‘আশুরায় শরীর রক্তাক্ত করা হারাম’

|| প্রকাশ: ২০১৫-১০-২৩ ১৭:০৩:২৮ || আপডেট: ২০১৫-১০-২৩ ১৭:০৩:২৮

Irani-Aleem-600x330ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ খামেনি বলেছেন, ফতোয়া অনুযায়ী মহররম ও আশুরার শোক পালনের নামে শরীর রক্তাক্ত করা হারাম। এমনকি গোপনে এ কাজ করতেও নিষেধ করেছেন খামেনি।

তিনি বলেন, এ ধরনের কাজ শোক-প্রকাশ নয় বরং শোক-প্রকাশের ধ্বংস সাধন। পোশাক খুলে উদাম গায়ে শোক প্রকাশ করাও হারাম। বিশ্বের কোনো কোনো অঞ্চলে আশুরা ও মহররমের শোক প্রকাশের নামে অনেকেই নানা পন্থায় শরীরকে রক্তাক্ত করেন। বিষয়টি মহররমের পবিত্রতা ও শোক-প্রকাশকারীদের সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণা সৃষ্টি করছে অনেকের মধ্যেই।

ইরানের শীর্ষস্থানীয় অনেক আলেম মনে করেন, এ ধরনের শোক পালনের নামে অপতৎপরতায় ইসলাম বিদ্বেষীরা এই মহান ধর্ম সম্পর্কে নানা ধরনের অপপ্রচার চালানোর সুযোগ নিচ্ছে। তাই তারা শোক-প্রকাশের ক্ষেত্রে এসব বাড়াবাড়ি পরিহার করতে মুসলমানদের সতর্ক করে আসছেন।

এ সম্পর্কে আলেম সমাজ অনেক আগ থেকেই বলে আসছেন যে, ইসলামের বিধান অনুযায়ী ইবাদতের জন্য পোশাক, শরীর ও স্থান পবিত্র হওয়া জরুরি। কিন্তু রক্ত অপবিত্র হওয়ায় এর স্পর্শে স্থান, দেহ ও পোশাক অপবিত্র হয়ে যায়। ইবাদতের নামে মহররমে মসজিদ ও ইমামবাড়ির মত পবিত্র স্থানকে ইচ্ছাকৃতভাবে মানুষের রক্ত দিয়ে অপবিত্র করা হারাম। যারা কারবালার শোকাবহ ঘ্টনার জন্য শোক প্রকাশ করতে চান তারা এভাবে রক্ত অপচয় না করে রোগীদের জন্য হাসপাতালে রক্ত দান করলে অনেক সাওয়াবের অধিকারী হবেন বলেও ইরানি আলেম সমাজ মনে করেন।