নিরাপত্তা ও সহযোগিতা চায় সৌরভের পরিবার

|| প্রকাশ: ২০১৫-১০-২৬ ১৯:১২:৫৯ || আপডেট: ২০১৫-১০-২৬ ১৯:২১:৪৭

rafik rangpur sawrav bari fera _88255গাইবান্ধা-১ সুন্দরগঞ্জের সাংসদ মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনের ছোড়া গুলিতে আহত শিশু সৌরভ চিকিৎসা শেষে সোমবার দুপুরে কড়া পুলিশি পাহারায় বাড়ি ফিরেছে। এর আগে বেলা ১১টায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ও সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকরা তার শরীরের খোঁজ-খবর নিয়ে ছাড়পত্র দেন।

এদিকে সৌরভের পরিবারের নিরাপত্তা, দায়িদের শাস্তি এবং তার পড়ালেখার খচরসহ আর্থিক সাহায্য চেয়েছে পরিবারটি।

২ অক্টোবর থেকে হাসপাতালের বিছানায় ছিল শিশু সৌরভ। তার দু’পায়ের ক্ষত না শুকালেও সে খেলতে ও হাঁটতে পারছে। এ জন্য খুশি তার বাবা-মা, চিকিৎসক এবং সে নিজেও। দীর্ঘ ২৪ দিন পর বাড়ি ফিরতে পারায় আনন্দিত সে।

ভয় আর আতংকে সৌরভের পরিবার বাড়ি ফিরলেও গুলিবিদ্ধ এই শিশুটির পড়ালেখার খরচসহ ভবিষ্যতে কর্মসংস্থানের দাবি করেন তার মা-বাবা।

সৌরভের মা সেলিনা বেগম জানান, আমরা গরিব। সৌরভের বাবা দিনমজুর। গ্রামে কাজ করে খায়। আমরা চাই সরকার ওর লেখাপড়ার খরচ এবং ভবিষ্যতে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করুক। সৌরভের বাবা সাজু মিয়া জানান, আমি চাই নিরাপত্তা। আর যেন ওই এমপি আমাদের কোন ক্ষতি না করে।

সৌরভ জানায়, সে আবার স্কুলে যাবে। তবে সে এমপি লিটনকে স্বপ্নে দেখে। তাকে যেন আর গুলি না করে সরকারের কাছে তার এই দাবি।

সৌরভকে ছাড়পত্র দেয়ার পর হাসপাতালে পরিচালক সংবাদ সম্মেলনে জানান, নিবিড়ভাবে তাকে আমরা চিকিৎসা দিয়েছি। এখন সে সুস্থ। তবে পুরোপুরি সুস্থ হতে আরো এক দেড় মাস লাগতে পারে। এ জন্য তাকে শরীর চর্চার প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে।

এমপি মঞ্জরুল ইসলামের গুলির ঘটনায় সৌরভের বাবা সাজু মিয়ার মামলায় গ্রেফতার আছেন তিনি। ২ দফায় জামিন আবেদন করলেও আদালত তা মঞ্জুর করেননি।

সানবিডি/ঢাকা/রাআ