জয় সকারুদের, গোলশূণ্য ৫৩ মিনিটই বাংলাদেশের

|| প্রকাশ: ২০১৫-১১-১৭ ২১:২৯:২৮ || আপডেট: ২০১৫-১১-১৭ ২১:৩২:৩৫

db11fa1e17c06cec41fec36188f6c9a1-Action২০১৮ বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে মুখোমুখি হয় স্বাগতিক বাংলাদেশ এবং অস্ট্রেলিয়া। প্রথমার্ধ শেষে টিম কাহিলের হ্যাটট্রিক আর দলপতি জেডিনাকের গোলে ৪-০ গোলে এগিয়ে থাকে সকারুরা। তবে, দ্বিতীয়ার্ধে সফরকারীদের রুখে দেয় বাংলাদেশ। লাল-সবুজরা ঘুরে দাঁড়ালে বিরতির পর কোনো গোলই আদায় করতে পারেনি অজিরা। ফলে, ৪-০ গোলের জয় নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় সকারুদের।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বিকেল সাড়ে পাঁচটায় মাঠে নামে দুই দল। দুই দেশের জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে শুরু হয় ম্যাচ।

ম্যাচের ষষ্ঠ মিনিটের মাথায় টিম কাহিলের গোলে লিড নেয় সকারুরা। হেড করে গোলটি করেন ৩৫ বছর বয়সী অজি তারকা। ম্যাচের ১১তম মিনিটে অতিথিদের আরেকটি জোরালো আক্রমণে কেঁপে উঠে স্বাগতিকদের রক্ষণভাগ। তবে, কোনো রকমে সে আক্রমণটি রুখে দেয় বাংলাদেশ।

ফিফা র‌্যাংকিংয়ের ৬০ নম্বর দলকে অবাক করে দিয়ে ম্যাচের ২২ মিনিটের মাথায় আক্রমণ শানে র‌্যাংকিংয়ের ১৮০ নম্বরে থাকা ফ্যাবিও লোপেজের শিষ্যরা। তবে, সকারুদের শক্ত ডিফেন্স চিড়ে কিছুই করতে পারেনি স্বাগতিকরা। পাল্টা আক্রমণে অস্ট্রেলিয়া জোরালো শট নিলেও স্বাগতিক গোলরক্ষক শহীদুল তা রুখে দেন।

ম্যাচের ৩০ মিনিটে লংপাসে বাংলাদেশ সকারুদের ডি-বক্সে বল আনলেও সেখানে কোনো স্বাগতিক ফুটবলার না থাকায় সমতায় ফেরা হয়নি।

খেলার ৩২ মিনিটের মাথায় আরেকবার লিড নেয় অস্ট্রেলিয়া। এবারো দলকে এগিয়ে নেন এভারটনের সাবেক অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার টিম কাহিল। বাংলাদেশের সীমানায় জটলার মধ্য থেকে বল জালে জড়িয়ে দেন কাহিল। ফলে, ২-০ গোলে এগিয়ে যায় সকারুরা। ম্যাচের ৩৭ মিনিটে আবারো গোল করেন ক্লাব ক্যারিয়ারে ৬২০ ম্যাচ খেলে ১৪৭ গোল করা টিম কাহিল। এ গোলের মধ্য দিয়ে সকারু তারকা নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন।

৪০ মিনিটের মাথায় অবৈধভাবে বাধা দেওয়ার কারণে বাংলাদেশের হেমন্ত ভিনসেন্টকে হলুদ কার্ড দেখান রেফারি ওয়াং ডি। খেলার ৪৩ মিনিটে ব্যবধান বাড়ায় অস্ট্রেলিয়া। দলের চতুর্থ গোলটি করেন দলপতি জেডিনাক। প্রথমার্ধে আর কোনো গোল না হলে ৪-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় অস্ট্রেলিয়া।

বিরতির পর ম্যাচের ৫৫ মিনিটে বাংলাদেশের ডি-বক্সের বাইরে থেকে উঁচু করে বল তুলে মারেন রিসডন। তবে, এক্ষেত্রে কোনো গোলের দেখা পায়নি সফরকারীরা। পরের মিনিটে পাল্টা আক্রমণে আসে লাল-সবুজরা। জামাল ভূঁইয়ার আক্রমণটি দিক পরিবর্তনের আগেই ভুল পাসে বল চলে যায় অতিথিদের দখলে।

