সুখের ব্যাঘাত ঘটায় ফেসবুক!

|| প্রকাশ: ২০১৫-১১-১০ ২০:৫৫:০২ || আপডেট: ২০১৫-১১-১০ ২১:০১:৪৯

stayibg off facebook make you happier pic_90263বর্তমান প্রযুক্তি বিশ্বে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর ব্যবহার বাড়ছে ব্যাপকভাবে। বিশেষ করে ফেসবুকের গ্রাহক সংখ্যা বেড়ে চলেছে জ্যামিতিক হারে। ফেসবুকের বর্তমান গ্রাহক সংখ্যা ১৫৫ কোটির বেশি।

যারা ফেসবুকের প্রতি মারাত্মকভাবে আসক্ত তাদের জন্য একটি হতাশার সংবাদ আছে। সম্প্রতি ডেনমার্কের একদল গবেষক দেখেছেন, যারা ফেসবুক কম ব্যবহার করে তাদের বাস্তব জীবনে মানসিক তৃপ্তির পরিমাণ বেশি।

ডেনমার্ক কোপেনহেগেনের সুখ গবেষণা প্রতিষ্ঠান এক হাজার ৯৫ জন ডেনিশ নাগরিককে দুটি গ্রুপে ভাগ করে গবেষণা চালান। গবেষণার আগে, ৯৪ শতাংশ প্রতিদিন ফেসবুক ব্যবহার করতো।

একটি গ্রুপকে আগের মতই প্রতিদিন ফেসবুক ব্যবহার করতে বলা হল। আরেকটি গ্রুপকে সপ্তাহে একদিন ফেসবুক ব্যবহার করতে দেয়া হল। এক সপ্তাহ পরে গবেষণায় অংশগ্রহণকারী ব্যক্তিদের ‘জীবনের পরিতৃপ্তি’ মূল্যায়নের জন্য বলা হল। স্কোর নির্ধারণ করা হয়েছিল সর্বোচ্চ ১০।

ফলাফলে দেখা গেল, যারা গবেষণার আগে ও পরে প্রতিদিন ফেসবুক ব্যবহার করে আসছিল তাদের স্কোর দাঁড়ায় গবেষণার আগে ৭ দশমিক ৬৭ ও পরে ৭ দশমিক ৭৫।

আর যারা গবেষণা চলাকালীন সময়ে সপ্তাহে একদিন ফেসবুক ব্যবহার করেছিল তাদের স্কোর ৭ দশমিক ৫৬ থেকে বেড়ে দাঁড়ায় ৮ দশমিক ১২। তাছাড়া তাদেরকে স্থিরবুদ্ধি, উৎসাহী এবং উদ্বিগ্নতা আগের চেয়ে কমে গেছিল। তাদের একাকীত্ব ও মানসিক চাপও কম ছিল যারা নিয়মিত ফেসবুক ব্যবহার করেছে তাদের তুলনায়।

সুখ গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মিক উইকিং বলেন, সোশ্যাল মিডিয়া যারা ব্যবহার করেন তাদের মধ্যে একটা প্রবণতা বেশি দেখা যায় সেটা হল, নিজেকে অন্যের সাথে তুলনা করা।

তিনি আরও বলেন, ফেসবুক আমাদের বাস্তব ধারনাকে বিকৃত করে। অন্যেরা বাস্তব অর্থে কিভাবে জীবন-যাপন করে তার ধারণা পাওয়া যায় না। আমরা নিজেরা যা করছি, তা অন্যের সাথে তুলনা করি। বেশিরভাগ ফেসবুক ব্যবহারকারী তাদের ইতিবাচক দিকগুলোই শেয়ার করে। যা আমাদের বাস্তবতার শুধু একটি দিক দেখায়।

সানবিডি/ঢাকা/রাআ