশ কমেছে।

সিএমসি মার্কেটসের বিশ্লেষক টিনা টেং বলেন, সপ্তাহান্তে চীনে কভিডজনিত বিধিনিষেধের কারণে চাহিদা কমে যাওয়ার পাশাপাশি মার্কিন ডলারের মূল্যবৃদ্ধিও জ্বালানি তেলের বাজার নিম্নমুখী হয়ে ওঠার ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা রেখেছে।

সম্প্রতি সব শীর্ষ অর্থনীতির দেশে মন্দার আশঙ্কা তীব্র হয়ে উঠেছে। বিশেষ করে যুক্তরাজ্য ও ইউরো জোন বেশি ঝুঁকিতে। এমন পরিস্থিতিতে সরবরাহ সংকটের উদ্বেগ কমেছে। কারণ মন্দা পরিস্থিতির মধ্যে স্বাভাবিকভাবেই জ্বালানি পণ্যটির চাহিদা কমবে। অন্যদিকে মার্কিন ফেডারেল রিজার্ভ আবারো ৭৫ বেসিস পয়েন্টে সুদের হার বাড়াতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে, যা জ্বালানি তেলের দামকে আরো নিম্নমুখী করে তুলবে।

এনজে

Print Print