জার্মানিতে পণ্য বিপণনে সাড়া ফেলেছে বাংলাদেশ

সান বিডি ডেস্ক || প্রকাশ: ২০২০-০২-০৯ ১২:২৮:২৬ || আপডেট: ২০২০-০২-০৯ ১২:২৮:২৬

জার্মানিতে পণ্য বিপণনে সাড়া ফেলেছে বাংলাদেশ। ফ্রাংকফুর্টে আয়োজিত আম্বিয়েন্তে শীর্ষক প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণকারী ৩৪ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ক্রেতাদের নজর কাড়ছে বাংলাদেশ। বিশাল পণ্যসম্ভার নিয়ে ভারতের পর দক্ষিণ এশিয়া থেকে অংশগ্রহণের দিক থেকে সবচেয়ে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। প্রদর্শনীতে রয়েছে ডাইনিং, কুকিং, গৃহস্থালি পণ্য, ঘর সাজানোর জিনিস, ইন্টেরিওর ডিজাইন, উপহার, গহনা ও ফ্যাশনসামগ্রী।

মেসে ফ্রাংকফুর্টের এ প্রদর্শনী শুরু হয় ৭ ফেব্রুয়ারি। চলবে ১১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। এ প্রদর্শনীতে অংশ নেয়া বাংলাদেশী প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে রয়েছে প্যারাগন সিরামিক, শাইনপুকুর, পিপলস সিরামিক, মুন্নু সিরামিক, ফার সিরামিকস, সান ট্রেড, আরএফএল প্লাস্টিকস। এ প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের নিজস্ব স্ট্যান্ডসহ অংশ নিয়েছে। আর প্রকৃতি, সৈয়দপুর এন্টারপ্রাইজ, আর্টিসান হাউজ, এসিক্স বিডি, অরণ্য ক্রাফটস অংশ নিয়েছে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর আওতায়। এরই মধ্যে জার্মানিতে অবস্থানরত বাংলাদেশী কমার্শিয়াল কাউন্সেলর মো. সাইফুল ইসলাম অ্যাম্বিয়েন্তে-২০২০ পরিদর্শন করেছেন। এ সময় তিনি বাংলাদেশী প্রদর্শকদের উত্সাহ দেখে সন্তুষ্ট হন।

শাইনপুকুর সিরামিকের বিপণন বিভাগের প্রধান তানভিরুল ইসলাম বলেন, এ বছর তারা ২০তম বারের মতো অ্যাম্বিয়েন্তে প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণ করছেন। সিরামিক পণ্য প্রস্তুতকারক ও রফতানিকারকদের জন্য এটি একটি খুব গুরুত্বপূর্ণ প্রদর্শনী, যেহেতু আমাদের বেশির ভাগ ক্রেতাই এখানে আসেন। আমরা আশা করছি এবারো আমাদের প্রদর্শনী ক্রেতাদের নজর কাড়বে।

১৯৮৮ সাল থেকে প্রতি বছর অ্যাম্বিয়েন্তেতে অংশগ্রহণ করছে মুন্নু সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজ। প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক রশিদ মাইমুনুল ইসলাম বলেন, এ প্রদর্শনীতে আমাদের অংশগ্রহণ শুরু যখন আমরা একটি ছোট প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে প্রদর্শনী শুরু করি। সেখান থেকে এখন আমরা একটি জনপ্রিয় গ্লোবাল ব্র্যান্ড হিসেবে মর্যাদাপূর্ণ হল ৪.২-এ স্টল নিচ্ছি। অ্যাম্বিয়েন্তে বিশ্বজুড়ে গ্রাহকদের কাছে আমাদের নতুন পণ্য ও ডিজাইন প্রদর্শনের জন্য একটি উপযুক্ত জায়গা। প্রতি বছর হাজার হাজার গ্রাহক এ প্রদর্শনীতে আসেন। আমরা আশা করছি একটি ভালো হলে স্থান পেয়েছি বলে এ বছর আরো বেশি প্রিমিয়াম মার্কেট বিভাগে ব্যবসা পেতে সক্ষম হব।

আরএফএল গ্রুপের আন্তর্জাতিক মার্কেটিং বিভাগের জিল্লুর রহমান মজুমদার বলেন, এবার নিয়ে আমরা দশমবারের মতো এ প্রদর্শনীতে অংশ নিচ্ছি। আমাদের ব্যবসানীতি ও পরিকল্পনার ক্ষেত্রে এ প্রদর্শনী খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। আমাদের বেশির ভাগ গৃহস্থালি বাসনের ক্রেতা আমরা এ প্রদর্শনী থেকেই পাই। সূত্র: বণিক বার্তা
সানবিডি/ঢাকা/এসএস