রাবির সাবেক শিবির নেতার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

প্রকাশ: ২০১৫-১০-২৬ ১৯:০৩:৪৪

shibir-logo_finalরাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিবির নেতা সাইফুদ্দিন ইয়াহ্ইয়াকে অস্ত্র মামলায় যাবজ্জীবন কারাদ- দিয়েছে আদালত। একই মামলার অপর একটি ধারায় তাকে আরো ১০ বছর সশ্রম কারাদ- দেয়া হয়েছে।

সোমবার দুপুরে রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালের বিচারক গোলাম আহমেদ খলিলুর রহমান এ রায় দেন।

সাইফুদ্দিন ইয়াহ্ইয়া রাবি শাখা শিবিরের সাধারন সম্পাদক ছিলেন। তিনি ২০০৪-০৫ শিক্ষাবর্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগে ভর্তি হন। ২০১০ সালে তার সম্মান শেষ হয়। পরে মাস্টার্সে ভর্তি হলেও তা শেষ না করে ২০১২ সালের কাউন্সিলে রাবি শিবিরের সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব পালন করছিলেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর রাত ৩টার দিকে রাজশাহীর র‌্যাব রেলওয়ে কলোনীর সদস্যরা মালোপাড়া এলাকার আল-রহমান হার্ডওয়ার মাকের্টের তৃতীয় তলায় অভিযান চালায়। এসময় বিদেশি পিস্তল ও দেশীয় অস্ত্রসহ তৎকালীন রাবি শিবিরের সেক্রেটারি সাইফুদ্দিন ইয়াহ্ইয়াসহ ৮জন গ্রেফতার হয়।

এ ঘটনায় র‌্যাবের ডিএডি আলতাফ হোসেন বাদি হয়ে বোয়ালিয়া মডেল থানায় অস্ত্র আইনে একটি মামলা করেন। তদন্ত শেষে ওই বছরের ৩১ অক্টোবর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শিবির নেতা সাইফুদ্দিন ইয়াহ্ইয়াকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

মামলাটি চলতি বছরের ৩ আগস্ট দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হয়। সোমবার শুনানি শেষে বিচারক গোলাম আহমেদ খলিলুর রহমান ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনের ১৯ (এ) ধারায় সশ্রম যাবজ্জীবন কারাদ- এবং ১৯ (এফ) ধারায় ১০ বছরের সশ্রম কারাদ- দেন। তবে হাজতকালীন সময় তার সাজার মেয়াদ থেকে বাদ যাবে।

মামলাটি রাষ্ট্রপক্ষের বিশেষ পিপি আইনজীবী এনতাজুল হক বাবু ও আসামি পক্ষে আইনজীবী মিজানুল ইসলাম পরিচালনা করেন

সানবিডি/ঢাকা/হৃদয়/এসএস

Print Print