লক্ষ্মীপুরে কিশোরী ধর্ষণ মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

সান বিডি ডেস্ক || প্রকাশ: ২০২০-০২-১০ ১৬:২৩:৪১ || আপডেট: ২০২০-০২-১০ ১৬:২৩:৪১

লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে কিশোরী ধর্ষণ মামলায় আব্দুর রহিম নামে এক যুবকের যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও মো. হেলাল নামে আরেকজনের ৫ বছরের সাজা দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে রহিমকে ১০ হাজার ও হেলালকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে প্রত্যেকের আরো এক মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

আজ সোমবার (১০ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় লক্ষ্মীপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ সিরাজুদ্দৌলাহ কুতুবী এ রায় দেন। এ মামলায় শ্যাম সুন্দর নামে অপর এক আসামি নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ায় তিনি খালাস পেয়েছেন।

এদিকে রায়ের সময় মামলার প্রধান আসামি আবদুর রহিম পলাতক থাকায় অপর সাজাপ্রাপ্ত আসামিকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, উপজেলার চর মার্টিন এলাকার বাসিন্দা রফিক উল্লাহর ছেলে আব্দুর রহিম, আবু তাহেরের ছেলে মো. হেলাল। এ মামলায় খালাস প্রাপ্ত শ্যাম সুন্দর একই এলাকার স্তষ প্রকাশের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৪ সালের ১০ অক্টোবরে বিয়ের প্রলোভনে কমলনগর হাজিরহাট এলাকার মেঘনা সিনেমা হলে নিয়ে ভিকটিম কিশোরীকে ধর্ষণ করা হয়। পরের দিন বিকালে ভিকটিমের ভাই বাদী হয়ে কমলনগর থানায় ধর্ষণ মামলা করেন (জি আর মামলা নং- ১২২/১৪)। মামলায় আব্দুর রহিম, মো. হেলাল ও শ্যাম সুন্দরকে আসামি করা হয়। পরে পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল ও সাক্ষীদের দীর্ঘ সাক্ষ্য ও শুনানি শেষে দোষী প্রমাণিত হওয়ায় আদালত আসামি রহিম ও হেলালের বিরুদ্ধে এ রায় দেন।

লক্ষ্মীপুর জেলা জজ কোর্টের স্পেশাল পিপি অ্যাডভোকেট আবুল বাশার রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আইন সবার জন্য সমান। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ভিকটিমকে ধর্ষণ করা হয়েছিল। অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিজ্ঞ আদালত এ রায় দিয়েছেন।

তবে আসামিপক্ষের আইনজীবী রাসেল মাহমুদ ভূঁইয়া মান্না বলেন, আসামিরা ন্যায় বিচার পাননি। ন্যায় বিচার পেতে উচ্চ আদালতে আপিল করা হবে।
সানবিডি/ঢাকা/এসএস