চলতি মাসেই হতে পারে পরিমলের রায়

|| প্রকাশ: ২০১৫-১১-০১ ১৯:১৪:০৯ || আপডেট: ২০১৫-১১-০১ ১৯:১৭:৫২

porimol_89006ভিকারুননিসা নূন স্কুলের দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে শিক্ষক পরিমল জয়ধরের বিরুদ্ধে মামলার রায় হতে পরে চলতি (নভেম্বর) মাসেই।

আজ রবিবার মামলাটিতে ঢাকার চার নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপিত হয়।

ওই ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পিপি ফোরকান মিয়া রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন। আসামি শিক্ষক পরিমলের উপস্থিতিতে তিনি যুক্তিতর্কে মামলাটিতে ২৮ জনের সাক্ষ্য উপস্থাপনের মাধ্যমে আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ করতে পেরেছেন বলে দাবি করে আসামির সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেন।

রাষ্ট্রপক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের পর আসামি পক্ষে অ্যাডভোকেট মাহফুজ মিয়া আংশিক যুক্তি উপস্থাপনের পর সময় প্রার্থনা করেন। ওই ট্রাইব্যুনালের বিচারক সালেহ উদ্দিন আহমেদ সময় আবেদন মঞ্জুর করে আগামী ৯ নভেম্বর আসামি পক্ষের অবশিষ্ট যুক্তি উপস্থাপনের দিন ধার্য করেন।

এদিকে পিপি ফোরকান মিয়া জানান, আগামী ৯ নভেম্বর মামলাটিতে যুক্তিতর্কের শুনানি শেষে হলে চলতি মাসেই রায় ঘোষণার সম্ভাবনা রয়েছেন।

তিনি আরও জানান, ধর্ষণের অভিযোগের এই মামলায় সর্বোচ্চ যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধান রয়েছে।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, ওই ছাত্রীকে প্রলোভন দেখিয়ে ২০১১ সালের ২৮ মে ধর্ষণ করেন শিক্ষক পরিমল জয়ধর। ওই সময় ওই ছাত্রীর নগ্ন ছবি মোবাইলে ভিডিও করা হয়। পরে ওই ভিডিও বাজারে ছাড়ার কথা বলে ওই বছরের ১৭ জুন ফের ধর্ষণ করেন।

২০১১ সালের ৬ জুলাই পরিমল জয়ধর গ্রেপ্তার হন। ২০১১ সালের ১৪ আগস্ট আদালতে চার্জশিট দাখিল করে সিআইডি। ২০১২ সালের ৭ মার্চ মামলাটিতে আসামি পরিমলের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে আদালত। গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকে পরিমল জয়ধর কারাগারে রয়েছেন।

সানবিডি/ঢাকা/রাআ