নিজেদের রক্ষণকে শক্ত প্রাচীরের মতো ধরে রেখে বারবারই আক্রমণ চালাতে থাকে অস্ট্রেলিয়া। এশিয়ান জায়ান্টদের আক্রমণ রুখতেই স্বাগতিকদের এগারোজনকে নিজেদের বক্সে থাকতে হয়। লাল-সবুজরা মাঝমাঠ থেকে বেশ কিছু আক্রমণ চালালেও তা সকারুদের টপ-ডি অতিক্রম করতে পারেনি।

প্রথমার্ধের চেয়ে অনেকটা ভালো খেলে এগিয়ে যেতে থাকে মামুনুল বাহিনী। ৬৪ মিনিটের মাথায় ছোট জটলা থেকে গোল আদায় করার চেষ্টা করে সকারুরা। তবে, লাল-সবুজদের দলীয় প্রচেষ্টায় এ যাত্রায় ব্যর্থ হয় সফরকারীদের আক্রমণটি।

বাংলাদেশের ডি-বক্সের ঠিক বাইরে থেকে ম্যাচের ৭৫ মিনিটে ফ্রি-কিক পায় অস্ট্রেলিয়া। তবে, স্বাগতিকদের গোলবারের উপর দিয়ে বল মাঠের বাইরে চলে যায়। ৭৮ মিনিটের মাথায় বাঁপাশ দিয়ে আক্রমণ করে অস্ট্রেলিয়া। টিম কাহিলের হেডটি লক্ষভ্রষ্ট হয়। ফলে, ব্যক্তিগত চতুর্থ গোলটির সুযোগ নষ্ট করেন সকারুদের হয়ে ৮৯তম ম্যাচ খেলতে নামা টিম কাহিল।

৮৫ মিনিটের মাথায় ফ্যাবিও লোপেজ জীবনের বদলি হিসেবে আমিনুর রহমান সজীবকে মাঠে নামান।

৮৭ মিনিটে একটি ফ্রি-কিক অর্জন করে সকারুদের ডি-বক্সের বাঁপাশ থেকে। জামাল ভূঁইয়ার কোনাকুনি জোরালো শটটি কাজে লাগাতে পারেনি বাংলাদেশের কোনো ফুটবলার। ম্যাচের বাকি সময়ে আর কোনো গোল না হলে দ্বিতীয়ার্ধে প্রতিহত হওয়া অস্ট্রেলিয়া প্রথমার্ধের ৪-০ গোলের ব্যবধান নিয়ে মাঠ ছাড়ে।

চারবার বিশ্বকাপ খেলা এশিয়ান জায়ান্ট অস্ট্রেয়িলার কোচ পোস্তেকোগলু তার শুরুর একাদশে মাঠে নামান টিম কাহিল, জেডিনাক, উইলকিনসন, রাইট, লোউনোঙ্গো, ম্যাকায়দের। এদিকে, বাংলাদেশের হয়ে শুরুর একাদশে কোচ ফ্যাবিও লোপেজ মাঠে নামান নাসিরুল, হেমন্ত ভিনসেন্ট, রায়হান, মামুনুল, তপু বর্মন, সোহেল রানা, জামাল ভূঁইয়া, কোমলকে।

ফিফা বিশ্বকাপ-২০১৮ এর বাছাইপর্বে এর আগে হোম ম্যাচে পার্থের মাঠে বাংলাদেশকে ৫-০ গোলে হারিয়েছিল সকারুরা। এবার বাংলাদেশে অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলতে আসে কিরগিজস্তানকে ৩-০ গোলে হারিয়ে। এদিকে গত বৃহস্পতিবার তাজিকিস্তানের মাঠে বাংলাদেশ বিধ্বস্ত হয় ৫-০ গোলে। সাত ম্যাচ খেলে বাংলাদেশের পয়েন্ট মাত্র এক। আর ছয় ম্যাচ খেলা সকারুদের সংগ্রহ গিয়ে দাঁড়ালো ১৫।

সানবিডি/ঢাকা/রাআ