প্রচারের অভাবে সরকারি সুবিধাবঞ্চিত প্রবাসীরা

সান বিডি ডেস্ক || প্রকাশ: ২০২০-০২-১১ ১৮:২৬:২২ || আপডেট: ২০২০-০২-১১ ১৮:২৬:২২

প্রবাসীদের পাঠানো রেমিটেন্সে সচল থাকছে দেশের অর্থনীতির চাকা। সরকারও প্রবাসীদের দিয়েছে বিভিন্ন সুযোগ-সু্বিধা। তবে প্রচারণার অভাবে অনেক প্রবাসী জানেন না তার প্রাপ্য সুবিধাগুলো সম্পর্কে। তাই হাতের নাগালে থাকা সত্ত্বেও বিভিন্ন সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন প্রবাসীরা। সম্প্রতি কুয়েতে বাংলাদেশের একটি জাতীয় দৈনিকের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রবাসীদের বিভিন্ন স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে আলোচনা হয়। সেখানে উঠে আসে প্রবাসীদের জন্য সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা।

সমাবেশে বক্তারা প্রবাসীদের জন্য সরকারের পদক্ষেপগুলো তুলে ধরেন। এর মধ্যে রয়েছে- বাংলাদেশে অধ্যায়নরত প্রবাসীদের মেধাবী সন্তানদের শিক্ষাবৃত্তি ও শিক্ষা সহায়তা। সন্তানদের বাংলাদেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার প্রদান। প্রবাসে কেউ মৃত্যুবরণ করলে তার পরিবার বিমানবন্দরে লাশ গ্রহনের সময় ৩৫ হাজার টাকা এবং পরবর্তিতে তিন লক্ষ টাকা আর্থিক সহায়তা। বাংলাদেশে থাকা প্রবাসীদের সম্পদের সুরক্ষা ও তাদের পরিবারের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে সহযোগিতা করা। পঙ্গু ও অসুস্থ কর্মীদের জন্য বাংলাদেশ বিমানবন্দর অ্যাম্বুলেন্স সহায়তা। কাজ করতে গিয়ে গুরুতর অসুস্থ, আহত বা শারীরিকভাবে অক্ষম হয়ে দেশে ফেরত যেতে এবং চিকিৎসায় সহায়তায় ৫০ হাজার থেকে একলক্ষ টাকা পর্যন্ত আর্থিক সহায়তা প্রদান। প্রবাসে মৃত্যু হলে এবং কোম্পানি ও পরিবার লাশ পরিবহনে অক্ষম হলে দেশে লাশ প্রেরণ। এছাড়াও সরকারের বিভিন্ন ঋণ সহায়তা গ্রহন করতে পারবে প্রবাসীরা।

সরকার প্রবাসীদের জন্য প্রবাসী বীমা বাধ্যতামূলক করেছে। এ বীমায় দেয়া হচ্ছে বিভিন্ন ঋণ সুবিধা। এছাড়াও সরকার বিদেশে বাংলাদেশি কর্মীদের মানসম্পন্ন সেবা দেওয়া, তাদের আস্থা অর্জন, মৃত কর্মীদের মরদেহ দেশে আনা, ব্যয় নির্বাহ এবং এ সংক্রান্ত কাজে জবাবদিহি নিশ্চিত করতে প্রবাসীদের জন্য গঠন করেছে ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড।

মূলত এই কল্যাণ বোর্ডের সদস্য হলেই প্রবাসীরা এসব সুযোগ-সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। বাংলাদেশ দূতাবাস ও হাইকমিশনে গিয়ে আবেদনের মাধ্যমে এ কল্যাণ বোর্ডের সদস্য হওয়া যাবে। এছাড়াও ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের ওয়েবসাইট (www.wewb.gov.bd) থেকে আবেদন ফরম সংগ্রহ করে এর সদস্য হওয়া যাবে। আবেদন ফরমের সাথে পাসপোর্ট, ভিসা বা আকামা, বাংলাদেশের জাতীয় পরিচয় পত্রের (যদি থাকে) ফটোকপি এবং দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি জমা দিতে হবে। তবে বাংলাদেশ থেকে আসার সময় যেসব প্রবাসী সিমকার্ড যুক্ত গ্রিণ কালার BMET Emigration Clearance Card পেয়েছেন তাদের নতুন করে সদস্য হতে হবে না। এই কার্ডের মাধ্যমেই তারা সব সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।

এছাড়া ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড সর্ম্পকে বিস্থারিত জানতে প্রবাস বন্ধু কল সেন্টারে (+৮৮০১৭৮৪- ৩৩৩ ৩৩৩ অথবা +৮৮০১৭৯৪-৩৩৩ ৩৩৩) সরাসরি যোগাযোগ করতে পারবেন।

মো. শাহজান ও মো ওমর ফারুকের যৌথ সঞ্চালনায় আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করেন সাদেক রিপন। এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলাম, মো. মেজবাহ, ফয়েজ আহমেদ, তাইজুল ইসলাম, মাহমুদ, জাকির হোসেন, আলী সিকদার, ইকবাল, কাজী আলম, গোলাম মোস্তফা, সফি খাঁন, ফারহান, রবিউল ইসলাম, কবির হোসেন, আনিস প্রমুখ।
সানবিডি/ঢাকা/এসএস