মওদুদীর আদর্শে আ.লীগ চলবেঃ শাহরিয়ার কবির

প্রকাশ: ২০১৫-১১-০৬ ১৫:৫৩:৩১

shahriar-kobirবঙ্গবন্ধু নয়, জামায়াতের প্রতিষ্ঠাতা মওদুদীর আদর্শে আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠিত হবে বলে মন্তব্য করেছেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহরিয়ার কবির। শুক্রবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির মিলনায়তনে ৭১ ফাউন্ডেশন আয়োজিত ‘মৌলবাদের উৎস ও আমাদের করণীয়’ শীর্ষক এক গোলটেবিল আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

শাহরিয়ার কবির বলেন, ‘জামায়াত বিএনপির ভিতর প্রবেশ করে সেখানে তাদের আদর্শ প্রতিষ্ঠিত করেছে। আর এবার আওয়ামী লীগের ভিতর প্রবেশ করতে শুরু করেছে তারা। তবে জামায়াত আওয়ামী লীগে প্রবেশ করলে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে নয়, বাংলাদেশ জামায়াত ইসলামী মওদুদীর আদর্শে আওয়ামী লীগকে প্রতিষ্ঠিত করবে।’ মুক্তিচিন্তার বুদ্ধিজীবীদের কেনো হত্যা করা হচ্ছে- এমন প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, ‘এর উত্তর পেতে হলে আমাদেরকে ১৯৭১ ও ৭২ সালে ফিরে যেতে হবে। ১৯৭১ সালে মুক্তচিন্তার বুদ্ধিজীবীদের তালিকা তৈরি করে জামায়াত যেভাবে হত্যা করেছিল আজও ওই একই প্রক্রিয়ায় হত্যা করা হচ্ছে। এই বিষয়ের সাথে কোনো দ্বিধা দ্বন্দ্ব থাকতে পারে না। বঙ্গবন্ধুকেও একই প্রক্রিয়ায় ১৯৭৫ সালে হত্যা করা হয়। তবে ১৯৭২ সালের সংবিধান যদি থাকতো তাহলে আজ দেশে কোনো সন্ত্রাস থাকতো না এবং মুক্তচিন্তার বুদ্ধিজীবীও হত্যা হতো না।’ ১৯৭২ সালের সংবিধান ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে বিলীন করার জন্যই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

জামায়াতকে নিষিদ্ধ করা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন জামায়াত নিষিদ্ধে বদ্ধপরিকর ঠিক সেই সময় সরকারের একজন মন্ত্রী বলেন- জামায়াতের তরুণরা ভুলের জন্য ক্ষমা চেয়ে এলে তাদের রাজনীতিতে সুযোগ দেয়া হবে।’ শাহরিয়ার বলেন, ‘সরকারের মন্ত্রীদের এসকল কথার কারণে আজ জামায়াতের তরুণরাই মুক্তিচিন্তার বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করছে।’ জামায়াত রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে গৃহযুদ্ধ শুরু করেছে বলেও মন্তব্য করেন শাহরিয়ার কবির।

তিনি বলেন, ‘জামায়াত নিষিদ্ধ করতে সংবিধান পরিবর্তনের কোনো প্রয়োজন নেই। সন্ত্রাসবিরোধী আইন, ট্রাইব্যুনাল ও আইনের মাধ্যমেই জামায়াতকে নিষিদ্ধ করা যায়।’ আয়োজক সংগঠনের চেয়ারম্যান ডা. খালেদা শওকত আলীর সভাপতিত্বে গোলটেবিল আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ যুব ইউনিয়নের প্রতিনিধি হাসান হাফিজুল রহমান, ৭১ ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক ড. জেবুন্নাহার প্রমুখ।

Print Print