একজন মা হিসেবে যখন আমি লজ্জিত

প্রকাশ: ২০১৫-১২-০৪ ১৮:৩৪:২৫ আপডেট: ২০১৫-১২-০৪ ১৮:৪০:৫৪

Facebookনা, কোনো ক্ষোভ হচ্ছে না, রাগও হচ্ছে না, অন্য সময়ের মতোন বিক্ষোভে ফেটে পড়তেও ইচ্ছে করছে না, কেবলই কষ্ট হচ্ছে। ছবিটা দেখুন, আমি নিশ্চিত, আপনাদেরও কষ্ট হবে। বুকের ভেতরে দলা পাকিয়ে উঠবে সেই কষ্ট। নাড়ির টানে টান পড়বে ছবিটা দেখে।

একটা বাচ্চা ছেলে আর তার বন্ধুরা এখানে যা করছে, তা নিয়ে কিছুই বলার নেই। নিজেকে ধিক্কার দিচ্ছি দেখার পর থেকেই। ছেলেটার প্রোফাইলে গিয়ে দেখলাম, সে যা লিখেছে ছবিটা শেয়ার করে, তা বলার মতোন ভাষা বা পড়ার মতোন কান আমার নেই। বন্ধু আতিকা রোমা ছবিটি শেয়ার করার পর থেকে কী এক বিষন্নতায় ছেয়ে গেছে পুরো মন। ভয়ে ভয়ে ছেলের বন্ধুদের চেহারাগুলো দেখলাম, আমার পরিচিত কেউ নেই তো এখানে? কী হতো পরিচিত থাকলেই? আর এই যে ছেলেটা, ও কী আমার পরিচিত না? ও কী আমার ছেলে না? ও তো কোনো মা-বাবারই সন্তান। ও এই সময়ের, এই সমাজেরই সন্তান, এই রাষ্ট্রের সন্তান। তাহলে এই প্রজন্মকে আমরা কীভাবে বড় করছি?

প্রোফাইল থেকেই জানলাম, সে জাগো ফাউন্ডেশনের সাথে যুক্ত, তার মানে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে সমাজের কাজ করছে সে। তাহলে এই ছবিটা? এই বাচ্চাটার নৈতিক জায়গাটা কোথায় তৈরি হচ্ছে? সে পড়ে মিরপুর ক্যান্টনমেন্ট কলেজে। স্কুল-কলেজগুলোতে এখন আর কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আসলে সমাজের উপর থেকে নিচ পর্যন্ত যখন অবক্ষয় ঘটে, তখন তার থেকে রেহাই পায় না কোনোকিছুই। এর মধ্য দিয়েই কাঁটা বেছে বেছে পথ চলতে হচ্ছে আমাদের। সন্তান মানুষ করা এক্ষেত্রে আরও কঠিন। বড় করা যায়, মানবিক ক্ষুধাগুলো তো আমরা মেটাতে পারছি না, তাই তাদের দোষ দিয়েও লাভ নেই।

এ নিয়ে জাগো ফাউন্ডেশনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তাৎক্ষণিক সাড়া পাওয়া গেছে। এটা আশা জাগায়। কিন্তু ছেলেটিকে ডেকে তাকে অপমান করে ফাউন্ডেশন থেকে বের করে দিলে এর সুরাহা হবে না। আমরা তো তা চাইও না। বরং এতে হিতে-বিপরীত হবে। ও তো একা না, ওর মতো এক বিশাল প্রজন্ম আজ এভাবেই বেড়ে উঠছে। এরাই হয়তো বাসায় লক্ষ্মী ছেলেটি হয়ে থাকে, হয়তো জুম্মার দিনে জায়নামাজ নিয়ে নামাজেও যায়। মা-বাবা ভাবেন, আহা, আমাদের ছেলেটা সহি পথেই আছে। তারা হয়তো জানেও না, তাদের ছেলে বা ছেলেরা কী করছে!

কিন্তু আমরা চাই, এই ছেলেটি এবং তার বন্ধুদের কাউন্সেলিং হোক। এদেরকে মানবিক শিক্ষা দেয়া হোক, সম্মান করতে শেখানো হোক, নারীকে শ্রদ্ধা করতে শেখানো হোক। কিন্তু কে করবে? কে দেবে? কে নেবে সেই উদ্যোগ?

সূত্র: উইমেন চ্যাপ্টার