প্রতিষ্ঠার ১৯ বছর পর কমিউিনিটি ক্লিনিকে সন্তান প্রসব

|| প্রকাশ: ২০১৫-১১-০৪ ১৮:৫২:২৫ || আপডেট: ২০১৫-১১-০৪ ১৮:৫২:২৫

Clinikগ্রামীণ দরিদ্র জনগোষ্ঠির স্বাস্থ্য ও প্রজনন সেবা প্রদানের জন্য গ্রামাঞ্চলে সরকার কমিউিনিটি ক্লিনিক প্রতিষ্ঠার ১৯ বছর পর বরিশালের আগৈলঝাড়ায় একটি কমিউনিটি ক্লিনিকে সন্তান প্রসব করলেন এক গৃহবধূ।

সূত্র মতে, ১৯৯৬ সালে আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় এসে গ্রামীণ দরিদ্র জনগোষ্ঠির দোরগোড়ায় স্বাস্থ্য ও প্রজনন সেবা প্রদানের জন্য গ্রামাঞ্চলে কমিউনিটি ক্লিনিক কার্যক্রম চালু করেন। কমিউনিটি ক্লিনিক কার্যক্রম চালুর ফলে শিক্ষিত, বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান এবং প্রত্যন্ত এলাকার দরিদ্র জনগোষ্ঠিকে বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করা হচ্ছে। হাসপাতাল বা ক্লিনিক ছাড়া সন্তান প্রসব করানো যায়না এমন প্রচলিত ধারনা ভেঙ্গে গতকাল মঙ্গলবার সুস্থ ও স্বাভাবিকভাবে উপজেলার রতœপুর ইউনিয়নের মোল্লাপাড়া কমিউনিটি ক্লিনিকে ছেলে সন্তান প্রসব করেছন এক গৃহবধূ।

উপজেলার পার্শ্ববর্তী উজিরপুরের ইন্দুরকানি গ্রামের নরেন সরকারের স্ত্রী শান্তা সরকার (৩০) এর প্রসব বেদনা শুরু হলে স্বজনেরা কাছাকাছি কোন হাসপাতাল বা ক্লিনিক পাওয়ায় তাকে নিয়ে মোল্লাপাড়া কমিউনিটি ক্লিনিকে সিএইচসিপি রীনা বাড়ৈর কাছে আসেন। রীনা বাড়ৈ উপজেলা হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স বিভা হালদারের সহযোগিতায় ওই গৃহবধূর একটি ছেলে সন্তান প্রসব করান। বর্তমানে শিমুটি সুস্থ ও স্বাভাবিক আছে বলে রীনা জানান। উপজেলার ২১টি কমিউনিটি ক্লিনিকের মধ্যে এই প্রথম একটি কমিউনিটি ক্লিনিক যেখানে প্রতিষ্ঠার ১৯ বছর পর কোন গৃহবধূর সন্তান প্রসব করানো হলো।