রাবির হলে পঁচা আলু: শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ

প্রকাশ: ২০১৫-১২-০৪ ১৯:৫৫:১৭ আপডেট: ২০১৫-১২-০৪ ১৯:৫৭:১৫

Rajshahi RU Hall Food on Date 04.12.2015রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) একটি আবাসিক হলের ডাইনিং ও ক্যান্টিনে খাবার তৈরিতে পঁচা আলু ও পেপে ব্যবহার করা হচ্ছে। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ আমির আলী হলে এ বিষয়টি জানাজানি হলে শিক্ষার্থীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে।

হল সূত্রের বরাত দিয়ে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে ওই হলের ডাইনিং পরিচালনা করে আসছেন হাসেম নামের এক ব্যক্তি। ক্যান্টিন পরিচালনা করেন কাসেম নামের অপর একজন। শুক্রবার সকালে হলের ডাইনিংয়ে রান্নায় ব্যবহারের জন্য পঁচা আলু কাটছিলেন কয়েকজন কর্মচারী। এক শিক্ষার্থী সেটা দেখতে পেয়ে অন্য শিক্ষার্থীদের জানান। এরপর হলের শিক্ষার্থীরা ডাইনিংয়ের সামনে এসে বিক্ষোভ করতে থাকলে হাসেম ও কাসেম পেছনের দরজা দিয়ে পালিয়ে যায়।

সরেজমিনে দেখা যায়, হলের ডাইনিংয়ের রান্না ঘরের পাশে বিশাল আলুর স্তূপ পড়ে আছে। যার সব গুলোই পঁচা। সেই পঁচা আলু থেকে কেটে ভালো অংশ রান্নার জন্য রাখা হচ্ছে। পঁচা আলুর গন্ধে পাশে দাড়িয়ে থাকা দায়।

হলের আবাসিক শিক্ষার্থী জাহিদ হোসেন বলেন, বেশ কিছুদিন ধরেই রান্নায় পঁচা আলু ব্যবহার করায় শিক্ষার্থীরা প্রায়ই অসুস্থ হয়।  হল প্রশাসনকে বিষয়টি জানালেও প্রশাসন এ ব্যাপারে কোনো ধরনের পদক্ষেপ নেই নি।

এছাড়াও হলের কয়েকজন শিক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, ডাইনিং এবং ক্যান্টিন এ বেশিরভাগ সময়ই অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বাসি ও পঁচা খাবার খাওয়ানো হয়। এসব ঘটনায় পরিচালক হাসেম ও কাসেমই দায়ী। এ বিষয়ে ডাইনিং এবং ক্যান্টিন পরিচালক হাসেম ও কাসেমকে ফোন করা হলে তারা কেউই ফোন ধরেননি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ওই হলের দায়িত্বপ্রাপ্ত আবাসিক শিক্ষক এস এম মোখলেসুর রহমান বলেন, যারা পঁচা ও বাসি খাবার পারিবেশন করেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

হল প্রাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন আমি ছুটিতে আছি, এ বিষয়ে আমি এখনও কিছুই জানি না।