বিএনপির ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

|| প্রকাশ: ২০১৫-১০-১৯ ১৮:৩০:০৬ || আপডেট: ২০১৫-১০-১৯ ১৮:৩০:০৬

BNPদুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি সমাবেশ আহ্বানের পরিপ্রেক্ষিতে ১৪৪ ধারা জারি এবং একাংশের বর্জনের মধ্য দিয়ে গতকাল সোমবার নওগাঁর মান্দা উপজেলা বিএনপির ত্রিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞার কারণে সামসুল আলম প্রামাণিক গ্র“প ও একরামুল বারী টিপু গ্র“প কোনো পক্ষই গতকাল সোমবার নির্ধারিত স্থানে সমাবেশ করতে পারেনি। তবে উপজেলার দেলুয়াবাড়ি বাজারে সামসুল গ্র“প তাঁদের পূর্বঘোষিত ত্রিবার্ষিক কাউন্সিল অধিবেশন সম্পন্ন করেছে। কাউন্সিল শেষে সাবেক সাংসদ ও বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সামসুল আলম প্রামাণিককে সভাপতি এবং মোখলেছুর রহমানকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু বকর সিদ্দিক নান্নু।

অন্যদিকে এই কমিটিকে অবৈধ বলে ঘোষণা দিয়ে এর বিরুদ্ধে উপজেলার জলছত্র মোড়ে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেন উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ডা. ইকরামুল বারী টিপুর গ্র“প। সেখানে বক্তারা বলেন, গোপনে সামসুল আলমের বাসায় গঠিত কমিটি সম্পূর্ণ অবৈধ। তাঁরা অবিলম্বে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মতামতের পরিপ্রেক্ষিতে প্রকাশ্যে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় কমিটি গঠনের দাবি জানান।

ইকরামুল বারী টিপু বলেন, এটা একটি পকেট কমিটি। এই অবৈধ কমিটিকে উপজেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা বর্জন করেছে। অবিলম্বে এই কমিটি বাতিল করে সবার মতামতের ভিত্তিতে নতুন কমিটি গঠনের আহ্বান জানান তিনি।

অন্যদিকে সামসুল আলম প্রামাণিক বলেন, জেলা বিএনপির আহ্বায়কসহ জেলার শীর্ষ নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত থেকে ১০১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করে গেছেন। আহ্বায়ক নিজেই কমিটির সদস্যদের নাম ঘোষণা করেছেন।

একটি পক্ষ এই কমিটি বর্জন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যাঁরা এই কমিটি বর্জন করেছেন, তাঁরা বিএনপির কেউ নন। তাঁদের নেতা ডা. ইকরামুল বারীকে দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান নিজে বহিস্কার করেছেন। তাঁদের বিরোধীতায় মান্দা বিএনপির কোনো ক্ষতি হবে না বলে তিনি দাবি করেন।

এ ব্যাপারে জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু বকর সিদ্দিক নান্নু বলেন, দলের গঠনতন্ত্র মেনে যথাযথ নিয়মে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় কাউন্সিলের মাধ্যমে কমিটি গঠন করা হয়েছে। নেতাকর্মীদের সামনে প্রকাশ্যে কমিটির সদ্যদের নাম ঘোষণা করে তাঁদের সমর্থন জানতে চাওয়া হয়েছে। যাঁদের মাধ্যমে দল শক্তিশালী হবে তাঁদেরকেই কমিটিতে রাখা হয়েছে।

এর আগে গত রবিবার একই স্থানে একই সময়ে উপজেলা বিএপির দুই পক্ষ সমাবেশ আহ্বান করেন। দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি এই সমাবেশের কারণে সংঘর্ষের সৃষ্টির আশঙ্কায় সমাবেশস্থলে গতকাল সোমবার সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা করে প্রশাসন।

সানবিডি/ঢাকা/সেতু/এসএস