আইএস আর টিআইবি একই সূত্রে গাঁথা : হানিফ

|| প্রকাশ: ২০১৫-১০-২৬ ১৫:৩৬:১৬ || আপডেট: ২০১৫-১০-২৬ ১৫:৩৬:১৬

Hanif-1তথাকথিত আইএস জঙ্গি ও ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) একই সূত্রে গাঁথা বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ।

সোমবার দুপুুরে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আগামী ৩ নভেম্বর জেলহত্যা দিবস পালন উপলক্ষে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের এক প্রস্তুতি সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, টিআইবি তাদের প্রতিবেদনে বলেছে, ‘বর্তমানে বিএনপি বিরোধী দলে না থাকায় তাদের অনুপস্থিতির কারণে সংসদ অকার্যকর।’ হানিফ বলেন, অথচ যখন বিএনপি বিরোধী দলে ছিল তারা সংসদ বর্জনের রেকর্ড করেছিল। সে সময় তারা সংসদকে কতটুকু কার্যকর করেছিল টিআইবির কাছে প্রশ্ন রাখের তিনি।

মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে টিআইবি সংসদের কার্যকারিতা মানতে নারাজ। একইভাবে নির্বাচনের নতুন ফর্মুলা দিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে তারা।

তিনি টিআইবির উদ্দেশ্যে বলেন, বর্তমান বিরোধী দল সংসদে যথাযথ ভূমিকা রেখে চলেছে। তারা সরকারে বিভিন্ন বিষয়ে কঠোর বিরোধীতা করে যাচ্ছে। কিন্তু বিএনপি যখন বিরোধী দলে ছিল, তখন তারা সংসদে অশালীন ও অশ্লীল বাক্য ব্যবহার করতো।

টিআইবি সংসদের কার্যকারিতা দেখে না, সরকারের উন্নয়ন দেখে না। অথচ দেশ এদিকে এগিয়ে যাচ্ছে। দেশের উন্নয়ন হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, বিদেশি নাগরিকদের হত্যাসহ কয়েকটি ঘটনার পর তাতে আইএস জড়িত বলে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। আমরা বলছি, আইএস নেই, কিন্তু বাইরে থেকে জোর করে আইএস আছে বলে চাপিয়ে দিতে চাচ্ছে। এগুলো সরকারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র। সরকারকে বিপদে ফেলতে ও সরকারের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করতে এসব ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। টিআইবিও একইভাবে সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

হানিফ বলেন, বাংলাদেশে কোনো জঙ্গি সংগঠনের অস্থিতত্ব নেই, জঙ্গি বলতে যা বুঝায় তা হলো জামায়াত-বিএনপির কর্মকাণ্ড। দেশে জামায়াত-বিএনপির বাইরে আর কোনো জঙ্গি সংগঠন নেই বলে দাবি করেন তিনি।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগের সভাপতিত্বে সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায়বিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, মুক্তিযোদ্ধাবিষয়ক সম্পাদক তাজুল ইসলাম, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন প্রমুখ।

সানবিডি/ঢাকা/এসএস